• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

জো বাইডেন: পুতিনের সাথে প্রথম ফোনালাপে যে কথা হলো মার্কিন প্রেসিডেন্টের

  • By BBC News বাংলা

জো বাইডেন ও ডোনাল্ড ট্রাম্প
Getty Images
জো বাইডেন ও ডোনাল্ড ট্রাম্প

ভ্লাদিমির পুতিনের সাথে প্রথম ফোনালাপে জো বাইডেন আমেরিকার নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপের ব্যাপারে সতর্ক করে দিয়েছেন।

ফোনালাপে রাশিয়ায় চলমান পুতিনবিরোধী বিদ্রোহ এবং যুক্তরাষ্ট্র-রাশিয়ার মধ্যকার একমাত্র অবশিষ্ট পারমাণবিক অস্ত্র চুক্তির বিষয়ে কথা হয়।

রাশিয়ার এক আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে বলা হয় মি. পুতিন নতুন মার্কিন প্রেসিডেন্টকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

দুই পক্ষ থেকেই বলা হয়েছে যে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে তারা যোগাযোগ রক্ষা করে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প মি. পুতিনের বিষয়ে যথেষ্ট কঠোর ছিলেন না বলে অভিযোগ তোলেন সমালোচকরা।

এর আগের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাও - যার অধীনে জো বাইডেন ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন - রাশিয়ার বিষয়ে কিছুটা দুর্বল ছিলেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

ক্রাইমিয়ার সংযুক্তি, পূর্ব ইউক্রেনে আক্রমণ এবং সিরিয়ার ওপর জোর প্রয়োগ করার ইস্যুগুলোতে ক্রেমলিনের ওপর যথেষ্ট নিয়ন্ত্রণ না থাকার অভিযোগ তোলা হয় ওবামা প্রশাসনের ওপর।

আরো পড়তে পারেন:

আমেরিকায় নির্বাচন ২০২০: চীন ও রাশিয়া কাকে বিজয়ী হিসেবে দেখতে চায়?

চীন চায় ট্রাম্প হেরে যাক, রাশিয়া বাইডেনকে বিপদে ফেলতে উন্মুখ: গোয়েন্দা রিপোর্ট

জো বাইডেনকে কেন অভিনন্দন জানাচ্ছেন না প্রেসিডেন্ট পুতিন

ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে ডোনাল্ড ট্রাম্প।
Reuters
ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে ডোনাল্ড ট্রাম্প।

ফোনালাপ বিষয়ে হোয়াইট হাউজ ও ক্রেমলিনের মন্তব্য কী?

"প্রেসিডেন্ট বাইডেন পরিষ্কার করেছেন যে, রাশিয়ার যেসব পদক্ষেপ যুক্তরাষ্ট্রকে বা তার মিত্রদের ক্ষতি করে, সেসব পদক্ষেপের বিপক্ষে নিজেদের স্বার্থ রক্ষার্থে যুক্তরাষ্ট্র শক্ত পদক্ষেপ নেবে", বলে জানানো হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের এক বিবৃতিতে।

মঙ্গলবার বিকালের ফোনালাপ সম্পর্কে হোয়াইট হাউজের বিবৃতিতে বলা হয় যে দুই প্রেসিডেন্ট 'সোলার উইন্ডস' সাইবার হামলা, অ্যালেক্সেই নাভালনিকে বিষপ্রয়োগ ইত্যাদি বিষয়ে কথা বলেন।

তবে ফোনালাপ বিষয়ে ক্রেমলিনের বিবৃতিতে দুই প্রেসিডেন্টের মধ্যকার উষ্ণ কথাবার্তার কোনো ইঙ্গিত পাওয়া যায়নি।

রাশিয়ার কর্মকর্তারা বলেছেন মি. পুতিন 'রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে সম্পর্ক স্বাভাবিক হলে সেটি দুই দেশের জন্য ভালো - এবং বৈশ্বিক নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা অক্ষুণ্ণ রাখার জন্য সহায়ক বলে চিহ্নিত' করেছেন।

ক্রেমলিনের বিবৃতিতে উল্লিখিত হয়: "রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের নেতার মধ্যে আলোচনা অনেকটা ব্যবসায়িক এবং খোলামেলা ধাঁচের ছিল।"

দুই নেতা ওবামার সময়ে করা 'নিউ স্টার্ট' নামের একটি চুক্তি নতুন করে নবায়ন করার বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার পারমাণবিক অস্ত্রাগারে মিসাইল, লঞ্চার এবং ক্ষেপণাস্ত্রের সংখ্যা সীমিত করার বিষয়ে ছিল চুক্তিটি।

আগামী মাসেই এই চুক্তিটির মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা ছিল আর ডোনাল্ড ট্রাম্প চুক্তিতে স্বাক্ষর করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছিলেন।

কোনো দ্বন্দ্ব চান না বাইডেন

জো বাইডেন ইঙ্গিত দিয়েছেন যে ডোনাল্ড ট্রাম্প যতটুকু শক্ত ছিলেন ভ্লাদিমির পুতিনের ওপর, তিনি তার চেয়ে বেশি কঠোর থাকবেন।

দুই নেতার ফোনালাপ সংক্রান্ত খবরে বলা হচ্ছে, রাশিয়া যে ২০২০ ও ২০১৬ সালের মার্কিন নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করার চেষ্টা করেছে, মি. বাইডেন এই বিষয়টি জানেন বলে মি. পুতিনকে বলেছেন।

এছাড়া সাইবার ষড়যন্ত্র বা কোনো ধরণের আক্রমণ প্রতিহত করতে যুক্তরাষ্ট্র প্রস্তুত বলেও মি. পুতিনকে জানিয়েছেন তিনি।

জো বাইডেন এবং তার পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক দল ইউরোপ সম্পর্কে মি. পুতিনের অভিসন্ধি এবং মানবাধিকার ইস্যুতে কঠোর অবস্থান নেবে।

তবে তারা কোনো ধরণের দ্বন্দ্ব চায় না। বরং তারা সম্পর্ক বজায় রাখা এবং সহযোগিতা অব্যাহত রাখার মনোভাব জ্ঞাপন করেছেন।

BBC

English summary
New US president Joe Biden talked with Russian counter part Vladimir Putin for the first time
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X