গণনার ফল 
মধ্যপ্রদেশ - 230
PartyLW
BJP1110
CONG1080
BSP40
OTH70
রাজস্থান - 199
PartyLW
CONG930
BJP841
IND120
OTH90
ছত্তিশগঢ় - 90
PartyLW
CONG680
BJP170
BSP+50
OTH00
তেলেঙ্গানা - 119
PartyLW
TRS7710
TDP, CONG+212
AIMIM41
OTH40
মিজোরম - 40
PartyLW
MNF520
IND08
CONG15
OTH01
  • search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

    মুকুল এবার অস্ত্র পেয়েছেন যুদ্ধের! লোকসভার আগেই মমতাকে মাত দিতে ছুটলেন দিল্লি

    সম্প্রতি দুটি অডিও ক্লিপ সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। সেই অডিও ক্লিপে শোনা গিয়েছে মুকুল রায় ও কৈলাশ বিজয়বর্গীয়র ফোনালাপ। এবং সেই অডিও ক্লিপ থেকে উঠে এসেছে নানা বিস্ফোরক তথ্য, তৃণমূলকে শেষ করার পরিকল্পনা। অডিও ক্লিপের এই ফাঁস হওয়াকেই এবার ইস্যু করতে চাইছেন মুকুল রায়। তিনি ফের অভিযোগ করছেন রাজ্য সরকার ফোনে আড়ি পাতে।

    দিল্লি হাইকোর্টের দ্বারস্থ মুকুল রায়

    দিল্লি হাইকোর্টের দ্বারস্থ মুকুল রায়

    সম্প্রতি দুই অডিও প্রকাশ হয়ে যাওয়ার পর দিল্লি হাইকোর্টের দ্বারস্থ হচ্ছেন মুকুল রায়। তিনি এই মর্মে অভিযোগ দায়ের করতে চলেছেন যে, তাঁর ফোনে আড়ি পাতা হচ্ছে। তাঁর তোপ রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে। রাজ্য সরকার প্রশাসনকে কাজে লাগিয়ে এই কাজ করছে বলে জানান তিনি।

    অভিযোগ অস্বীকার তৃণমূলের

    অভিযোগ অস্বীকার তৃণমূলের

    তৃণমূল সরকার ফের এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে। রাজ্য সরকারের তরফে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, এমন কোনও কাজ রাজ্য সরকার করে না। এমন ধরনের কোনও কাজের সঙ্গে যুক্ত নয়। এর আগে হলফনামা দিয়েও রাজ্য জানিয়েছিল, ফোনে আড়িপাতার অভিযোগ সর্বৈব মিথ্যা।

    মুকুলের মামলার সিদ্ধান্তে অডিও-য় সিলমোহর

    মুকুলের মামলার সিদ্ধান্তে অডিও-য় সিলমোহর

    মুকুল রায় অডিও ক্লিপিংস নিয়ে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে ফের আইনি যুদ্ধে নামতে চলেছে। রাজ্যের বিরুদ্ধে ফোনে আড়িপাতার অভিযোগ করছে। এই অভিযোগ করে মুকুল রায় কার্যত অডিও-য় তারই গলা বলে সিলমোহর দিলেন। এবং এই কথোপকোথনকেও স্বীকৃতি দিলেন।

    সম্প্রতি ভাইরাল অডিও-১

    প্রথম যে ফোনালাপের অডিও প্রকাশ পায়, তাতে আইপিএস অফিসারদের ভয় দেখানোর কথা বলা হয়েছে। সেইসঙ্গে মতুয়া ভোটকে বিজেপির দিকে আনতে তাঁদের কী প্ল্যান তা নিয়েও আলোচনা রয়েছে। এই অডিও ক্লিপিংস ওয়াই ইন্ডিয়া বেঙ্গলির পরিক্ষিত নয়।

    [আরও পড়ুন:সাড়ে ৩ লক্ষ কোটি ছাড় দিয়ে কাদের পাহারাদার হলেন মোদী! নির্বাচনী জনসভায় প্রশ্ন রাহুলের]

    অডিও- ২ তৃণমূলকে ‘শেষ’ করার প্ল্যান

    এই অডিও-কে তৃণমূলকে শেষ করার একটি ভিডিও নিয়ে ফোনালাপ রয়েছে। যেখানে মুকুল রায় ও কৈলাশ বিজয়বর্গীয়র কণ্ঠে এক ফোনালাপে উঠে এসেছে দুকোটি টাকার ভিডিও কিনে তৃণমূলকে শেষ করার প্ল্যান।

    [আরও পড়ুন: মমতাকে এবার স্ট্রেট ব্যাটে মুকুল! জানালেন তৃণমূলের কতজন তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন ]

    ফোনে আড়ি পাতা নিয়ে আগেও আদালতে মামলা

    ফোনে আড়ি পাতা নিয়ে আগেও আদালতে মামলা

    ফোনে আড়িপাতা নিয়ে আগেও আদালতে গিয়েছিলেন মুকুল রায়। দিল্লি হাইকোর্টে মমতার সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছিলেন তিনি। মুকুল রায়ের অভিযোগ, তাঁর ফোন পরিকল্পিতভাবে আড়িপাতা হচ্ছে। রাজ্যে সরকারের তরফেই এই আড়িপাতার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

    খারিজ হয়ে যায় মুকুলের আড়িপাতা মামলা বিচারপতি বিভু বাখরুর বেঞ্চে এই মামলাটি উঠেছিল। ২০১৭ সালের ২০ নভেম্বর আড়িপাতা মামলা খারিজ হয়ে যায়। মুকুল রায় কোনও প্রমাণ দাখিল করতে পারেননি ওই মামলার সমর্থনে। রাজ্য সরকার হলফনামা দিয়ে জানায় এমন কোনও কাজে রাজ্যের সরকার জড়িত নয়।

    এবার হাতে প্রমাণ নিয়ে আদালতে যে মামলা দিল্লির হাইকোর্ট খারিজ করে দিয়েছিল, সেই মামলা হাতে প্রমাণ নিয়ে ফের শুরু করতে চলেছেন মুকুল রায়। অডিও ক্লিপিংস নিয়ে তিনি প্রমাণ করে দিতে চান, রাজ্য সরকার ফোনে আড়ি পাতে। তাঁর বিজেপিতে যোগদানের জল্পনা শুরু হতেই রাজ্য সরকার এই গর্হিত কাজটি করেছিল। এখনও করে চলেছে।

    [আরও পড়ুন:রাহুল সোনিয়ার প্রচারে উত্তরপ্রদেশের ‘মোদী', ২০১৪-র পর ‘পাশা' উল্টে গেল ২০১৯-এ]

    English summary
    Mukul Roy again files suit in Delhi High Court against Mamata Banerjee government. He gets evidence in phone tap issue,
    For Daily Alerts

    Oneindia - এর ব্রেকিং নিউজের জন্য
    সারাদিন ব্যাপী চটজলদি নিউজ আপডেট পান.

    Notification Settings X
    Time Settings
    Done
    Clear Notification X
    Do you want to clear all the notifications from your inbox?
    Settings X
    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Oneindia sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Oneindia website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more