• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

বিশ্বকাপের আজব কাণ্ড! হনুমানের ল্যাজের মতো বজ্র বেল নড়াতে পারছেন না ফাস্ট বোলাররাও

বিশ্বকাপের দ্বিতীয় ম্যাচেও দুর্দান্ত জয় পেল বিরাট কোহলির ভারত। রবিবার, ৯ জুন, ওভাল মাঠে লড়াকু অস্ট্রেলিয়াকে ৩৬ রানে পরাস্ত করে পয়েন্ট টেবিলে তৃতীয় স্থানে উঠে এল প্রাক্তন বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। মোক্ষম সময়ে দলকে ম্যাচ-জেতানো ১১৭ রানের একটি চোখ ধাঁধানো ইনিংস উপহার দিয়ে ম্যান অফ দ্য ম্যাচ হলেন ওপেনার শিখর ধাওয়ান।

বজ্র বেল নড়াতে পারছেন না ফাস্ট বোলাররাও

তবে এই ম্যাচে ফের উঠে এল সেই উদ্বেগজনক দিকটি যা এই বিশ্বকাপে অনেককেই ভাবাচ্ছে। এবং তা হল, স্টাম্প থেকে বেলের নট নড়নচড়ন, প্রচন্ড জোরে বল আঘাত করা সত্ত্বেও। রবিবারের ম্যাচেও দেখা গিয়েছে এই কাণ্ড। জসপ্রীত বুমরার বল অস্ট্রেলিয়ান বাঁহাতি ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার টেনে নিয়ে আসেন উইকেটের উপরে কিন্তু জিং বেলগুলি পড়ে না। যদিও এদিন চেনা ওয়ার্নারকে দেখা যায়নি এবং ম্যাচের পরিপ্রেক্ষিতে তাঁর ৮৪ বলে ৫৬ শ্লথই বলতে হবে, কিন্তু তবুও বল যদি ব্যাটসম্যানের উইকেটে আছড়ে পরেও বেল নড়াতে না পারে, তাহলে তা বোলারের প্রতি অবিচার হিসেবেই ধরা হবে।

'দুর্ভাগ্যজনক', বলছেন অস্ট্রেলীয় অধিনায়ক ফিঞ্চ

বিষয়টি নিয়ে নিজেদের অসন্তোষের কথা ভারত অধিনায়ক কোহলি এবং অস্ট্রেলীয় অধিনায়ক আরন ফিঞ্চও প্রকাশ করেন ম্যাচের পরে। কোহলি বলেন তিনি বুঝতে পারছেন না কেন এমন হচ্ছে এবং এও বলেন যে একজন ব্যাটসম্যান হিসেবেও তিনি এমন ঘটনা ঘটতে দেখে অবাকই হবেন। ফিঞ্চ অন্যদিকে ব্যাপারটিকে "দুর্ভাগ্যজনক" আখ্যা দিয়ে বলেন আশা করব বিশ্বকাপের সেমি-ফাইনাল বা ফাইনালে এমন ঘটনা ঘটবে না।

এই নিয়ে পাঁচবার ঘটল এমন ঘটনা, বেলগুলি নড়ছে না কেন?

রবিবারই এমন ঘটনা এই বিশ্বকাপে প্রথম ঘটল, তা নয়। এই নিয়ে পাঁচ-পাঁচবার এমন অচলায়তন বেলের ঘটনা প্রকাশ্যে এল। এমনকি ২০১৫-র বিশ্বকাপ এবং এবছরের আইপিএল-এও এই ঘটনা ঘটেছে।

কী বলছে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল?

তাদের মতে, জিং বেল-এর ওজন নিয়ে কোনও সমস্যা নেই। এই বেলগুলির মধ্যে এল লাগানো থাকলেও তাদের ওজন সাধারণ বেল এবং জোরালো হাওয়ার দিনে যেই বেল ব্যবহার হয়, তার মাঝামাঝি, ক্রিকিনফোর একটি প্রতিবেদনে জানা গিয়েছে।

কিন্তু আইসিসি-র এই ব্যাখ্যায় সন্তুষ্ট হচ্ছেন না অনেকেই। বলা হচ্ছে, যদি ফাস্ট বোলারদের ঘন্টাপ্রতি নব্বই মাইল বেগে করা বলের ধাক্কাতেও বেল না নড়ে নিজের জায়গা থেকে, তাহলে ব্যাপারটা মোটেই স্বাভাবিক নয় এবং এর কারণ খতিয়ে দেখা প্রয়োজন।

ওয়ার্নার ভারতের বিরুদ্ধে ভাগ্যবান হলে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে খেলায় অস্ট্রেলিয়ার বাঁহাতি পেসার মিচেল স্টার্ক-এর বল ক্রিস গেল-এর স্টাম্পে আঘাত করলেও বেল পড়েনি।

স্টোকস, ট্রেন্টরাও ফেলতে পারেননি বেল

বুমরা এবং স্টার্ক ছাড়াও আর যে বোলাররা এবারের বিশ্বকাপে বেলকে হনুমানের ল্যাজের মতো এক চুল নড়াতে পারেননি তাঁরা হলেন ইংল্যান্ডের স্পিনার আদিল রশিদ (দক্ষিণ আফ্রিকার কুইন্টন ডি কক ব্যাট করছিলেন); নিউজিল্যান্ডের বাঁহাতি পেসার ট্রেন্ট বোল্ট (ব্যাটসম্যান ছিলেন শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক দিমুথ করুণারত্নে) এবং ইংল্যান্ডের মিডিয়াম পেসার বেন স্টোকস (ব্যাট করছিলেন বাংলাদেশের মহম্মদ সৈফুদ্দিন)।

ব্যাপারটা কী হচ্ছে বলুন তো!

English summary
World Cup 2019 controversy: Why the bails aren’t coming off even when fast bowlers are hitting stumps
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X