Tap to Read ➤

নিশ্চিন্তে ঘুরে আসুন আন্দামান

আন্দামান ঘুরে আসুন খুব সহজেই
বঙ্গোপসাগরের উত্তর দক্ষিণ দিক বরাবর ৫৭২টি দ্বীপ নিয়ে বিস্তৃত আন্দামান নিকোবর আইল্যান্ড
বর্তমান সময়ে নীলপানির দ্বীপ হিসাবে খ্যাত এই দ্বীপপুঞ্জ
তবে, ইতিহাসের পাতায় বর্ণিত আন্দামান কিন্তু ব্রিটিশদের কাছে কালাপানি নামে পরিচিত ছিল
আন্দামানের রাজধানী পোর্ট ব্লেয়ার থেকে ৪১ কিমি দূরে হেভলক আইল্যান্ড। স্কুবা ড্রাইভিং,স্ফটিক স্বচ্ছ নীল জলের তরঙ্গ আপনার নজর কাড়বে
হেভলক আইল্যান্ডের সব থেকে জনপ্রীয় বিচ হল রাধানগর বিচ। অর্ধচন্দ্রাকৃতি বিচের রুপোলি বালুচর রোদে ঝকঝক করতে থাকে। তীরে ঘন নারকেলের বন দূরে সমুদ্র নেমে গেছে বেশ অনেকটা
রস একটি ছোট দ্বীপ। প্রাকৃতিক সৌন্দর্য এবং উন্নত জীবনযাপনের ব্যবস্থাপনার কারণে এই দ্বীপ প্যারিস অফ ইস্ট নামে পরিচিত ছিল। ব্রিটিশ অফিসারদের বিলাসী জীবনযাত্রার পরিচয় পাওয়া যায়
নীল দ্বীপ বিখ্যাত তার জীবন্ত প্রবালের জন্য। এখানকার সৈকতে ছড়িয়ে আছে অজস্র সাদা প্রবাল। ইতিউতি ছড়ানো রয়েছে হরেক রংয়ের ঝিনুক, শাঁখ
মহাত্মা গান্ধী মেরিন ন্যাশনাল পার্কটি দক্ষিণ আন্দামানে অবস্থিত। এখানে ম্য়ানগ্রোভ খাঁড়ির সৌন্দর্য আপনার নজর আটকে রাখবে
ব্যারেন দ্বীপ আন্দামান সাগরে অবস্থিত একটি দ্বীপ। এটি দক্ষিণ এশিয়ার একমাত্র সক্রিয় আগ্নেয়গিরি। সুমাত্রা থেকে মায়ানমার পর্যন্ত এই আগ্নেয়গিরি বিস্তৃত
দিগলিপুরের মাটির আগ্নেয়গিরি বা মাড ভলক্যানো সম্পর্কে খুব কম মানুষ জানে। ভূগর্ভ থেকে গরম কাঁদা এবং গ্যাস নিষ্কাশণের কারণে গড়ে উঠেছে
সাগরের জল কালো হোক না হোক, নৃশংস অত্যাচারের ক্ষত কালোর থেকেও গভীর। স্বাধীনতা যুদ্ধের বহু আগে থেকেই আন্দামান ছিল ব্রিটিশদের তৈরি কালাপানি। যা এখন সেলুলার জেল নামে পরিচিত
নীল জলরাশিতে স্কুটার চালানো এবং জেট স্কিইং এর জন্য সুপরিচিত কর্বিনস কোভ। পাশাপাশি রয়েছে দুর্দান্ত অ্যাডভেঞ্চারের সুযোগ সুবিধা