• search

পুলিশ ঠুঁটো জগন্নাথ, ক্ষমতার দম্ভে ‘বিপজ্জনক’ শাসক! মমতাকে একহাত সোমনাথের

Subscribe to Oneindia News
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS
For Daily Alerts

    পুলিশকে ঠুঁটো জগন্নাথ করে রাজ্যে ভোটের নামে রক্তের উৎসব চালানো হচ্ছে বলে অভিযোগ করলেন লোকসভার প্রাক্তন স্পিকার সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়। তিনি বলেন, রাজ্যে গণতন্ত্রকে ধুলোয় মিশিয়ে নির্বাচনকে প্রহসনে পরিণত করা হচ্ছে। আর এসব করা হচ্ছে ক্ষমতা দখলের ইচ্ছা থেকেই। বিরোধী শূন্য পঞ্চায়েত গড়তে গিয়ে জঙ্গলের রাজত্ব কায়েম করতেও বাধছে না রাজ্যের।

     পুলিশ ঠুঁটো জগন্নাথ, ক্ষমতার দম্ভে ‘বিপজ্জনক’ শাসক! মমতাকে একহাত সোমনাথের

    বুধবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে সোমনাথ চট্টোপাধ্যায় বলেন, পশ্চিমবঙ্গকে জঙ্গলের দেশে পরিণত করতে পুলিশের ভূমিকা খুবই হতাশাজনক। রাজ্যে এসব কী চলছে? সাংবাদিকদের ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না। অথচ পুলিশ হেলমেট না পরা বাইক বাহিনীকে ঢুকিয়ে সন্ত্রাসে মদত দিচ্ছে। সাংবাদিকদের অপহরণ করা হচ্ছে। মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার ভূলুণ্ঠিত।

    তিনি অভিযোগ করেন, পুলিশ মানুষের জন্য কাজ করছে না। এই ঘটনা শুধু দুঃখের নয়, এটা একটা বিপজ্জনক প্রবণতা। নির্বাচন উৎসবের মতো, পশ্চিমবঙ্গের মতো রাজ্যে পুলিশকে ঠুঁটো জগন্নাথ করে নির্বাচন করা হচ্ছে। আর পুলিশও নিশ্চুপ হয়ে সেই কাজ করে চলেছে। রাজ্যে ৩৫৬ ধারা জারির মতো অবস্থা তৈরি হয়েছে।

    তাঁর কথায়, শাসক পক্ষ বলছে, বিরোধীদের প্রার্থী দেওয়ার মতো লোক নেই। আমরা উন্নয়ন করেছি। উন্নয়নের জোয়ারে সব মানুষ শাসক পক্ষে। তাহলে এত গন্ডগোল কোন। কোন মনোনয়ন দিতে বাধা দেওয়া হচ্ছে। আর যখন হিংসা-রক্তপাত-সন্ত্রাস চলছে, তখন বলছে বিরোধীরা গন্ডগোল পাকাচ্ছে। এখানেই তো প্রশ্ন ওঠা স্বাভাবিক তাহলে তোমার পুলিশ করছে কী?

    English summary
    Former speaker of Loksabha Somnath Chatterjee attacks Mamata Banerjee on panchayat issue. He says no democracy in West Bengal. He says that police is not play right role,

    Oneindia - এর ব্রেকিং নিউজের জন্য
    সারাদিন ব্যাপী চটজলদি নিউজ আপডেট পান.

    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Oneindia sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Oneindia website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more