• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

জর্জ ফ্লয়েড হত্যা : বিক্ষোভকারীদের শান্ত করতে ভেঙে দেওয়া হবে মিনিয়াপোলিস পুলিশ ডিপার্টমেন্ট

দুই দিন আগেই অ্যাফ্রো-অ্যামেরিকান জর্জ ফ্লয়েডের নামে নামাঙ্কিত করা হয় হোয়াইট হাউজের সামনের রাস্তা। ওয়াশিংটন ডিসি-র মেয়র মিউরিয়েল বাউজা়র ওই রাস্তার নামকরণ করেন 'ব্ল্যাক লাইভ ম‍্যাটার প্লাজা'। জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যুতে পুলিশের নৃশংসতার বিরুদ্ধে প্রতিবাদকে সমর্থন করতে এই নামকরণ বলে জানা যায়। এরকম একাধিক পদক্ষেপ ও বেড়ে চলা বিক্ষোভে উত্তাল আমেরিকা।

মিনিয়াপোলিস পুলিশ ডিপার্টমেন্ট ভেঙে দেওয়ার সিদ্ধান্ত

মিনিয়াপোলিস পুলিশ ডিপার্টমেন্ট ভেঙে দেওয়ার সিদ্ধান্ত

শুধু আমেরিকা নয়, বর্ণবাদবিরোধী এই আন্দোলনের ঢেউ ছড়িয়ে পড়েছে আরও বিভিন্ন দেশে। এই সব চাপ সামলাতেই এবার বড় পদক্ষেপের ঘোষণা করা হল। গণআন্দোলনের মুখে যুক্তরাষ্ট্রের মিনেসোটা অঙ্গরাজ্যের মিনিয়াপোলিস পুলিশ ডিপার্টমেন্ট ভেঙে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

আন্দোলনকারীদের সঙ্গে কথা বলেন স্থানীয় কাউন্সিলররা

আন্দোলনকারীদের সঙ্গে কথা বলেন স্থানীয় কাউন্সিলররা

জানা গিয়েছে মিনিয়াপোলিস পুলিশের ৯ কাউন্সিল সদস্য রবিবার আন্দোলনকারীদের সঙ্গে কথা বলেন। এরপরই তাঁরা আন্দোলনকারীদের প্রতিশ্রুতি দিয়ে জানান, মিনিয়াপোলিস পুলিশ ডিপার্টমেন্ট বিলুপ্ত করার প্রক্রিয়া শুরু করা হবে। পুলিশ ডিপার্টমেন্টের বদলে স্থানীয় কাউন্সিলের ১৩ সদস্যের মধ্যে ৯ জনই শহরে 'জননিরাপত্তার একটি নতুন মডেলে'-এর কথা বলছেন।

আন্দোলনকারীদের তোপের মুখে মেয়র

আন্দোলনকারীদের তোপের মুখে মেয়র

পুলিশের পক্ষ থেকে পুরো ডিপার্টমেন্ট ভেঙে দেয়ার কথা বলা হলেও স্থানীয় মেয়র জ্যাকব ফ্রে একদিন আগে জানান, সম্পূর্ণ বিলুপ্ত হবে না। তিনিও আন্দোলনকারীদের সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে এই ঘোষণা করেছিলেন। যার জেরে তোপের মুখে পড়েন।

৮ মিনিট ৪৬ সেকেন্ডের নৃশংসতা ভরা সেই ভিডিও

৮ মিনিট ৪৬ সেকেন্ডের নৃশংসতা ভরা সেই ভিডিও

৮ মিনিট ৪৬ সেকেন্ডের নৃশংসতা ভরা এক ভিডিও প্রকাশ্যে এসেছিল কিছুদিন আগে। জর্জ ফ্লয়েডের ঘাড়ের উপর হাঁটু দিয়ে চেপে রয়েছে এক শ্বেতাঙ্গ পুলিশ কর্মী। আর শ্বাস নেওয়ার জন্য কাতড়াচ্ছেন জর্জ। মৃত্যু হয় তাঁর। আর এরপর করোনা সংক্রমণের মাঝেই প্রতিবাদে উত্তাল আমেরিকা। রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন মার্কিন নাগরিকরা। প্রতিবাদ চলে হোয়াইট হাউজের সামনেও।

হত্যা করা হয়েছিল ফ্লয়েডকে

হত্যা করা হয়েছিল ফ্লয়েডকে

জর্জের অটোপ্সি রিপোর্ট আসে। ঘাড়ে আঘাতের বা নেক কম্প্রেশনের কারণেই তাঁর মৃত্যু। এই মৃত্যুকে 'হত্যা', হোমিসাইড বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে। রিপোর্টে বলা হয়, 'কার্ডিওপালমোনারি অ্যারেস্ট ল এন্ফোর্সমেন্ট সাবডুয়াল' এবং ঘাড়ে আঘাত ৪৬ বছরের জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যুর কারণ। তাঁর মৃত্যু আসলে হোমিসাইড বলেও বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

বিশ্বের জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে চিন! একজোটে বেজিংয়ের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করবে ৮টি 'শক্তিশালী' দেশ

English summary
George Floyd death, The police department in the US city of Minneapolis will be dismantled
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X