Oneindia থেকে ব্রেকিং নিউজের আপডেট পেতে

সারাদিন ধরে চটজলটি নিউজ আপডেট পান

You can manage them any time in browser settings

(ছবি) TRAPPIST-1 সৌরজগত নিয়ে অজানা তথ্য জেনে নিন একনজরে

  • Posted By:
Subscribe to Oneindia News

মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা বুধবার ভারতীয় সময় রাতে মহাকাশ গবেষণা নিয়ে বড় ঘোষণা করেছে। আমাদের সৌরজগতের বাইরে নতুন সৌরজগতের কথা জানিয়েছেন নাসার বিজ্ঞানীরা।[নতুন সৌরজগতের সন্ধান , রয়েছে পৃথিবীর মতো ৭টি গ্রহ]

এই সৌরজগতে ৭টি পৃথিবীর আকৃতির গ্রহের সন্ধান পাওয়া গিয়েছে। পৃথিবী থেকে ৩৯ আলোকবর্ষ দূরে এই সৌরজগতটি মহাকাশে অবস্থান করছে। সৌরজগতের মূল নক্ষত্রটির নাম দেওয়া হয়েছে TRAPPIST-1। এর মধ্যেই অনেকগুলি গ্রহ এমন রয়েছে যা বসবাসযোগ্য হতে পারে। মনে করা হচ্ছে তার মধ্যে জলও থাকতে পারে। এই সৌরজগত সম্পর্কে এমন কিছু তথ্য যা অবশ্যই আপনার জেনে রাখা উচিত।[কোন সম্ভাবনা দেখে TRAPPIST-1 সৌরজগত নিয়ে এত উৎসাহিত বিজ্ঞানীরা ]

পৃথিবী সদৃশ গ্রহ

পৃথিবী সদৃশ গ্রহ

এই প্রথম মহাকাশ গবেষকরা একটি সৌরজগতের খোঁজ পেয়েছেন যা একটি নক্ষত্রকে কেন্দ্র করে ঘুরছে। এবং যে সাতটি গ্রহ পাওয়া গিয়েছে প্রত্যেকটিই প্রায় পৃথিবীর আকারের। মহাজাগতিক বিশ্বে প্রাণের সন্ধান পাওয়ার জন্য এই নক্ষত্রগুলিই সেরা জায়গা হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। যদি যেখানে এলিয়েনদের খোঁজ নাও পাওয়া যায়, তবুও সৌরজগতের গবেষণায় দিগন্ত খুলে দিতে পারে এই সৌরজগত।

৩৯ আলোকবর্ষ দূরত্ব

৩৯ আলোকবর্ষ দূরত্ব

যদি এক আলোকবর্ষ গতিতেও পৃথিবী থেকে এই নতুন সৌরজগতের দিকে ধাবমান হওয়া যায় তাহলেও সেখানে পৌঁছতে ৩৯ আলোকবর্ষের কিছুটা বেশি সময় লাগবে। তবে মহাকাশে যত এমন ধরনের জগতের সন্ধান পাওয়া গিয়েছে তার মধ্যে TRAPPIST-1 অনেক কাছে অবস্থান করছে তাতে সন্দেহ নেই। অর্থাৎ ধরাছোঁয়ার মধ্যে এটিই রয়েছে।

TRAPPIST-1 এর বিবরণ

TRAPPIST-1 এর বিবরণ

TRAPPIST-1 একটি শীতল বামন নক্ষত্র। আমাদের সূর্যের চেয়ে আকারে ১০ গুণ ছোট ও তাপমাত্রা সূর্যের চেয়ে এই TRAPPIST-1 নক্ষত্রে ২.৫ গুণ কম। এই ধরনের সৌরজগতে প্রাণের অস্বিত্ব নিয়ে আগামিদিনে গবেষণা করবেন মহাকাশ বিজ্ঞানীরা।

গ্রহগুলির অবস্থান বেশ কাছাকাছি

গ্রহগুলির অবস্থান বেশ কাছাকাছি

TRAPPIST-1 সৌরজগতে গ্রহগুলি খুব কাছাকাছি অবস্থান করে ঘুরে চলেছে। সূর্য ও বুধের মধ্যে যে ন্যূনতম দূরত্ব, সেই দূরত্বের মধ্যে পুরো TRAPPIST-1 সৌরজগতের অবস্থান। আর সেজন্যই নক্ষত্রের তাপ তেমন না হলেও কাছাকাছি থাকায় কম উত্তাপের কারণে গ্রহগুলিতে পরিমাণমতো তাপ এসে পৌঁছয়।

তবে নক্ষত্রের এত কাছাকাছি থাকার বিপদও রয়েছে। যেমন নক্ষত্রের আলো ও রেডিয়েশন গ্রহগুলির আবহাওয়ার ক্ষতি করতে পারে (যদি গ্রহগুলিতে আবহাওয়া আদৌও থাকে)। এছাড়া সেখানে প্রাণ থাকলে তারও ক্ষতি হতে পারে। তবে বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, TRAPPIST-1 যেহেতু অত্যন্ত শান্ত একটি নক্ষত্র তাই তার রেডিয়েশন ও আলো সেভাবে ক্ষতিকর হবে না, যতটা না আমাদের সূর্য।

এই গ্রহগুলিতে দিন-রাত নেই

এই গ্রহগুলিতে দিন-রাত নেই

যেহেতু গ্রহগুলি নক্ষত্রের খুব কাছাকাছি অবস্থান করছে, তাই তার প্রদক্ষিণ করার ধরণ আমাদের সৌরজগতের চেয়ে আলাদা। গ্রহগুলি নিজে ঘূর্ণির মতো না ঘুরে স্থির থেকে শুধুমাত্র সৌরজগতের কক্ষকথে প্রদক্ষিণ করে। এর ফলে নক্ষত্রটির তাপে একটি দিক সবসময়ই উষ্ণ থাকে, অন্যদিক অপেক্ষাকৃত শীতল। অর্থাৎ একটিদিক সবসময় উষ্ণ ও আলোকিত থাকে ও অন্যদিক শীতল ও আলোকহীন।

গ্রহগুলিকে নিয়ে অনিশ্চয়তা

গ্রহগুলিকে নিয়ে অনিশ্চয়তা

মহাকাশ গবেষকরা গ্রহগুলিকে খুঁজে নিজের চোখে দেখতে পাননি। 'ট্রানজিশন মেথড' ব্যবহার করে এর খোঁজ লাগানো হয়েছে। এছাড়া হাবল স্পেস টেলিস্কোপ ও জেমস ওয়েব স্পেস টেলিস্কোপ ব্যবহার করে এদের সন্ধান করা হয়েছে। যেহেতু গ্রহগুলি একে অপরের একেবারে কাছাকাছি অবস্থান করছে, তাই তার অবস্থান ব্যাখ্যা করা বেশ কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে মনে করা হচ্ছে এর মধ্যে বেশ কয়েকটি গ্রহ বসবাসযোগ্য। তবে তা আদৌও কতটা গ্রহণযোগ্য তা নিয়ে গবেষণার সুযোগ রয়েছে।

English summary
You may have heard that astronomers made a big announcement today about a "discovery outside our solar system. Here's what you should know about the newfound TRAPPIST-1 solar system.
Please Wait while comments are loading...