• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

গেরুয়ার দাপট মুছে লাল ঝান্ডায় ছেয়ে দিতে ‘কাজে’ নেমেছে সিপিএম, বাংলায় কড়া টক্কর একুশে

ন-বছর আগে সিপিএম তথা বামফ্রন্টের যাবতীয় জারিজুরি শেষ করে রাজ্যে ক্ষমতায় এসেছিল তৃণমূল কংগ্রেস। তারপর ২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূলের ফের ক্ষমতায় ফেরার পর থেকেই সিপিএমের পদস্খলন শুরু। সিপিএমের শূন্যস্থান ভরাট করতে এই সময়েই দ্রুত উত্থান হয় বিজেপির। তারপর বামেদের দুর্গগুলিতে গেরুয়ার জয়জয়কার হয়েছে।

গেরুয়ার দাপট মুছে ফেলতে

গেরুয়ার দাপট মুছে ফেলতে

ফের সেই গেরুয়ার দাপট মুছে ফেলে লাল ঝান্ডায় ছেয়ে দিতে একেবারে শূন্য থেকে শুরু করেছে সিপিএম। ছাত্র-যুবদের সামনে রেথে তাঁরা তৃণমূল ও বিজেপিকে চ্যালেঞ্জ জানাতে আসরে নেমে পড়েছে। করোনার আবহে আম্ফান বিপর্যয়ের পর তাঁরা মানুষের সেবাকে ব্রত করেছেন জনসংযোগ বাড়ানোর জন্য। প্রচারে না থেকে তাঁরা কর্তব্যকেই গুরুত্ব দিয়েছেন।

সিপিএমের ভোটই যে বিজেপিতে

সিপিএমের ভোটই যে বিজেপিতে

সূত্রের খবর, বামেরা সবথেকে বেশি উত্তরবঙ্গকে লক্ষ্য করছে। এই উত্তরবঙ্গ একসময় তাদের দুর্গ ছিল। তবে ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের পর তা বিজেপিকে অপ্রতিরোধ্য করে তুলেছে। গোটা উত্তরবঙ্গে বিজেপির গেরুয়া পতাকা উড়তে পতপত করে। উত্তরবঙ্গের মানুষ ভোট দিয়েছে বিজেপিকে। সিপিএমের ভোটই যে বিজেপিতে পরিবর্তিত হয়েছে তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

সিপিএম এবার উলটপুরান ঘটাতে চায়

সিপিএম এবার উলটপুরান ঘটাতে চায়

বিজেপিকে এই রসদ জুগিয়েছে রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘ বা আরএসএস। সিপিএমেদর দাবি, আরএসএস উত্তরবঙ্গে সক্রিয় বেশি, তাই উত্তরবঙ্গেই বেশি সাফল্য বিজেপির। জঙ্গলমহলেও তাই। রাজ্যের প্রধান বিরোধী জায়গা থেকে বামদের পতনের ফলেই বিজেপির উত্থান হয়েছিল। সিপিএম এবার উলটপুরান ঘটাতে চায়।

সিপিএম মানুষের পাশ থেকেছে

সিপিএম মানুষের পাশ থেকেছে

এই পরিস্থিতিতে সিপিএম এবং বামফ্রন্টের অন্যান্য শরিকরা রেশন ও ত্রাণের অপব্যবহারের বিরুদ্ধে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে জনরোষকে পুঁজি করার চেষ্টা করছে। বিজেপির জনবিমুখ ভাবমূর্তিকেও তাঁরা নিশানা করে এগোচ্ছে। তৃণমূল ও বিজেপি যখন প্রচারমুখী হয়ে গিয়েছে, সিপিএম তথা বামেরা তখন কর্তব্যনিষ্ঠভাবে মানুষের দুরবস্থায় পাশে দাঁড়াচ্ছে।

বিজেপি কথায় আছে, সিপিএম কাজে

বিজেপি কথায় আছে, সিপিএম কাজে

সিপিএমের কথায়, "বিজেপি বাংলায় ৫ কোটি মানুষের জন্য খাবারের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। সেই কথাই সার, কোথায় খাবার বিতরণ করছে না বিজেপি। মানুষ যখন প্রকৃত সমস্যায় পড়েছে, আমরা ছাত্রছাত্রী, যুবসম্প্রদায়কে নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েছি ক্রাণ নিয়ে। আমাদেরই একটা গোষ্ঠী রান্নাঘর সামলেছে এবং মানুষকে খাবার দিয়েছে। আরএসএস এবং বিজেপি শুধু বড় বড় কথায় ব্যস্ত থেকে, আমরা মাটিতে দাঁড়ায়ে দরিদ্র ও অসহায় মানুষের সেবা করেছি। মানুষই আস বিচারক, তারাই বিচার করবেন।"

রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে ফের মুখ্যমন্ত্রীকে নিশানা সায়ন্তন বসুর

'জিরো’ থেকে শুরু করল সিপিএম, ছাত্র-যুবদের সামনে রেখে একুশের নির্বাচনে নজর

English summary
CPM gives challenge to BJP in 2021 Assembly Election in West Bengal. CPM already starts to do public relation with their duties,
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X
We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Oneindia sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Oneindia website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more