• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

করোনা ভাইরাস: ফ্রন্টলাইনার অভিবাসী কর্মীদের নাগরিকত্ব দিচ্ছে ফ্রান্স

  • By BBC News বাংলা

করোনাভাইরাস মহামারিতে প্যারিসে কর্মরত স্বাস্থ্যসেবা কর্মীরা।
Getty Images
করোনাভাইরাস মহামারিতে প্যারিসে কর্মরত স্বাস্থ্যসেবা কর্মীরা।

করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সম্মুখ যোদ্ধা বা ফ্রন্টলাইনে কাজ করা শত শত অভিবাসী কর্মীদের দ্রুততম সময়ে বা ফাস্ট-ট্র্যাক নাগরিকত্ব দিয়ে তাদের কাজের স্বীকৃতি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ফ্রান্স।

দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এর আগে কোভিড-১৯ মোকাবেলায় সহায়তা কাজে অংশগ্রহণকারী বাসিন্দাদের দ্রুত স্বীকৃতি চেয়ে আবেদন করার আহ্বান জানিয়েছিল।

সাতশোর বেশি মানুষ এরইমধ্যে নাগরিকত্ব গ্রহণ করেছেন বা গ্রহণ প্রক্রিয়ার চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছেন।

এদের মধ্যে রয়েছেন পেশাদার স্বাস্থ্যসেবা কর্মী, পরিচ্ছন্নতাকর্মী এবং দোকান মালিক।

বিশ্ব জুড়েই ফ্রন্টলাইনে থাকা কর্মীরা সবচেয়ে বেশি হারে কোভিড-১৯ এর সংস্পর্শে এসেছেনে এবং এদের মধ্যে অনেকেই রোগটিতে আক্রান্ত হয়ে মারাও গেছেন। যাদের মধ্যে চিকিৎসক এবং নার্সরাও রয়েছেন।

ফ্রান্স বিশ্বে সবচেয়ে বেশি করোনাভাইরাস আক্রান্ত ১০টি দেশের মধ্যে অন্যতম। দেশটিতে এ পর্যন্ত ২৫ লাখেরও বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছে এবং মারা গেছে ৬২ হাজারের মতো মানুষ।

আরো পড়ুন:

দ্রুত নাগরিকত্ব দেয়ার এই পদক্ষেপ নিয়ে প্রথম ঘোষণা এসেছিল সেপ্টেম্বরে। এ পর্যন্ত ৭৪ জন ফরাসি পাসপোর্ট হাতে পেয়েছেন এবং আরো ৬৯৩ জন এই প্রক্রিয়ার চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছেন। সব মিলিয়ে ২ হাজার ৮৯০ জন মানুষ এখনো পর্যন্ত আবেদন করেছেন।

মঙ্গলবার নাগরিকত্ব বিষয়ক জুনিয়র মিনিস্টার মারলিন শিয়াপ্পার দপ্তর থেকে জানানো হয়, "পেশাদার স্বাস্থ্যকর্মী, নারী পরিচ্ছন্নকর্মী, শিশু পরিচর্যা কর্মী, চেকআউট কর্মী: এরা সবাই এই দেশের প্রতি তাদের অঙ্গীকারবদ্ধ থাকার প্রমাণ দিয়েছেন, আর এখন এই প্রজাতন্ত্রের দায়িত্ব তাদের জন্য কিছু করা।"

সাধারণত ফ্রান্সের নাগরিকত্ব পেতে হলে দেশটিতে টানা ৫ বছর বসবাস করতে হয়। সাথে একটি স্থিতিশীল আয় এবং ফরাসি সমাজে খাপ খাইয়ে নেয়ার বিষয়টি তুলে ধরতে হয়।

কিন্তু সরকার বলছে যে, কোভিড কর্মীরা "তাদের মহান সেবা" কাজের স্বীকৃতি হিসেবে ফ্রান্সে মাত্র দুই বছর বসবাস করলেই নাগরিকত্ব পাওয়ার জন্য যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন।

২০১৭ সালে ফ্রান্সের অভিবাসী জনসংখ্যা ছিল ৬৪ লাখ। যাদের মধ্যে একটি বড় অংশ ছিল দেশটির সাবেক উপনিবেশ ছিল এমন দেশ বিশেষ করে উত্তর এবং পশ্চিম আফ্রিকা থেকে যাওয়া বাসিন্দারা। কিন্তু নাগরিকত্ব পাওয়ার বিষয়টি ছিল বেশ জটিল আর দীর্ঘ প্রক্রিয়া। এছাড়া নাগরিকত্ব দেয়ার হারও কমেছে, ২০১৮ সালের তুলনায় ২০১৯ সালে ১০% কমেছে।

তবে দেশটির প্রতি সাহসিকতা এবং অবদানকে নাগরিকত্ব দেয়ার মাধ্যমে স্বীকৃতি দেয়ার ঘটনা এটাই প্রথম নয়।

২০১৮ সালে প্যারিসে একটি বারান্দা থেকে থেকে ঝুলন্ত এক শিশুকে দেয়াল বেয়ে উঠে উদ্ধার করার কারণে মালির নাগরিক মামোদউ গাসামা নামে এক ব্যক্তিকে নাগরিকত্ব দেয়া হয়। লোকমুখে ওই ব্যক্তি "স্পাইডারম্যান" নামে পরিচিতি পান।

BBC

English summary
France providing citizenship to frontline covid worriers who are imigrants
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X