• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

কানপুরে বাড়ছে ‘‌লাভ জিহাদ’,‌ তদন্তের জন্য গঠন আট সদস্যের সিট

বিয়ের অজুহাতে জোর করে ধর্মান্তর করানোর অভিযোগে কানপুর পুলিশ গঠন করল আট সদস্যের বিশেষ তদন্তকারী দল বা সিট। পুলিশের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন যে এ ধরনের মামলা এক ডজনের বেশি অভিযোগ হয়েছে।

কানপুরে বাড়ছে ‘‌লাভ জিহাদ’‌

কানপুরে বাড়ছে ‘‌লাভ জিহাদ’‌

জানা গিয়েছে, ‘‌লাভ জিহাদ'‌ ঘটনাকে কেন্দ্র করে হিন্দু সংগঠনের কিছু সদস্য কানপুরের আইজি মোহিত আগরওয়ালের সঙ্গে দেখা করেন। ১৫ দিন আগেই এই সিট গঠন করা হয়। প্রসঙ্গত, এই ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসে যখন কানপুরের এক মহিলা শালিনী যাদব সম্প্রতি এক মুসলিম ব্যক্তিকে বিয়ে করেন।

যদিও এই দম্পতি দিল্লি আদালতের কাছে জোর করে ধর্মান্তরের বিষয়টি অস্বীকার করেছেন। সরকারিভাবে জানা গিয়েছে, সিট এই বিষয়ে ইসলাম সংগঠনের ভূমিকা খতিয়ে দেখবে।

অধিকাংশ ঘটনা কানপুরের জুহি এলাকার

অধিকাংশ ঘটনা কানপুরের জুহি এলাকার

সিটের নেতৃত্বে থাকা দীপক ভুকর, যিনি কানপুর দক্ষিণের এসপি, তিনি জানিয়েছেন এই ঘটনার পেছনে আসল কি তথ্য লুকিয়ে আছে তা খুঁজে বের করা হবে। সিটের কাছে এ ধরনের বহু মামলা এসেছে, যার মধ্যে অধিকাংশই কানপুরের জুহি এলাকার ঘটনা। কানপুরে কোনও ‘‌লাভ জিহাদ'‌ চক্র চলছে কিনা এবং তার সঙ্গে ইসলামিক সংগঠনের ভূমিকা রয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখবে সিট।

 ইসলাম সংগঠনের ভূমিকা

ইসলাম সংগঠনের ভূমিকা

সরকারিভাবে দাবি করা হয়েছে, খুব দৃঢ় সম্ভাবনা রয়েছে হয়ত কিছু ইসলামিক সংগঠন এ ধরনের রাষ্ট্রদ্রোহী কার্যকলাপের জন্য মুষ্টিমেয় কিছু সংগঠনকে আর্থিক সহায়তা করছে। যদিও দীপক ভুখর জানিয়েছেন যে পর্যবেক্ষণের জন্য বিশেষ সোয়াট দলের সহায়তা নেওয়া হবে। গত দু'‌বছরে যতগুলি ‘‌লাভ জিহাদ'‌-এর ঘটনা ঘটেছে সিট স্থানীয় পুলিশের কাছে তার রিপোর্ট চেয়ে পাঠিয়েছে। ভুখর জানান, তদন্তকারী দল এই মামলার যোগসূত্রের জন্য এক ডজন ফোন নম্বর খুঁজে বের করেছে।

তদন্ত করছে সিট

তদন্ত করছে সিট

এছাড়াও সিট এ ধরনের দম্পতির ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের তথ্য ও তাঁদের পরিবারের সদস্যদের বয়ান রেকর্ড করছে। ভুখর জানান, দম্পতিদের সহায়ককারীর নম্বরও নেওয়া হয়েছে। যদিও তিনি জানিয়েছেন যে শালিনী যাদবের মামলায় দম্পতি দিল্লি হাইকোর্ট ও তিস হাজারি আদালতে জোর করে ধর্মান্তরের বিষয়টি অস্বীকার করেছে। ওই মহিলা জানিয়েছেন যে তিনি একজন মেজর এবং তিনি তাঁর পছন্দ মতো ব্যক্তিকে বিয়ে করেছেন। যেহেতু ওই মহিলা মেজর তাই পুলিশের এ ক্ষেত্রে কোনও ভূমিকা নেই। এই মামলা বন্ধ করে দেওয়ার রিপোর্ট শীঘ্রই আদালতে পাঠানো হবে।

Positive Story : ব্যারাকপুর মহকুমায় চতুর্থ কোভিড হাসপাতালের উদ্বোধন

প্রতীকী ছবি

পেঁয়াজ রপ্তানিতে কেন্দ্রীয় নিষেধাজ্ঞা, জারি হল নির্দেশিকা

English summary
love jihad raise in kanpur forms sit to probe
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X