• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

মুক্তহস্তে 'সমর্থন', নির্বাচনে বাইডেনের উপর বাজি ধরলেন কোন বিশিষ্ট মার্কিন-ভারতীয়রা?

মার্কিন নির্বাচনের বাকি আর মাত্র একদিন। বিশ্বের গণতন্ত্গুলির মধ্যে সব থেকে খরচ সাপেক্ষ এবং জটিল এই নির্বাচনের দিকে নজর গোটা বিশ্ব। বিশেষ করে ভারত নজর টিকিয়ে রেখেছে বাইডেন-ট্রাম্পের এই লড়াইয়ের দিকে। এরই মাঝে মার্কিন মুলুকে থাকা ভারতীয় বংশদ্ভূতরা ঝুঁকে কার দিকে? এই প্রশ্নের জবাব অনেকটাই সাফ করে দিলেন জো বাইডেন।

রেকর্ড ভেঙে ৮ কোটি 'আগাম ভোট' পড়েছে আমেরিকায়, মার্কিন নির্বাচনে এগিয়ে কে?রেকর্ড ভেঙে ৮ কোটি 'আগাম ভোট' পড়েছে আমেরিকায়, মার্কিন নির্বাচনে এগিয়ে কে?

মার্কিন-ভারতীয়রা এবার কার দিকে ঝুঁকে

মার্কিন-ভারতীয়রা এবার কার দিকে ঝুঁকে

রবিবার ডেমোক্র্যাট প্রেসিডেনশিয়াল পদ প্রার্থী জো বাইডেন তাঁর নির্বাচনী ফান্ডরেইজারে দান করা 'উল্লেখযোগ্য' ব্যক্তিদের নামের তালিকা প্রকাশ করেন। সেখানই প্রভাবশালী ভারতীয় এবং সম্প্রদায়ের নেতাদের নাম দেখা যায়। যাতে সাফ হয়ে যায় যে মার্কিন-ভারতীয়রা এবার কার দিকে ঝুঁকে।

প্রভাবশালী মার্কিন ভারতীয়রা বাইডেনের সমর্থক

প্রভাবশালী মার্কিন ভারতীয়রা বাইডেনের সমর্থক

সেদেশে বসবাসরত ভারতীয় বংশদ্ভূতদের বাজি যে জো বাইডেন, তা একপ্রকার সাফ হয়ে গিয়েছে। এরই মাঝে নিজের পকেট থেকে টাকা খরচ করে বাইডেনকে সমর্থন জানিয়েছেন, এরকম তালিকায় ভারতীয়দের নাম নেহাত কম নয়। ১ লক্ষ মার্কিন ডলার বা তার বেশি পরিমাণ অর্থ সাহায্য করেছেন, এমন ব্যক্তিদের নামের তালিকা প্রকাশ করেছিলেন জো বাইডেন। তাতেই দেখা যাচ্ছে প্রভাবশালী মার্কিন ভারতীয়রা কীভাবে মুক্তহস্তে বাইডেনকে সমর্থন জানিয়েছেন।

ভারতীয় মার্কিনিদের নিজের দিকে টানতে মড়িয়া বাইডেন

ভারতীয় মার্কিনিদের নিজের দিকে টানতে মড়িয়া বাইডেন

প্রথম থেকেই ভারতীয় মার্কিনিদের নিজের দিকে টানতে উঠে পড়ে লেগেছিলেন জো বাইডেন। এই কারণেই কমলা হ্যারিসকেও নিজের রানিং মেট বানিয়েছিলেন বাইডেন। এদিকে নির্বাচনী প্রচারে নামার আগেই অভিবাসী নীতি নিয়ে বড় ধাক্কা খেয়েছিলেন ট্রাম্প। এই ইস্যুতে সুপ্রিমকোর্টের কাছে মোথা নোয়াতে হয় তাঁর প্রশাসনকে। তাছাড়া ট্রাম্পের অভিবাসন নীতি নিয়ে হতাশা ব্যক্ত করেছিলেন সুন্দর পিচাই সহ আরও বহু প্রভাবশালী ব্যক্তি।

ভারতীয় বংশদ্ভূতদের কাছে জনপ্রিয়তা হারান ট্রাম্প

ভারতীয় বংশদ্ভূতদের কাছে জনপ্রিয়তা হারান ট্রাম্প

বারবার দেখা গিয়েছে মোদীর সঙ্গে নিজের বন্ধুত্বে ফায়দা তুলে ট্রাম্প আমেরিকায় থাকা ভারতীয় বংশদ্ভূত ভোটারদের নিজের কাছে টানতে চেয়েছেন। তবে মার্কিন প্রেসিডেন্টের অভিবাসন নীতির কারণে তিনি ভারতীয় বংশদ্ভূতদের কাছে জনপ্রিয়তা হারান। ৭৭ বছর বয়সী বাইডেনের সঙ্গে ৭৪ বছর বয়সী ট্রাম্পের লড়াইয়ে ভারতীয় বংশদ্ভূত ভোটাররা বড় ভূমিকা পালন করতে চলেছে, তা স্পষ্ট।

বাইডেনের প্রচারে 'উল্লেখযোগ্য' অবদান ৮০০ জন মার্কিনির

বাইডেনের প্রচারে 'উল্লেখযোগ্য' অবদান ৮০০ জন মার্কিনির

এই আবহে বাইডেনকে সমর্থন জানিয়ে তাঁর নির্বাচনী প্রচারে 'উল্লেখযোগ্য' অবদান রেখেছেন প্রায় ৮০০ জন মার্কিনি। যাঁদের মধ্যে রয়েছে প্রচুর ভারতীয়। এদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য কয়েকজন কমিউনিটি লিডার হলেন স্বদেশ চট্টোপাধ্যায়, রমেশক কাপুর, শেখর নরশিমহন, আর রঙ্গস্বামী, অজয় জৈন ভূতোড়িয়া, নীল মাখিজা, দীপক রাজ, রাজ শাহ, রাজন শাহ, রাধিকা শাহ, রাজ সিং, নীধি ঠাকুর, কিরণ জৈন, সনি কলশি, বেলা বাজারিয়া।

সমর্থন কমেছে বাইডেনের?

সমর্থন কমেছে বাইডেনের?

যদিও উল্লেখযোগ্য বিষয়, বিল ক্লিংটন বা বারাক ওবামার নির্বাচনী ফান্ডরেইজারের থেকে বাইডেনের পক্ষে ভারতীয় 'ডোনার-এর' সংখ্যা অনেকটাই কম। ঐতিহাসিক ভাবে মার্কিন-ভারতীয়রা ডেমোক্র্যাটদেরই সমর্থন জানিয়ে আসে। তবে বর্তমান প্রেক্ষিতে ট্রাম্প-মোদী বন্ধুত্ব, এবং লাদাখে চলতে থাকা ভারত-চিন সংঘাতের আবহে হোয়াইট হাউজের ভূমিকার কারণে বাইডেনকে সমর্থন জানাননি অনেকে।

হলিউডও বাইডেনের সমর্থনে গলা ফাটিয়েছে

হলিউডও বাইডেনের সমর্থনে গলা ফাটিয়েছে

তবে তা সত্ত্বেও আগের সব রেকর্ড ভেঙে জো বাইডেন প্রথম মার্কিন প্রেসিডেনশিয়ার প্রার্থী হিসাবে ১ বিলিয়ন ডলার ফান্ডরেইজ করার পথে এগিয়েছেন। গত অগাস্ট-সেপ্টেম্বর মাসেই জো বাইডেন ৭০০ মিলিয়ন ডলার পেয়েছেন নির্বাচনী প্রচারের লক্ষ্যে। জো বাইডেনকে সমর্থন জানিয়ে মুক্তহস্তে দান করেছেন হলিউডের তাবড় ব্যক্তিত্বরা। রয়েছেন বিভিন্ন স্টেটের গভর্নররাও।

কলকাতাঃ রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির অভিযোগ তুলে হরিদেবপুর থানা ঘেরাও বিজেপির

English summary
Prominent Indian-American donors Who Helped Joe Biden Campaign for US Presidential Election
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X