• search

ভেসে গিয়েছে রেলব্রিজ, ট্রেন যোগাযোগ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ উত্তর-দক্ষিণের

Subscribe to Oneindia News
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS
For Daily Alerts

    প্রবল জলের তোড়ে ভেসে গিয়েছে বিহারের কিষাণগঞ্জের সুধানি ব্রিজ। তারই জেরে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হল নিউজলপাইগুড়ি-কলকাতা রেল যোগাযোগ। এদিন ২৮টি ট্রেন বাতিলের কথা ঘোষণা করেছে পুর্ব রেল। আপাতত উত্তরবঙ্গ ও দক্ষিণবঙ্গের মধ্যে রেল যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন। বিচ্ছিন্ন কলকাতা থেকে উত্তর-পূর্ব ভারতে যাওয়ার রেল যোগাযোগও।

    যতদিন না ওই ব্রিজ মেরামত করে ট্রেন চলাচলের উপযোগী করে তোলা হচ্ছে, ততদিন রেলপথে নিউ জলাইগুড়ি যাওয়া যাবে না। যাওয়া যাবে না উত্তর-পূর্ব ভারতেও। কলকাতা থেকে আপাতত কোনও ট্রেনই উত্তরবঙ্গের উদ্দেশ্যে রওনা দেবে না। তবে কিষাণগঞ্জ স্টেশনের জল-ছবির উন্নতি হওয়ায় গুয়াহাটি থেকে ডালখোলা স্পেশাল ট্রেন চালানো হবে বুধবার।

    ভেসে গিয়েছে রেলব্রিজ

    এদিন পূর্ব রেলের তরফে ঘোষণা করা হয়েছে দার্জিলিং মেল আপাতত বন্ধ রাখা হচ্ছে। সেইসঙ্গে পদাতিক, উত্তরকন্যা, কাঞ্চনকন্যা, কাঞ্চনজঙ্ঘা, কামরূপ এক্সপ্রেস, হাওড়া-নিউজলপাইগুড়ি শতাব্দী এক্সপ্রেস-সহ ২৮টি ট্রেন বাতিল করা হয়েছে। কবে থেকে এই উত্তরবঙ্গে ট্রেনগুলি ফের চালু হবে তা জানাতে পারছেন না রেলকর্তারা।

    শুধু সুধানি সেতুই নয়, উত্তর দিনাজপুরে কুমেদপুর সেতু, কাপাসিয়া সেতুও ভেঙে পড়েছে। ফলে উত্তরবঙ্গে বিশেষ করে নিউ জলপাইগুড়ি ট্রেন চালানোর সমস্ত পথই বন্ধ। দক্ষিণবঙ্গ থেকে উত্তরবঙ্গে ট্রেন ঢোকার মুখে বিহারের কিষাষগঞ্জের সুধানি সেতুই হল একমাত্র মাধ্যম। সেটা ভেঙে পড়ায় অন্য কোনও বিকল্প পথ নেই নিউ জলপাইগুড়ি পৌঁছনোর।

    তাই ওই সেতু মেরামত না হওয়া পর্যন্ত গতি নেই। মেরামত হওয়ার পর পরীক্ষামূলক ট্রেন চালানো হবে। তারপর স্বাভাবিক হতে শুরু করবে ট্রেন চলাচল। সব মিলিয়ে এটি একটি দীর্ঘমেয়াদি প্রক্রিয়া। ফলে এখন দীর্ঘদিন উত্তরবঙ্গে বিশেষ করে নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশনে ট্রেন পথে যাওয়ার কোনও উপায় রইল না।

    English summary
    Train communication indefinitely closed between north and south Bengal. Because Rail-bridge of Kisanganj is broke down.

    Oneindia - এর ব্রেকিং নিউজের জন্য
    সারাদিন ব্যাপী চটজলদি নিউজ আপডেট পান.

    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Oneindia sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Oneindia website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more