• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

ইসলামাবাদে অগ্নিগর্ভ সংঘর্ষের ঘটনায় কড়া ব্যবস্থা নিতে চলেছে পাক সরকার,হতাহত শতাধিক

ক্রমেই জটিল পরিস্থিতি নিচ্ছে পাকিস্তানের আভ্যন্তরীণ সংঘর্ষের ছবিটা। সেদেশের আইনমন্ত্রীর বিরোধিতা করে ইসলামাবাদ ও রাওয়ালপিন্ডির রাস্তায় এক ধর্মীয় সম্প্রদায়ের মানুষ অবরোধ করেন। শনিবার সেই অবরোধ তোলাকে কেন্দ্র করেই প্রশাসনকে বেশ বেগ পেতে হয়। মুহুর্তে উত্তপ্ত হয় পরিস্থিতি, আর তার জেরে মারা যান ১০ জন। আহত ২৫০। এই ঘটনায় কড়া ব্যাবস্থা নিতে চলেছে পাক প্রশাসন। জানা গিয়েএছ, ওই ধর্মীয় সংগঠেন বহু নেতার বিরুদ্ধে চরম পদক্ষেপ নিতে চলেছে পাকিস্তান সরকার।

সলামাবাদে অগ্নিগর্ভ সংঘর্ষের ঘটনায় কড়া ব্যবস্থা নিতে চলেছে পাক সরকার,হতাহত শতাধিক

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সেনাকে ডেকে পাঠানো হয়। দেশের বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় ইতমধ্যেই মোতায়েন করা হয়েছে সেনা। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী সহ সেদেশের বিভিন্ন মন্ত্রীদের বাড়িতে বাডা়নো হয়েছে নিরাপত্তা।

এর আগে , পাকিস্তানের ওই ধর্মীয় সম্প্রদায়ের বিক্ষোভ তুলতে গেলে প্রবলবাবে বাঁধা পায় পাক পুলিশ। পাল্টা টিয়ার গ্যাসের শেল পুলিশের তরফ থেকে ছোঁড়া হলে, পরিস্থিতি অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে। এদিকে, এরকম এক হিমসাত্মক ঘটনার খবর যাতে দেশজুড়ে না ছড়ায়, তার জন্য টিভি চ্যানেলগুলির লাইভ কভারেজ বন্ধ করে দেয় পাক প্রশাসন। তবে সূত্রের খবর , বিক্ষুব্ধদের দাবি অনুযায়ী পাকিস্তানের আইনমন্ত্রী পদত্যাগের মনোভাব ব্যাক্ত করায় পরিস্থিতি আগের থেকে খানিকটা স্বাভাবিকের পথে।

English summary
Ten persons were feared killed and more than 250 injured in clashes as the Pakistani government cracked down on protesters from hardline religious groups who had been blocking the busiest highway between Islamabad and Rawalpindi for the last three weeks demanding the resignation of law minister Zahid Hamid.
For Daily Alerts

Oneindia - এর ব্রেকিং নিউজের জন্য
সারাদিন ব্যাপী চটজলদি নিউজ আপডেট পান.

Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X
We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Oneindia sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Oneindia website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more