• search

হিংসার ঘটনাকে কেন্দ্র করে অশান্ত মুম্বই, বন্ধ স্কুল,কলেজ, শান্তির আবেদন মুখ্যমন্ত্রীর

Subscribe to Oneindia News
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS
For Daily Alerts

    জাতপাতগত বিদ্বেষের জেরে সোমবার থেকে হিংসার আগুন ধীরে ধীরে জ্বলতে শুরু করে মহারাষ্ট্রে। সোমবার মহারাষ্ট্রের পুনেতে মারাঠা ও দলিত সম্প্রদায়ের মধ্যে উত্তেজনার জেরে , মঙ্গলবার মুম্বইতে বনধের ডাক দেয় দুটি সম্প্রদায়ের সংগঠনগুলিই। আর তার জেরেই মঙ্গলবার উত্তেজনা ছড়ায় মুম্বই জুড়ে। এদিকে, সোমবারের ঘটনায় এক যুবকের মৃত্যু ঘিরে উত্তেজনা আরও বাড়তে থাকে।

    হিংসার ঘটনাকে কেন্দ্র করে অশান্ত মুম্বই, বন্ধ স্কুল,কলেজ, শান্তির আবেদন মুখ্যমন্ত্রীর

    মুম্বইজুড়ে বিক্ষোভের জেরে পরিস্থিতি ক্রমেই হাতের বাইরে যেতে থাকে প্রশাসনের । মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবীশ জানান, পুনের ঘটনার জন্য সুপ্রিমকোর্টকে অমনুরোধ জানানো হবে বিচারবিভাগীয় তদন্তের জন্য়। এছাডা়ও একটি সিআইডি তদন্ত চালানো হবে। মৃতের পরিবারকে ১ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণের ঘোষণাও করেন মুখ্যমন্ত্রী। পাশাপাশি সকলকে শান্তি বজায় রাখারও আবেদন করেন মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবীশ।

    এর আগে, পুনেতে ভিমা কোরেগাঁওয়ের যুদ্ধের ২০০ তম বার্ষিকী উপলক্ষ্য়ে এক অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে এই গোটা ঘটনার সূত্রপাত। সেই অনুষ্ঠানে দুই ভিন্ন সম্প্রদায়ের হিংসার ঘটনায় মারা যান এক ২৮ বছরের যুবক, আহত হন ৪০ জন। আর তার জেরে মঙ্গলবার মুম্বইয়ের রাস্তা রোকো থেকে রেল রোকোর ডাক দেওয়া হয়। দিন যত এগোতে থাকে বাণিজ্য নগরী মুম্বই জুড়ে উত্তেজনার পারদ ততই চড়তে থাকে। বন্ধ হতে শুরু করে বিভিন্ন স্কুল, কলেজ। ঘাটকোপার , অমর মহল সহ একাধিক জায়গায় বাসে পাথর ছোঁড়া হয়। মহারাষ্ট্রের বিভিন্ন হাইওয়েতে রুখে দেওয়া হয় বাসচলাচল পরিষেবা।

    এদিকে, পরিস্থিতি সামলাতে মুম্বই পুলিশের তরফে একটি টুইট বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, কোনও গুজবে য়েন কেউ কান না দেন। এছাড়াও শহরবাসীকে অযথা আতঙ্কগ্রস্ত হতে বারণ করা হয়। সোশ্যাল মিডিয়াতেও এই উত্তেজা সম্পর্কে কিছু পোস্ট করার বিষয়ে সতর্ক থাকতে বলা হয় সকল নগরবাসীকে।

    English summary
    The impact of the clashes that broke out in Pune on the 200th anniversary of the Bhima Koregaon Battle is now being felt in Mumbai as well.

    Oneindia - এর ব্রেকিং নিউজের জন্য
    সারাদিন ব্যাপী চটজলদি নিউজ আপডেট পান.

    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Oneindia sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Oneindia website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more