• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

আমেরিকার জি ৭ আমন্ত্রণ গ্রহণ ভারতের, তবে চিন-রাশিয়ার 'বন্ধুত্ব'-র জেরে বাড়ছে জটিলতা!

ভারত, রাশিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, অস্ট্রেলিয়ার মতো দেশগুলিকে অন্তর্ভুক্ত করে জি ৭-এর আমন্ত্রিত দেশগুলির তালিকা সম্প্রসারণ করতে চেয়েছিলেন ট্রাম্প। এই কারণে জি ৭-এর সম্মেলন স্থগিত রেখেছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। আমেরিকা, ব্রিটেন, ইতালি, জার্মানি, জাপান, ফ্রান্স ও কানাডা- এই সাতটি দেশ প্রতিবছর বিশ্বের নানা বিষয় নিয়ে আলোচনায় বসে।

মোদীকে ফোন করে জি ৭ বৈঠকে আমন্ত্রণ জানান ট্রাম্প

মোদীকে ফোন করে জি ৭ বৈঠকে আমন্ত্রণ জানান ট্রাম্প

এদিকে এই আবহেই মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রীকে ফোন করে জি ৭ বৈঠকে আমন্ত্রণ জানান ট্রাম্প। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আমন্ত্রণকে স্বাগত জানান নরেন্দ্র মোদী। পরে সেই প্রস্তাব গ্রহণ করার কথা জানিয়ে দেওয়া হয় প্রধানমন্ত্রীর দফতরের তরফে। পাশাপাশি ডোনাল্ড ট্রাম্প রাশিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, অস্ট্রেলিয়াকেও আমন্ত্রণের হাত বাড়িয়ে দেন।

চিনকে বাদ দেওয়ায় বিরক্ত রাশিয়া

চিনকে বাদ দেওয়ায় বিরক্ত রাশিয়া

এদিকে জি৭ বৈঠকে চিনকে অন্তর্ভুক্ত না করার বিষয়টি নিয়ে রাশিয়ার তরফে প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। রাশিয়ার বিদেশমন্ত্রকের তরফে এই বিষয়ে বলা হয়, 'জি৭-এর সম্প্রসারণ নিঃসন্দেহে একটি সঠিক পদক্ষেপ। তবে চিন ছাড়া বিশ্ব বাণিজ্যের কোনও সদার্থক দিশা খুঁজে পাওয়া যাবে বলে আমরা মনে করিনা।'

চিন বিরোধিতায় অনড় আমেরিকা

চিন বিরোধিতায় অনড় আমেরিকা

এদিকে রাশিয়া যাই বলুক, অনড় আমেরিকা। আমেরিকা এবার জি-৭ সম্মেলনের আয়োজন করেছে। করোনার বিশ্ব মহামারীর মধ্যে এই সম্মেলনে চিনের বিরুদ্ধে সবাইকে এককাট্টা করতে উদ্যোগী ট্রাম্প। তাই তিনি বন্ধু মোদীকে আমন্ত্রণ জানান। ভারতকে উন্নত অর্থনীতির দেশ হিসেবে অন্তর্ভুক্তিরও আবেদন করেন। যার বিরোধিতা করে চিন।

জি ৭ ছাড়াও আর যেসব বিষয়ে কথা হয় মোদী-ট্রাম্পের

জি ৭ ছাড়াও আর যেসব বিষয়ে কথা হয় মোদী-ট্রাম্পের

এদিকে মঙ্গলবার সরকারের তরফে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, সম্প্রতি ঘটা একাধিক ইস্যু নিয়ে ফোনে নরেন্দ্র মোদী ও ডোনাল্ড ট্রাম্পের আলোচনা হয়েছে। উঠে এসেছে লাদাখে ভারত-চিনসীমান্ত সমস্যাও। তবে মূলত জি৭-এ অন্তর্ভুক্তি নিয়ে এদিন আলোচনা হয়েছে বলে জানা যায়।

উঠে আসে জর্জ ফ্লয়েড হত্যাকাণ্ড

উঠে আসে জর্জ ফ্লয়েড হত্যাকাণ্ড

জি৭ ছাড়াও জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যু নিয়েও কথা হয় দুই রাষ্ট্র প্রধানের মধ্যে। পুলিশি হেপাজতে কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েডের খুনের ঘটনায় অ্যামেরিকার প্রায় ৭৫টির বেশি শহরে ছড়িয়েছে প্রতিবাদের আগুন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণেআনার জন্য একাধিক পদক্ষেপ করা হয়েছে । লাঠিচার্জ, কাঁদানে গ্যাস বা প্রেসিডেন্টের সতর্কবার্তা কোনও কিছুই দমাতে পারেনি বিক্ষোভকারীদের।

পরিবহণ মন্ত্রীর জেলাতে বাস চালানো নিয়ে সমস্যা, কর্মী নিরাপত্তা পেলে তবেই বাস চালাবে মালিকরা

জর্জ ফ্লয়েডের হত্যা, কীভাবে পুলিশি নৃশংসতার জেরে উত্তাল হয়ে উঠল আমেরিকা!

English summary
india accepts usa's g7 invitation as russia unhappy with china's exclusion
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X