• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

কয়লা পাচার কাণ্ডে হাইকোর্টের প্রশ্নবাণে জর্জরিত রাজ্য

  • |

কয়লা পাচার কাণ্ডে রাজ্য ও কেন্দ্রের তদন্তের এক্তিয়ার নিয়ে হাইকোর্টের প্রশ্নবাণে জর্জরিত রাজ্য। এদিন রাজ্যের উদ্দেশ্যে হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ জানতে চায়, 'রাজ্যের বক্তব্য, রাজ্যের জায়গায় তদন্ত করতে পারবে না সিবিআই। যদি কোনও রাজ্যের জায়গায় কোনও অপরাধ হয়, আর অপরাধীরা রেলের এলাকায় পালিয়ে যায়, সে ক্ষেত্রে রেলের সম্পত্তি বলে রাজ্য তদন্ত করবে না?'

কয়লা পাচার কাণ্ডে হাইকোর্টের প্রশ্নবাণে জর্জরিত রাজ্য

আদালতের আরও প্রশ্ন, 'রেলের কোনও অপরাধ রেলের এলাকার বাইরে গেলে আরপিএফ তদন্ত করতে পারবে না। তা হলে কি অপরাধীরা বাইরে ঘুড়ে বেড়াবে?'

কিন্তু আদালতের প্রশ্নের সঠিক জবাব দিতে পারেননি রাজ্যের তরফ এডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্ত। তাঁর বক্তব্য, 'আদালত যদি সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দেয় সেক্ষেত্রে সিবিআই রাজ্যে তদন্ত করতে পারে।

এদিন এই সংক্রান্ত মামলায় সব পক্ষের শুনানি শেষ করে রায়দান স্থগিত রেখেছে হাইকোর্টের বিচারপতি রাজেশ বিন্দাল ও বিচারপতি অনিরুদ্ধ রায়ের ডিভিশন বেঞ্চ। পাশাপাশি, এই মামলায় মূল অভিযুক্ত অনুপ মাজি ওরফে লালার বিরুদ্ধে সিবিআই পদক্ষেপের ওপর স্থগিতাদেশের আবেদন খারিজ করে দেয় হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ।

প্রসঙ্গত, কয়লা পাচার কাণ্ডে অনুপ মাঝির আনা মামলায় হাইকোর্টের সিঙ্গেল বেঞ্চের নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করে ডিভিশন বেঞ্চে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআইয়ের আনা মামলায় রাজ্যের বক্তব্য, 'রাজ্যের অনুমতি ছাড়া সিবিআই রাজ্যের কোনও এলাকায় তদন্ত করতে পারবে না।' সেই প্রসঙ্গ টেনেই এ দিন এই প্রশ্ন তোলে ডিভিশন বেঞ্চ।

উত্তরে রাজ্যের তরফে এডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্ত জানান, 'কী অপরাধ সংঘটিত হয়েছে সেটা অনুমান করে তদন্ত করতে হবে।' এ প্রসঙ্গে ডিভিশন বেঞ্চের মন্তব্য, 'অনুমানের উপরে ভিত্তি করে শুধু তদন্ত হয় না। অপরাধ প্রমাণ করতে বহু নথি সংগ্রহ করতে হয়। তাই বহু জায়গায় তদন্তের প্রয়োজন।'

এদিন কেন্দ্রের তরফে সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা জানান, 'যখন তদন্ত প্রাথমিক পর্যায়ে তখন একজন অভিযুক্ত কি ঠিক করে দিতে পারে কে তদন্ত করবে আর কে করবে না ? অপরাধী একে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করছেন। তিনিই ঠিক করে দিচ্ছেন কেন্দ্র তদন্ত করবে, না রাজ্য। যা তিনি করতে পারেননা।

তাঁর আরও দাবি, 'রেলের এলাকা কোনও ভাবে নির্দিষ্ট নয়। ভৌগলিক এলাকা। রাজ্যের ভৌগলিক এলাকায় রেল থাকবে এটাই স্বাভাবিক। এই মামলায় অন্য কোনও অপরাধী যদি আদালতে এসে বলে রাজ্যের উপর ভরসা নেই সিবিআই চাই, তখন কী হবে। এই অপরাধ ২০১৮ আগে থেকে চলছে। তাই জেনারেল কনসেন্ট অর্থাৎ রাজ্যের সাধারণ সম্মতির প্রয়োজন নেই বলেই তিনি দাবি করেন।

এই প্রসঙ্গে লালার আইনজীবী সিদ্ধার্থ লুথরার বক্তব্য, 'রেলের সম্পত্তি রাজ্যের জায়গায়। কে তদন্ত করবে তা নিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হলে রাজ্য তদন্ত করুক। তারা ওয়ারেন্ট পর্যন্ত জারি করতে পারে। অপরাধ হলে ধামাচাপা দেওয়া হবে বলা হচ্ছে না। তবে রাজ্য তার তদন্ত করবে। ইসিএল-র মধ্যে রেলের ট্র‍্যাক থাকলে সেটা ইসিএলের, রেলের নয়।

English summary
Kolkata High Court enquires govt of Bengal on Coal smuggling case
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X