• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

মৃত্যুর ঝুঁকি বাড়ছে করোনা আক্রান্ত হৃদরোগীদের! সমীক্ষায় উঠে আসছে একাধিক চাঞ্চল্যকর তথ্য

  • |

সারা বিশ্বজুড়েই করোনা পরিস্থিতি ক্রমেই ভয়াবহ হয়ে উঠছে। লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। অনেক চেষ্টার পরেও সর্বজনগ্রাহ্য করোনার ভ্যাকসিনের দেখা এখনও মেলেনি। তবে করোনার প্রকোপ উপেক্ষা করে ধীরে ধীরে বাড়ছে সুস্থতার হার-ও। তবে, হৃদরোগ বা কার্ডিয়াক সমস্যা থাকলে করোনা তাদের জন্য মৃত্যুর কারণ হতে পারে এমন আশঙ্কাই উঠে এসেছে নয়া একটি গবেষণা থেকে।

হৃদরোগজনিত সমস্যা থাকলে করোনায় মৃত্যুর সম্ভাবনা বেশি

হৃদরোগজনিত সমস্যা থাকলে করোনায় মৃত্যুর সম্ভাবনা বেশি

সম্প্রতি ইতালির প্লস ওয়ান জার্নালে প্রকাশিত একটি গবেষণায় দেখা যাচ্ছে, হৃদরোগ বা কার্ডিয়াক বিভিন্ন সমস্যা থাকা কোনোও রোগীর করোনা সংক্রমণের পর মৃত্যুর ঝুঁকি সর্বাধিক। গবেষণায় জানা যাচ্ছে, হৃদজনিত সমস্যা না থাকলে করোনায় আক্রান্ত রোগীরা কেবলমাত্র হালকা অসুস্থতার শিকার হন। কিন্তু, হৃদরোগ জনিত সমস্যা থাকলে সেই রোগীর মারাত্মক নিউমোনিয়া দেখা দেয় যার জেরে মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে।

হৃদরোগের শিকার করোনায় আক্রান্ত রোগীদের উপর চলে সমীক্ষা

হৃদরোগের শিকার করোনায় আক্রান্ত রোগীদের উপর চলে সমীক্ষা

ইতালির কাতানজারো ম্যাগনা গ্র্যাসিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের মতে, কোভিড -১৯ সংক্রমণে হৃদরোগীদের সংকট ও তার যথাযথ চিকিৎসা অনুসন্ধানে একটি সমীক্ষা চালান। তারা তারা এশিয়া, ইউরোপ এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের করোনায় আক্রান্ত মোট ৭৭,৩১৭ জন রোগীর উপর একটি পর্যবেক্ষণমূলক পরীক্ষা চালান। গবেষকদের মতে, অধিকাংশ ক্ষেত্রেই করোনায় মৃত্যুর কারণ হিসেবে তাদের হার্টের অবস্থা দায়ী।

ডায়াবেটিস, হাইপারটেনশন নয় করোনায় ঝুঁকি বাড়াচ্ছে হার্টই

ডায়াবেটিস, হাইপারটেনশন নয় করোনায় ঝুঁকি বাড়াচ্ছে হার্টই

সমীক্ষায় দেখা গেছে, রোগীদের যখন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল, তাফের ১২.৮৯% মধ্যে ছিল হৃদরোগসংক্রান্ত সমস্যা, ৩৬.০৮ % ছিল হাইপারটেনশন এবং ১৯.৪৫% এর ছিল ডায়াবেটিস। কিন্তু বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই অনিয়মিত হৃদস্পন্দন, হঠাৎ হার্ট অ্যাটাকই করোনায় মৃত্যুর কারণ হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

হৃদরোগ কীভাবে করোনায় মৃত্যুকে প্রভাবিত করে?

হৃদরোগ কীভাবে করোনায় মৃত্যুকে প্রভাবিত করে?

গবেষকদের মতে, আগে থেকেই হৃদজনিত সমস্যার কারনে হার্ট ফেলিয়োর হতে পারে। ৬৫-র উর্দ্ধ বয়সের ক্ষেত্রে আগে থেকে কোনও কারণে হার্ট দুর্বল হলে মারা যেতে পারেন রোগী। কারও হৃৎস্পন্দন খুব কমে যায়, কারও খুব বেড়ে যায়।দ্রুত ব্যবস্থা না নিলে প্রাণ নিয়ে টানাটানি পড়ে। এছাড়াও যাঁদের ইস্কিমিক হৃদরোগ আছে, তাঁদের হঠাৎ হার্ট অ্যাটাক হয়ে যেতে পারে।

মুকুল রায়ই ফেরার আগ্রহ প্রকাশ করেছিলেন! কুণালের কথায় কী জবাব দিলেন তিনি

নয়া শিক্ষানীতি নিয়ে মন্ত্রীকে রিপোর্ট

English summary
the highest risk of death from coronavirus infection while having heart disease multiple facts are coming up in the survey
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X