• search

এই স্বঘোষিত ধর্মগুরুর ধর্ষণ মামলার রায় ঘোষণা নিয়ে রাজস্থানে যা চলছে

  • By Amartya Lahiri
Subscribe to Oneindia News
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS
For Daily Alerts

    স্বঘোষিত ধর্মগুরু আসারামের ধর্ষণ মামলার রায় ঘোষণা করা হবে কাল। যার জেরে গোটা রাজস্থান কড়া নিরাপত্তার বলয়ে ঘিরে ফেলা হয়েছে। বিভিন্ন এলাকায় জারি করা হয়েছে ১৪৪ ধারা। পাশাপাশি নিরাপত্তার স্বার্থেই রাজস্থান হাইকোর্ট আদালত চত্ত্বরে নয়, যোধপুর সেন্ট্রাল জেলের ভেতরেই রায়দানের নির্দেশ দিয়েছে।

    এই স্বঘোষিত ধর্মগুরুর ধর্ষণ মামলার রায় ঘোষণা নিয়ে রাজস্থানে যা চলছে

    [আরও পড়ুন:প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার ষড়যন্ত্রের অভিযোগ! গ্রেফতার হওয়া ব্যক্তির পরিচয় জেনে নিন]

    তৈরি রয়েছে প্রশাসনও। যোধপুর শহরে সন্দেহ হলেই গাড়ি থামিয়ে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। বিশেষ নজর রাখা হচ্ছে গুজরাট থাকা আসা গাড়িগুলির ওপর। রাজস্থানের ডিআইজি (কারা) বিক্রম সিং জানিয়েছেন, 'রায়দানের দিনের জনা আমরা সবরকম ব্যবস্থা নিযেছি। জেল চত্ত্বরে কোর্টরুমে শুধু আদালতের কর্মচারীরা, ম্যাজিস্ট্রেট, আসারাম ও অন্যান্য অভিযুক্তরা,ও দুপক্ষের আইনজীবিরাই থাকবেন'। আগামী ৩০ তারিখ পর্যন্ত রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় ১৪৪ ধারা জারি থাকবে বলে জানান তিনি।

    পাশাপাশি যোধপুর শহরে আসারামের আশ্রমগুলির ওপর নজর রাখছে পুলিশ। নজর রাখা হচ্ছে বিভিন্ন হোটেল, গেস্টহাউস এবং বাস টার্মিনাস ও রেল স্টেশনগুলির ওপরও।

    গত আগস্ট মাসে আর এক স্বঘোষিত ধর্মগুরু গুরপ্রীত রাম রহিমের সাজা ঘোষণার পর হরিয়ানার পঞ্চকুলায় নজিরবিহীন বিশৃঙ্খলা দেখা গিয়েছিল। অন্তত ২ লক্ষ রাম রহিম ভক্ত জড়ো হয়েছিলেন বিশেষ সিবিআই আদালতের বাইরে। সাজা ঘোষণার পরই আদালতের বাইরে হিংসা শুরু হয়ে যায়। পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে বেশ কিছু ডেরা সদস্যের মৃত্যু হয়। আরও প্রায় শ'তিনেক মানুষ জখম হন। আসারামের ক্ষেত্রে যাতে পরিস্থিতি কোনওভাবে সেদিকে না গড়ায়, সে চেষ্টাই করছে প্রশাসন। ডিসিপি আমন দীপ সিং বলেন, 'রায়দানের দিন আমরা জেল সিল করে দেব। কাউকে জেল চত্ত্বরের কাছে আসতে দেওয়া হবে না।'

    English summary
    Day ahead of the court verdict in alleged rape case against self-styled godman Asaram, a heavy layer of security was thrown across the state with Section 144 being imposed at several places.

    Oneindia - এর ব্রেকিং নিউজের জন্য
    সারাদিন ব্যাপী চটজলদি নিউজ আপডেট পান.

    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Oneindia sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Oneindia website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more