• search

দশম শ্রেণিতে ফেল করেও দ্বাদশ শ্রেণিতে উঠল ছাত্রী, বিতর্ক গুজরাতে

  • By Ritesh
Subscribe to Oneindia News
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS
For Daily Alerts

    আহমেদাবাদ, ৮ জানুয়ারি : অষ্টাদশী জাহ্নবী থনকী দশম শ্রেণির বর্ডের পরীক্ষাতেও পাশ করতে পারেনি। তবে স্কুল বদলে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি হয়ে গিয়েছিল সে। এমনকী একাদশ শ্রেণির পরীক্ষায় পাশ করে এবছর দ্বাদশ শ্রেণিতে উঠে বোর্ডের পরীক্ষাতেও বসে পড়তে চলেছিল সে। তবে শেষপর্যন্ত শেষরক্ষা হল না।

    স্মার্টফোনের জন্যও এবার এসে গেল টয়লেট পেপার!

    রোবটের সঙ্গে তরুণীর 'লিভ-ইন', এবার বিয়ের পালা!

    সমস্ত কিছু জেনে স্কুল থেকেই তার বোর্ডের পরীক্ষায় বসা বাতিল করে দেওয়া হয়। তা নিয়ে আদালতে মামলা লড়লেও তা জাহ্নবীর বিপক্ষেই গিয়েছে। আদালত সমস্ত দিক বিচার করে তার দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষায় বসা বাতিল করে দিয়েছে।

    দশম শ্রেণি ফেল ছাত্রী উঠল দ্বাদশ শ্রেণিতে, বিতর্ক গুজরাতে

    ঘটনা হল, গুজরাতের জামনগরের খাম্বালিয়া শহরের বাসিন্দা জাহ্নবী ২০১৫ সালে দশম শ্রেণির বোর্ড পরীক্ষায় বসে ফেল করে। প্রতিটি বিষয়েই পাশ মার্কস তুলতে ব্যর্থ হয়েছিল সে। তবে ইন্টারনাল মার্কস যোগ করে সে পায় ৩৫ শতাংশ নম্বর।

    বাড়িতে নিজের চিতা সাজিয়ে আত্মহত্যা এক ব্যক্তির

    এইদেশে জঞ্জালের অভাব পড়েছে, অন্য দেশ থেকে আমদানি করতে হচ্ছে

    ফলে সে ভেবেছিল সে দশম শ্রেণির পরীক্ষায় পাশ করে গিয়েছে। সেই ভেবে গোকণী গার্লস উচ্চ বিদ্যালয়ে সে আবেদনও জানায় এবং ভর্তি হয়ে যায়। সবচেয়ে আশ্চর্যের স্কুল কর্তৃপক্ষও বিষয়টি খেয়াল করেনি এবং জাহ্নবীকে ভর্তি নেওয়া হয়। এবং সে একাদশ শ্রেণির পরীক্ষায় পাশও করে যায়।

    তবে পরে স্কুল কর্তৃপক্ষের সন্দেহ হওয়ায় দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষার আগে জাহ্নবীকে দশম শ্রেণির মার্কশিট আনতে বলা হয়। সেখানেই গোটা বিষয়টি স্পষ্ট হয়। স্কুলের তরফে সঙ্গে সঙ্গে তার পরীক্ষায় বসা আটকে দেওয়া হয়।

    English summary
    Eighteen-year-old Janvi Thanki passed her class XI examination last year, but won't be able to take the class XII board examination this year. The obstacle is her class X marksheet, which shows that she failed her class X board exams two years ago.

    Oneindia - এর ব্রেকিং নিউজের জন্য
    সারাদিন ব্যাপী চটজলদি নিউজ আপডেট পান.

    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Oneindia sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Oneindia website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more