• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

২০২১ এর লক্ষ্যে মমতা কীভাবে তিলে তিলে 'নয়া' তৃণমূল কংগ্রেসের বুনোট বাঁধছেন! কিছু নজরকাড়া পদক্ষেপ

  • |

লোকসভা ভোট শেষের পর ফলাফলের দিন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যেপাধ্যায় বলেছিলেন দলের জব্য বেশি সময় দেবেন। লোকসভা ভোট যেখানে শেষ হয়েছে , সেখান থেকে শুরু করে ২০২০ সালের জুলাই মাস পর্যন্ত সময় দেখলে, তিলে তিলে দিদি কীভাবে নিজের দলকে নতুন বুনোটে বাঁধতে শুরু করেছেন, তা নজর কাড়ছে বহু রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞের। একনজরে কিছু তথ্য।

পাখির চোখ ২০২১

পাখির চোখ ২০২১

বারকোড আমন্ত্রণের মাধ্যমে এখন তৃণমূল নেতাদের দলীয় বৈঠকে আহ্বান করে দল। যা বহুদিন আগেও ভাবতে পারেনি তৃণমূল। সম্ভবত এভাবেই নয়া তৃণমূলের পরিচিতি মমতা এনেছেন।প্রশান্ত কিশোরকে পাশে পেয়ে বহুভাবে দলের রূপ পাল্টাতে শুরু করেছেন মমতা আর তারমধ্যে অন্যতম হল, দুর্নীতি দমন। লোকসভা ভোটর পর থেকেই লোকচক্ষুর সামেন রাখঢাক না করেই পার্টির দুর্নীতিগ্রস্ত নেতাদের তোপ দেগেছেন নেত্রী। কাটমানি থেকে আম্ফান দুর্নীতি সমস্ত ক্ষেত্রেই শক্তহাতে দুর্নীতি সামলানোর চেষ্টা করেছেন তিনি। আর ২০২০ সালের মাঝামাঝি সময়ে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অগ্নিকন্যার এই পদক্ষেপ ২০২১ এ দলের ভবমূর্তি সুন্দর করবে।

 হাতজোড় করে বার্তা..

হাতজোড় করে বার্তা..

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সকলে রুদ্ররূপে দেখেই অভ্যস্ত ।কিন্তু কলকাতায় যেবার মোদী এলেন, সেবার পার্টির বহুস্তর থেকেই খোদ কলকাতার বুকে 'গো ব্যাক দিদি, গোব্যাক মোদী' স্লোগান শুনেছেন তিনি। বিক্ষোভের মুখে মেজাজ হারাননি মমতা। যে ভুল তাঁকে আগে বহুবার করতে দেখা গিয়েছিল। দলের সঙ্গে সঙ্গে নিজের পুরনো চেনা ঘরানা পাল্টে হাতজোড় করে দিদি বলেছিলেন, এই বৈঠক তাঁর সাংবিধানিক কর্তব্য। এই পাল্টে যাওয়া মমতাকে বহুদিন বাদে রাজনৈতিক অলিন্দে খানিকটা 'অন্যরকম' লেগেছিল বহু বিশ্লেষকের।

 দিদিকে বলো

দিদিকে বলো

'দিদিকে বলো' পদক্ষেপ তৃণমূলের অন্যতম মাস্টারস্ট্রোক বলে মনে করা হচ্ছে। পাড়া থেকে জেলাস্তর সমস্ত ক্ষেত্রে দুর্নীতির তথ্য দলীয় হাইকমান্ডের কাছে পৌঁছচ্ছে। যা দলের বিভিন্ন তলায় নেত্রীর অবস্থান সম্পর্কে সাফ বার্তা দিয়েছে। ফলে ধীরে ধীরে পার্টির ভাবমূর্তি ভোটারদের কাছে শুধরে নিতে পারছেন মমতা।

 ভোট শেয়ার ও একটি পরিসংখ্যান

ভোট শেয়ার ও একটি পরিসংখ্যান

এবার কিছু পরিসংখ্যানে আসা যাক। ২০১৬ এর তুলনায় ২০১৯ সালে প্রায় ৩০ শতাংশ বেড়েছে বিজেপির ভোট শেয়ার। এই ৩০ শতাংশ হিন্দু ভোট হিসাবে পরিচিতি পেয়েছ। অন্যদিকে, ২০১১ থেকে ২০১৬ সালে কংগ্রেসের ভোট শেয়ার ১২.৩ শতাংশ বাড়ে। এরপর ২০১৯ এর লোকসবায় কংগ্রেস সেই ভোটকে কাজে লাগাতে পারেনি।

 বাম কংগ্রেস ভোট ও পরিসংখ্য়ান

বাম কংগ্রেস ভোট ও পরিসংখ্য়ান

বাম ও কংগ্রেসের যৌথ ভোটব্যাঙ্কের বড় অংশ বিজেপি দখল করেছে। ফলে তৃণূলকে ছাপিয়ে যেতে সমস্যা হয়নি। অন্যদিকে, ২০১৪ এর থেকে ২০১৯ এ তৃণমূলের ভোট শেয়ার বেড়েছে। তবে বাম কংগ্রেস জোটের ভোট বিজেপি কেটে নেওয়ায় অ্যাডভান্টেজ মেলেনি। এই সমস্ত পরিসংখ্যানের দিকও মমতা খেয়াল রেখে ঘুঁটি সাজাচ্ছেন বলে খবর।

English summary
How Mamata making policy to make TMC corruption free before 2021 Vote
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X