• search

আজব এক ছবি, যা নিয়ে তোলপাড় ইন্টারনেট

  • By Sritama Mitra
Subscribe to Oneindia News
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS
For Daily Alerts

    বেড়াতে গিয়ে সবাই পছন্দ করেন ছবি তুলতে। আশপাশের মনোরম দৃশ্যের মাঝে নিজেকে রেখে ছবি তোলা সবারই প্রিয়। সেরকমভাবেই বেড়াতে গিয়ে ছবি তুলছিলেন এক প্রেমিক জুটি। এমন সময় ঘটল এক আজব ঘটনা। যার ফলে সারাজ জীবন ছবিটির কথা মনে রাখবে এই জুটি![আরও পড়ুন:চার পা নিয়ে জন্মাল শিশু, ভারতের কোথায় ঘটল এমন বিরল ঘটনা, জানুন বিস্তারিত]

    ক্যামেরা রেডি, নিজের 'পজিশনে' দাঁড়িয়েছিলেন ওই ব্যাক্তি ও মহিলা। এমন সময় ক্যামেরা যখনই ক্লিক করল , উঠে এল এক অদ্ভুত ছবি। ছবিতে দেখা যাচ্ছে ব্যক্তির সঙ্গে মহিলার দুটি মুখের ছবি। একটি মুখ স্বাভাবিক , আর আরকেটি মুখ অস্বাভাবিক রকমের দেখায় ছবিতে। ভৌতিক মনে হলেও ঘটনা অত্যন্ত লোকিক।

    আজব এক ছবি, যাকে নিয়ে তোলপাড় ইন্টারনেট

    আসলে ছবি তোলার সময় মুভিং ক্যামেরায় একটি ছবি স্বাভাবিক আসে। তবে পর মুহূর্তেই ক্যামেরা যখন ক্লিক করতে যাবে, তখনই মহিলার হাঁচি পায়! আর তিনি হাঁচতে শুরু করলে , সেই অবস্থাতেই ছবি উঠে যায়। যার তার ফলেই ওঠে এই আজব ছবি। রোম্য়ান্টিক ছবির আবহ মুহুর্তে বিগড়ে যায়। তবে এই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় এখন ভাইরাল। ছবি পোস্ট করার সঙ্গে সঙ্গে চলে আসে ৬৪ হজার 'ভিউ'। আজব এই ছবি নিয়ে এখন তোলপাড় সোশ্যাল মিডিয়া।

    English summary
    he camera panned starting from the man's right hand side, meaning the woman was second to be captured in the photo.But unfortunately for the pair, their perfect holiday selfie moment didn't end in success.While the camera was moving round, the woman felt the urge to sneeze.Unlucky for her, the camera caught her mid-sneeze, and produced a terrifying image.

    Oneindia - এর ব্রেকিং নিউজের জন্য
    সারাদিন ব্যাপী চটজলদি নিউজ আপডেট পান.

    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Oneindia sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Oneindia website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more