• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

চিনা 'হাতিয়ার' টিকটক কিনতে মরিয়া ট্রাম্পের আমেরিকা! জমে উঠেছে ডিজিটাল স্পেস দখলের লড়াই

করোনা ভাইরাসের উৎস এবং ভারত-চিন সংঘর্ষের পরে, বর্তমানে চিনের ডিজিটাল অ্যাপ্লিকেশন এবং চীনের সমস্ত জিনিস ব্যান করার উদ্যোগ শুরু হয়েছে সারা বিশ্বজুড়ে। ভারতের দেখাদেখি আমেরিকা ও অস্ট্রেলিয়াও সেই পথে হেঁটেছে। এরই মাঝে চিনের মালিক থেকে টিকটককে কেনার জোর চেষ্টা চালাচ্ছেন আমেরিকার বিনিয়োগকারীরা।

ব্যান করা হয়েছিল টিকটক

ব্যান করা হয়েছিল টিকটক

ব্যান হওয়া চিনা অ্যাপ্লিকেশনগুলির মধ্যে অন্যতম ছিল শর্ট ভিডিও মেকিং অ্যাপ, টিকটক। ভারত এবং আমেরিকায় টিকটকের ব্যবহারকারীর সংখ্যা ছিল প্রচুর। ইতিমধ্যেই এই অ্যাপকে ভারতে ব্যান করা হয়েছে এবং শোনা যাচ্ছে আমেরিকাও শীঘ্রই এই অ্যাপকে ব্যান করবে। আর এই কারণেই টিকটকের কোম্পানি বাইট ডান্স নাকি চিন থেকে নিজেদের সমস্ত সম্পর্ক ছিন্ন করে আমেরিকায় চলে আসার প্রস্তুতি নিচ্ছে।

টিকটক কিনতে মরিয়া মার্কিন বিনিয়োগকারীরা

টিকটক কিনতে মরিয়া মার্কিন বিনিয়োগকারীরা

এই খবর প্রকাশ পেতেই উঠে পড়ে লেগেছে মার্কিন বিনিয়োগকারীরা। এর আগে মার্কিন প্রেসিডেন্টের অর্থনৈতিক উপদেষ্টা ল্যআরি কুডলো এমনই ইঙ্গিত দিয়ে রেখেছিলেন। কয়েকদিন আগেই লাদাখে ভারত-চিন সংঘর্ষের আবহে ভারতে চিনের ৫৯টি অ্যাপ নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছিল ভারত। তারপরেই সেই পথে হাঁটার কথা চিন্তা করতে থাকে আমেরিকাও। আর পরপর ব্যবসা হারানোর ভয়ে তাই চিনের সঙ্গে সম্পর্ক ছেদ করতে পারে টিকটক।

আমেরিকায় টিকটক বন্ধের ইঙ্গিত

আমেরিকায় টিকটক বন্ধের ইঙ্গিত

প্রসঙ্গত, আমেরিকায় টিকটক বন্ধের ইঙ্গিত দেন সেদেশের সেক্রেটারি অফ স্টেট মাইক পম্পেও। পম্পেও এই বিষয়ে জানান যে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও তাঁর প্রসাশন এই বিষয়ে চিন্তা ভাবনা করছে। ভারতের পর আমেরিকা থেকে ব্যান হলে বিশাল ধাক্কা খাবে টিকটক। তাই সংস্থার এই মালিকানা ও দেশ বদলের চিন্তা।

টিকটক ব্যানের বিষয়ে ভারতকে সমর্থ আমেরিকার

টিকটক ব্যানের বিষয়ে ভারতকে সমর্থ আমেরিকার

ভারতে চিনা অ্যাপ বন্ধ হওয়ার পর মার্কিন বিদেশসচিব মাইক পম্পেও, একটি বিবৃতিতে বলেছিলেন, চিনা কমিউনিস্ট পার্টির নজরদারি রুখতে এটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত হিসাবে কাজ করতে পারে। অ্যাপগুলিকে মুছে ফেলার এই সিদ্ধান্ত ভারতের সার্বভৌমত্বকে শক্তিশালী করে তুলবে এবং অখণ্ডতা এবং জাতীয় সুরক্ষাকে নিশ্চিত করবে।

লাদাখের উত্তেজনার আবহে ভারতের ডিজিটাল স্ট্রাইক

লাদাখের উত্তেজনার আবহে ভারতের ডিজিটাল স্ট্রাইক

লাদাখ নিয়ে ভারত-চিন সংঘাত বেড়েই চলেছে। সেনা প্রত্যাহারের প্রক্রিয়া চললেও ক্রমেই লাদাখে সেনা ও অত্যাধুনিক অস্ত্র বাড়াচ্ছে দুই দেশ। এহেন যুদ্ধের আবহের আঁচ গিয়ে পড়ে তথ্য প্রযুক্তির ক্ষেত্রে। এর জেরে ভারতে ৫৯টি চিনা অ্যার নিষিদ্ধ করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। টিকটক, ইউসি ব্রাউজার, ক্যাম স্ক্যানার, হেলো অ্যাপ সহ বেশ কয়েকটি জনপ্রিয় অ্যাপ এই তালিকায় রয়েছে।

কী কারণে ব্যান করা হল এই অ্যাপগুলি

কী কারণে ব্যান করা হল এই অ্যাপগুলি

চিনা অ্যাপগুলির তথ্য সুরক্ষা ও গোপনীয়তা বিষয় নিয়ে অনেক নাগরিক উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বলে জানায় তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রক। সরকারের তরফে বিজ্ঞপ্তি জারি করে বলা হয়, তথ্যপ্রযুক্তি আইনের ৬৯এ ধারার অধীনে নিজের ক্ষমতা প্রয়োগ করেছে তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রক৷ কারণ এই ৫৯ টি অ্যাপের মাধ্যমে গ্রাহকদের জরুরি তথ্য প্রকাশ্যে চলে আসছে৷ আর সেই তথ্যগুলিকে এমন কিছু কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে, যা ভারতের সার্বভৌমত্ব ও অখণ্ডতা, ভারতের প্রতিরক্ষা, রাষ্ট্রীয় সুরক্ষা ও জনশৃঙ্খলার পক্ষে ক্ষতিকারক৷ একইসঙ্গে বিষয়টি একটি আতঙ্কের সৃষ্টি করেছে ৷ তাই এই বিষয়গুলি মাথায় রেখে ৫৯টি চিনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷

পাকিস্তানে থেকে ফোকাস সরেছে চিনে! ভারতের পারমাণবিক মিসাইলের লক্ষ্যে এখন বেজিং

English summary
US Investors trying to buy Chinese app tiktok amid unrest in Ladakh, South China sea and Hong Kong
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X