• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

এখনও রেশ কাটেনি আম্ফানের! হাটু জলে ভাসছে থানা, পশু চিকিৎসালয়

  • By অভীক
  • |

১২ দিন পেরিয়ে গেলেও এখনও রেশ কাটেনি আমফানের। তার ওপর সামনে ভরা কটাল। বেতনি নদীর নোনা জল ঢুকে ভেসে আছে উত্তর ২৪ পরগনার বসিরহাটের ন্যাজাট থানা। কাজের সময় থানার মধ্যে জল থই থই অবস্থায় বিপাকে থানার পুলিশকর্মী থেকে অন্যান্য কর্মীরা।

এখনও রেশ কাটেনি আম্ফানের! হাটু জলে ভাসছে থানা, পশু চিকিৎসালয়

পুলিশ কর্মীরা জানিয়েছেন, মানুষের দাঁড়িয়েছেন তারা। এখন তারাই অসহায়। ন্যাজাট থানায় গিয়ে দেখা গেল এমনই চিত্র। নদী বাঁধ ভেঙে ইতিমধ্যে বিভিন্ন এলাকায় জল জমে আছে। ক্ষতিগ্রস্ত সুন্দরবনের বিভিন্ন এলাকার মানুষ। সাধারণ মানুষকে নিরাপত্তা দিয়ে আশ্রয়স্থলে রাখলেও, আমফানের লীলায় জলমগ্ন ন্যাজাট থানা।

থানা লাগোয়া গ্রাম, থানার ভিতরে ও বাইরে হাঁটু সমান জল জমে আছে। এখনো ঘরের ভিতরে গুলো প্রায় হাটু সমান ছুঁইছুঁই জল। যেখানে আসামি থাকার কথা লক আপের ভিতরে ,সেখানে জমে আছে জল। থানায় যাওয়ার রাস্তায় জল থৈ থৈ চরম সমস্যায় পড়ছে থানার সাথে যুক্ত সবাই ই।

সরকারি থানাতেই যদি এই চিত্র দেখা যায় পুলিশকর্মীরা টেবিল ছেড়ে ডিউটি ছেড়ে কোথায় যাবে ? তাহলে সাধারণ মানুষ কোথায় যাবে বিচারের আশায়। প্রশ্নটা থেকে যায়।

অন্যদিকে, জলের নিচে রয়েছে স্থানীয় পশু হাসপাতাল থেকে থেকে শুরু করে একাধিক কার্যালয়। এই স্বাস্থ্য কেন্দ্রের সামনে ও ঘরের ভিতরে জল জমে আছে। আম্ফনের পর থেকে বেড়েছে সাপের উপদ্রবও। এখানকার কর্মীরা অফিস ঘর ছেড়ে আশ্রয় নিয়েছে অন্যত্র। প্রাণিসম্পদ কেন্দ্রের চিকিৎসা করাতে গবাদি পশু নিয়ে বিপাকে গ্রামবাসীরাও। একের পর এক সরকারি দপ্তরের ভিতর যদি এইভাবে জলে পরিণত হয়ে থাকে তাহলে কাজ হবে কিভাবে ?

রেশনের চাল নিয়ে বিস্ফোরক অভিযোগ অধীর চৌধুরীর

রাজস্থান থেকে মালদা ফেরার পথে শ্রমিক স্পেশ্যাল ট্রেনে মৃত্যু বাংলার পরিযায়ী শ্রমিকের

English summary
amphan fury still visible in basirhat as police station and veterinary hospital still under water
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X