• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

মেরুকরণের রাজনীতিতে বামেদের ভবিষ্যৎ কী?

  • |
cpm-rally
বেঙ্গালুরু, অক্টোবর ১০: লোকসভা নির্বাচন যত এগিয়ে আসছে, বামপন্থী দলগুলির সংশয় বোধয় ততই বাড়ছে। বর্তমানে জাতীয় রাজনীতিতে টিকে থাকা বামপন্থীদের কাছে এক বিরাট চ্যালেঞ্জ। কারণ মতাদর্শ, সংগঠন এবং নেতৃত্ব - এই তিনটি বিষয়েই বামেদের অবস্থা আজ শোচনীয়। তাঁদের এই অস্তিত্ত্বের লড়াইযে দুটি পথই খোলা রয়েছে। এক, কংগ্রেস-এর সঙ্গে পুনরায় হাত মেলানো এবং দুই, কংগ্রেস-বিরোধী এবং বিজেপি-বিরোধী শক্তিগুলির সঙ্গে জোট বাঁধা।

প্রথম পথটি বিশেষ গ্রহণযোগ্য বলে মনে হয় না এই মুহুর্তে। কারণ, এই মুহুর্তে জাতীয় রাজনীতিতে কংগ্রেস-এর বেশ কোনঠাসা অবস্থা। 'সাম্প্রদায়িক' বিজেপিকে ঠেকানোর যে তত্ত্ব বামপন্থী প্রায়শই আওড়ান, তার গুরুত্ব অনেকটাই কমে যায় যখন বিজেপি বিরোধী আসনে থাকে কারণ নিজে বিরোধী হয়ে আরেক বিরোধী দলের বিরুদ্ধে অভিযান বিশেষ সফল হওয়ার নয় যখন খোদ সরকারই নানা সমস্যায় জেরবার। বর্তমান বাম নেতৃত্ব ঠিক এ করতে পারছে না যে কংগ্রেস তাঁদের বন্ধু না শত্রু। কারণটা সহজ।

বামেরা একক শক্তি হিসেবে এতটাই দুর্বল যে তাঁদের কোনও না কোনও দলের সমর্থন প্রয়োজন। আবার মতাদর্শগত বাধ্যবাধকতার জন্যে তাঁরা কংগ্রেস কিংবা বিজেপি কারো সঙ্গেই মিশ খেতে পারে না। কংগ্রেস-এর উদারবাদী অর্থনীতি এবং বিজেপির দক্ষিনপন্থী রাজনীতির সঙ্গে বামেরা সঙ্গতিস্থাপনে ব্যর্থ। কংগ্রেসকে 'কম খারাপ' হিসেবে জোটসঙ্গী করার একটি বাসনা বামেদের থাকে, কিন্তু সেই বাসনা সবসময় যে কার্যকর হয় তা নয়। ২০০৮ সালের 'ঐতিহাসিক ভুল' বামেরা সহজে ভুলবে বলে মনে হয় না।

অতএব, হাতে রইলো পেন্সিল-এর মতই থাকল তৃতীয় ফ্রন্ট। কিন্তু বর্তমানে বিজেপি নেতা নরেন্দ্র মোদি যেভাবে কংগ্রেস-বিরোধী পরিসরটিকে কব্জা করছেন, তাতে তৃতীয় ফ্রন্টের সম্ভাবনা ক্রমেই ক্ষীণ হচ্ছে। অন্ধ্রপ্রদেশের তেলুগু দেশম পার্টি ইতিমধ্যেই মোদির দিকে ঝুঁকেছে এবং ওয়াই এস আর কংগ্রেস সুপ্রিমো জগন মোহন রেড্ডিকেও সম্প্রতি মোদির তারিফ করতে শোনা গিয়েছে। বিহারে নীতীশকুমার বিজেপিকে ত্যাগ করার পর খুব সম্ভবত কংগ্রেস-এর দিকেই ঝুঁকতে চলেছেন। সেই রাজ্যের আরকেটি বড় শক্তি রাষ্ট্রীয় জনতা দল (আরজেডি) তাদের নেতা লালুপ্রসাদের জেল হওয়ার পর খুব শিগগিরই লড়াইতে ফিরতে পারবে বলে মনে হয় না।

উত্তর প্রদেশে কংগ্রেস চাইছে মায়াবতীকে পাশে পেতে। মুলায়ম সিংহ যাদবকেও রেহাই দেওয়া হয়েছে মামলা থেকে। দক্ষিণে জয়াললিতার সঙ্গে মোদির সখ্য সুবিদিত। তৃনমূল কংগ্রেস-এর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বামেদের সঙ্গে তৃতীয় ফ্রন্টে যোগ দেবেন নে, তা বলাই বাহুল্য। অতএব, এক ওড়িশার বিজু জনতা দল ছাড়া আর কোনো বড় দলকেই তৃতীয় ফ্রন্ট-এর দাবিদার হিসেবে দেখা যাচ্ছে না। মুলায়ম তৃতীয় ফ্রন্টকে আপাতত ভোট-পরবর্তী সমীকরণ হিসেবেই রেখেছেন এবং তাতে বোঝা যায় যে ধুরন্ধর সমাজবাদী পার্টি নেতাটি সুযোগের অপেক্ষায়ে রয়েছেন। তাহলে এই ফ্রন্টের ভবিষ্যৎ কী?

সব মিলিয়ে, রাজনৈতিক এবং নির্বাচনিক নিরিখে এদেশের বামপন্থীদের এখন প্রবল অস্তিত্বের সংকট।

lok-sabha-home
English summary
The polarisation ahead of the Lok Sabha elections has diminished the idea of Third Front and with it, has put the Left Front in a spot
For Daily Alerts

Oneindia - এর ব্রেকিং নিউজের জন্য
সারাদিন ব্যাপী চটজলদি নিউজ আপডেট পান.

Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X
We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Oneindia sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Oneindia website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more