• search

পৃথিবী জুড়ে ছড়িয়ে পড়ছে অতিরিক্ত উষ্ণতা

Subscribe to Oneindia News
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS
For Daily Alerts
    ক্যালিফোর্নিয়ার দাবানলে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে ৫০০র বেশী স্থাপনা
    Getty Images
    ক্যালিফোর্নিয়ার দাবানলে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে ৫০০র বেশী স্থাপনা

    এবারের গ্রীষ্মে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে মাত্রাতিরিক্ত উষ্ণ তাপমাত্রা অনুভূত হয়েছে।

    যুক্তরাজ্য থেকে স্ক্যান্ডিনেভিয়া হয়ে জাপান পর্যন্ত অনেক দেশেই আরো কয়েকদিন এই তাপদাহ অব্যাহত থাকার কথা।

    অত্যধিক তাপমাত্রার কারণে কয়েক হাজার মানুষের হিট স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়াকে কেন্দ্র করে জাপান কিছুদিন আগে জাতীয় দুর্যোগ অবস্থা ঘোষণা করে।

    দক্ষিণ ক্যালিফোর্নিয়া, পূর্ব কানাডা, আলজেরিয়া ও নরওয়েতে উচ্চ তাপমাত্রা সংক্রান্ত বিভিন্ন নতুন রেকর্ড তৈরি হয়েছে এবছর।

    ওমানে রাতের তাপমাত্রার মধ্যে সর্বনিম্ন ছিল ৪২.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস - যা ওমানের ইতিহাসের সর্বনিম্ন তাপমাত্রার হিসেবে সবচেয়ে বেশী।

    বিবিসি বাংলায় আরো পড়তে পারেন:

    সুইডেনে অভিবাসন কঠিন হচ্ছে কেন?

    বৃষ্টির ঘ্রাণ কেন ভালো লাগে আমাদের?

    যে কারণে নাগরিকত্ব নিয়ে শঙ্কায় আছে আসামের বাংলাভাষীরা

    গ্রীসের মাতিতে দাবানলের ধ্বংসস্তূপ
    Getty Images
    গ্রীসের মাতিতে দাবানলের ধ্বংসস্তূপ

    সুইডেনের উত্তরাঞ্চলের দাবানল ছড়িয়ে পড়েছে উত্তরের মেরু এলাকায়।

    গ্রীসের এথেন্সের কাছে দাবানলে এরই মধ্যে মারা গেছেন অন্তত ৮০ জন।

    কোন কোন দেশে তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে বেশী?

    জুলাই মাসের শুরু থেকে অনেক দেশেই তাদের নিয়মিত গড় তাপমাত্রার চেয়ে বেশী তাপমাত্রা অনুভূত হয়েছে।

    যেসব দেশে গড় তাপমাত্রার চেয়ে অনেক বেশী তাপমাত্রা অনুভূত হয়েছে সেগুলো হলো:

    যুক্তরাজ্য, স্ক্যান্ডিনেভিয়া (মূলত নরওয়ে আর সুইডেন), পূর্ব কানাডা, পূর্ব সাইবেরিয়ার বেশকিছু এলাকা, জাপান ও কাস্পিয়ান সাগর সংলগ্ন এলাকা।

    পাকিস্তানে এবছর অতিরিক্ত তাপমাত্রার কারণে মারা গিয়েছে ৬০ জনের বেশী মানুষ
    Getty Images
    পাকিস্তানে এবছর অতিরিক্ত তাপমাত্রার কারণে মারা গিয়েছে ৬০ জনের বেশী মানুষ

    যেসব দেশে স্বাভাবিকের চেয়ে কম তাপমাত্রা অনুভূত হয়েছে সেগুলো হলো:

    স্পেন ও পর্তুগাল সহ দক্ষিণ ইউরোপের কয়েকটি অঞ্চল, রাশিয়ায় উত্তর সাইবেরিয়ার কিছু অঞ্চল ও দক্ষিণ আমেরিকার সর্বদক্ষিণাঞ্চল।

    কোপার্নিকাস জলবায়ু পরিবর্তন সংস্থার তথ্য অনুযায়ী তৈরি করা মানচিত্র অনুযায়ী ইউরোপের সবচেয়ে উষ্ণ জুলাই ছিল ২০১০'এ। সেসময় গড়ের চেয়ে দুই ডিগ্রি বেশী তাপমাত্রা পরিলক্ষিত হয়।

    এবছরের জুলাইও ইউরোপের উষ্ণতম জুলাই মাসগুলোর মধ্যে অন্যতম হবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

    জুন মাস কতটা উষ্ণ ছিল?

    যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল সেন্টার্স ফর এনভায়রনমেন্টাল ইনফরমেশনের তথ্য অনুযায়ী, ১৮৮০ সালের পর থেকে পঞ্চম উষ্ণতম জুন মাস ছিল এবছর।

    উষ্ণতম জুন ছিল ২০১৬ সালে। তখন বিশ্বের তাপমাত্রা গড়ের চেয়ে ০.৯১ ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশী ছিল। অতিরিক্ত উষ্ণতা বিশ্বজুড়ে

    ঐ সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, বৈশ্বিক গড় তাপমাত্রার চেয়ে বেশী তাপমাত্রা রেকর্ড হওয়া টানা ৪২তম জুন এবং টানা ৪০২তম মাস ছিল জুন ২০১৬।

    জাপানে অতিরিক্ত তাপমাত্রার কারণে ঘোষণা করা হয়েছে জাতীয় দুর্যোগ
    Getty Images
    জাপানে অতিরিক্ত তাপমাত্রার কারণে ঘোষণা করা হয়েছে জাতীয় দুর্যোগ

    তাপমাত্রা বৃদ্ধির কারণ কী?

    বিশ্বের নানা জায়গায় তাপমাত্রা বৃদ্ধির কোনো একটি সুনির্দিষ্ট কারণ নেই।

    বিবিসি'র বিজ্ঞান বিষয়ক সম্পাদক ডেভিড শুকম্যান বলেন, "অবাক করা বিষয় হলো, বর্তমানে একই সময়ে একাধিক তাপদাহ অনুভূত হচ্ছে।"

    "পরিবেশ বিজ্ঞানীরা এমনটাও বলছেন না যে প্রতিবছরই এমন তাপদাহ থাকবে। কিন্তু তাঁরা বলছেন মাত্রাতিরিক্ত উষ্ণ আবহাওয়ার সম্ভাবনা দিন দিন বাড়বে", বলেন মি. শুকম্যান। কী?

    BBC
    English summary
    Extreme warmth is spread across the globe

    Oneindia - এর ব্রেকিং নিউজের জন্য
    সারাদিন ব্যাপী চটজলদি নিউজ আপডেট পান.