• search

রাষ্ট্রসংঘের সভায় হাসির খোরাক হলেন ট্রাম্প! কেন অপদস্ত হলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট

Subscribe to Oneindia News
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS
For Daily Alerts

    এবার আন্তর্জাতিক মঞ্চে রাষ্ট্রনেতাদের সামনাসামনি হয়ে হাসির খোরাক হলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। রাষ্ট্রসংঘের সভায় এদিন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ' আমেরিকা ফার্স্ট' প্রসঙ্গ তুলে বক্তব্য় রাখছিলেন। পাশাপাশি প্রশংসা করছিলেন তাঁর প্রশাসনের। আর সেই প্রসঙ্গ উঠতেই হাসির রোল ওঠে সভাকক্ষে। খানিকটা অপদস্ত হয়েও পরিস্থিতি সামলে নেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

    রাষ্ট্রসংঘের সভায় হাসির খোরাক হলেন ট্রাম্প! কেন অপদস্ত হলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট

    সভায় দেরিতে এসে পৌঁছন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। এরপরই নিজের ভাষণ শুরু করেন ট্রাম্প। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে কার্যকরি প্রশাসন হিসাবে তুলে ধরেন তাঁর সরকারের কাজকে। প্রশংসা করেন তাঁর সেনার। পাশাপাশি মার্কিন মুলুকে তাঁর প্রশাসন যা কাজ করেছে, তা মার্কিন ইতিহাসে কেউ করেনি বলে দাবি করেন তিনি। আর ট্রাম্পের এই বক্তব্যই সভাকক্ষে হাসহাসি শুরু হয়ে যায়। বিভিন্ন রাষ্ট্রনেতাদের কটাক্ষের হাসি হাসতে দেখে ট্রাম্প বলেন, 'এটা আশা করিনি, তহে ঠিক আছে..'। এভাবেই পরিস্থিতি সামাল দেন তিনি।

    উল্লেখ্য, বহুদিন ধরেই মার্কিন প্রেসিডেন্টের জাতীয়তাবাদী নীতি নিয়ে সমালোচনার ঝড় ওঠে আন্তর্জাতিক মহলে। পাশাপাশি ,'প্যারিস ক্লাইমেট অ্যাকর্ড', 'নর্থ আটলান্টিক ট্রিটি' নিয়ে ট্রাম্পের নেতিবাচক মনোভাবেরও বেশ সমালোচনা করে আন্তার্জাতিক রাজনৈতিকমহল। তারপর ফের একবার নতুন করে রাষ্ট্রসংঘের সভায় ট্রাম্পের বক্তৃতা ঘিরে এই নতুন পরিস্থিতি, নতুন করে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে শিরোনামে নিয়ে আল।

    English summary
    synopsis-President Donald Trump delivered a sharp rebuke of global governing at the United Nations on Tuesday, drawing headshakes and even mocking laughter from fellow world leaders as he promoted his aggressive “America First” agenda and boasted of America’s economic and military might.

    Oneindia - এর ব্রেকিং নিউজের জন্য
    সারাদিন ব্যাপী চটজলদি নিউজ আপডেট পান.

    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Oneindia sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Oneindia website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more