সে কি কথা! আজই ধ্বংস হবে নাকি পৃথিবী, নেপথ্যে কি এই রহস্যজনক গ্রহ, বিজ্ঞানীরা কী বললেন

  • Posted By:
Subscribe to Oneindia News
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS
For Daily Alerts

    'ডমুস ডে'-র সূত্র মানলে, প্ল্যানেট এক্স বা নিবিরু নামের গ্রহটিতে নাকি নভেম্বর মাসের ১৯ তারিখ অর্থাৎ আজই আঘাত হানতে চলেছে পৃথিবীর ওপর। এর ফলে রহস্যজনক মহাজাগতিক ভূমিকম্পে নাকি তছনছ হতে চলেছে পৃথিবী। বেশ কিছুদিন ধরেই চাউর এই তথ্য। কাল্পনিক গ্রহ নিবিরুর ধ্বংসাত্মক দিক নিয়ে বহু কিছু তথ্য আগেও শোনা গিয়েছিল। এর আগে শোনা যায়, সেপ্টেম্বরের ২৩ তারিখই নিবিরুর ধাক্কায় ধ্বংস হয়ে যেত পৃথিবী, এমনই মত ছিল খ্রীষ্টান নিউমরোলজিস্টদের।

    [আরও পড়ুন:আমেরিকা ও চিনের পরই তালিকায় রয়েছে ভারত, জানেন কোন সে তালিকা]

    সে কি কথা! আজই ধ্বংস হবে নাকি পৃথিবী, নেপথ্যে কি এই রহস্যজনক গ্রহ, বিজ্ঞানীরা কী বললেন

    তবে এই ধরনের আতঙ্কে ভোগার কোনও কারণ নেই। কারণ,নাসা বিজ্ঞানী ডেভিড মরিসন এই ঘটনাকে কার্যত নস্য়াৎ করে দিয়েছেন । গোটা বিষয়টিকে তিনি অযৌক্তিক বলে দাবি করেছেন। তাঁর মতে, যে গ্রহের কোনও অস্তিত্ব নেই , তাকে নিয়ে ভাবারও অবকাশ না থাকাই উচিত। তবে নিবিরু গ্রহের অবস্থান সম্পর্কে যাঁদের বিশ্বাস রয়েছে, তাঁদের দাবি গোটা বিষয়টিকে কোনও অজানা কারণে বিশ্বের কাছ থেকে লুকোতে চাইছে নাসা। ঠিক যেভাবে এলিয়নের বিষয়টি নিয়ে রহস্য মুড়ে রেখেছে এই মার্কিন মহাকাশ বিজ্ঞানচর্চা কেন্দ্র।

    যদিও নাসার দাবি ২০১২ সালেও করা হয়েছিল যে পৃথিবী ধ্বংস হতে চলেছে, তবে তা প্রমাণিত হয় মিথ্যা বলে। আজও তাইই হবে। উল্লেখ্য, একদল মানুষের মতে সৌরজগতের সর্বশেষ গ্রহ হল নিবিরু, যার পৃথিবীর চারপাশে ঘুরতে সময় লাগে ৩,৬০০ বছর। তাঁদের আরও বিশ্বাস যে, পৃথিবীতে যাবতীয় ভমিকম্পের কারণ পৃথিবীর দিকে নিবিরুর মাধ্যাকর্ষণ।

    [আরও পড়ুন:"মঙ্গলে মানুষ থাকে মাটির নিচে, গ্রহণ করে কার্বন-ডাই-অক্সাইড", এ কোন সত্যের মুখোমুখি বিজ্ঞানীরা]

    English summary
    If doomsday conspiracy theorists were to be believed, Planet X — also known as Nibiru — is likely to trigger a series of apocalyptic earthquakes on November 19 which will lead to the destruction of our planet.

    Oneindia - এর ব্রেকিং নিউজের জন্য
    সারাদিন ব্যাপী চটজলদি নিউজ আপডেট পান.

    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Oneindia sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Oneindia website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more