• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

ইউরোপ থেকে করোনা সংক্রমিতরাই নিউইয়র্কে কোভিড–১৯ রোগীর সংখ্যা বাড়িয়েছে

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ সবচেয়ে বেশি দেখা দিয়েছে আমেরিকার নিউইয়র্ক শহরে। পরিস্থিতি এমন দাঁড়িযেছে যে এই শহরের হাসপাতালগুলিতে মৃতদেহের স্তুপ জমছে, অথচ সমাধি করার জায়গার অভাব। এরকম অবস্থায় এক চাঞ্চল্যকর তথ্য জানা গিয়েছে। ইউরোপ থেকে উড়ে আসা আক্রান্ত কোভিড–১৯–এর রোগীদের কারণেই নিউইয়র্কে বড় সংখ্যায় করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে গিয়েছে। জানিয়েছে জিনোম বিজ্ঞানীরা।

ইংল্যান্ডের করোনা রোগীদের থেকে নিউইয়র্কে সংক্রমণ

ইংল্যান্ডের করোনা রোগীদের থেকে নিউইয়র্কে সংক্রমণ

নিউইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয়ের লানগোন স্বাস্থ্যের গবেষকরা জানিয়েছেন, তাঁরা গত মাসে নিউইয়র্কের হাসপাতালগুলি থেকে ৭৫টি কোভিড-১৯-এর রোগীর নমুনা সংগ্রহ করে তা পরীক্ষা করে দেখেছেন। জিনোম টেকনোলজি কেন্দ্রের ডিরেক্টর আদ্রিয়ানা হেগাই জানিয়েছেন যে নমুনাগুলির প্রায় দুই-তৃতীয়াংশতে ইউরোপীয় উৎস রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। তিনি জানিয়েছেন যে ব্রিটেন, ফ্রান্স, অস্ট্রিয়া ও নেদারল্যান্ডস সহ বহু ইউরোপিয়ান দেশ থেকে ভাইরাস নিউইয়র্কে এসেছে।

জিনোম গবেষকদের পরীক্ষা

জিনোম গবেষকদের পরীক্ষা

জিনোম গবেষকরা প্যাথোজেনের জিনের অনুক্রমের মধ্যে ছোট্ট মিউটেশনগুলি একজন ব্যক্তি থেকে অন্য ব্যক্তির সংক্রমণে পরীক্ষা করে কীভাবে বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়ছে তা মোটামুটিভাবে সংযুক্ত করতে সক্ষম হয়। করোনা ভাইরাসের ক্ষেত্রে, যার আরএনএ প্রায় ৩০,০০০ জিন নিয়ে গঠিত, এটি মাসে প্রায় দু'‌বার পরিবর্তিত হয়। এই ছোটখাটো পরিবর্তনগুলি ভাইরাসের ক্ষমতাকে পরিবর্তন করে না। বরং সময়ের সঙ্গে তা স্থানান্তর হয়। তাই এবার দেখা করোনা ভাইরাস কিভাবে বিশ্বের অন্য অংশে বা দেশে ছড়িয়ে পড়ে।

ইউরোপ সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে ভাইরাস ঢুকেছে

ইউরোপ সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে ভাইরাস ঢুকেছে

হেগাইয়ের দল মার্চের প্রথমদিকে নিউইয়র্কের লং আইল্যান্ডের বাসিন্দার নমুনা সংগ্রহ করে, যাঁর কোনও ভ্রমণের ইতিহাস নেই, কিন্তু জানা গিয়েছে যে ব্রিটেন থেকে নিয়ে আসা করোনা ভাইরাস সংক্রমিত ব্যক্তির সঙ্গে তাঁর যোগাযোগ হয়েছে। এই অনুসন্ধানগুলি প্রমাণ করে যে ট্রাম্প প্রশাসন চিনের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করার পরেও ভাইরাসটি ইউরোপ থেকে প্রতিদিনের বিমানের মাধ্যমে সর্বাধিক জনবহুল মার্কিন শহরগুলিতে অনুপ্রবেশ চালিয়ে যেতে থাকে। নিউইয়র্কে শুধুমাত্র ইউরোপের ভাইরাস উৎস নেই। কিছু কিছু ভাইরাস এসেছে আমেরিকার ওয়েস্ট কোস্ট থেকে আবার কোনটা এসেছে সরাসরি এশিয়া থেকে। এর অর্থ হল নিউইয়র্কে সংক্রমণের চেইনটা বিশাল বড়, যা বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এসে এই শহরে ছড়িয়েছে।

করোনা মোকাবিলায় কেন্দ্রকে আক্রমণ সুজন চক্রবর্তীর

১৯৩০-র থেকেও ভয়ঙ্কর হবে আর্থিক মন্দা, করোনা পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ বাড়ালেন আইএমএফ প্রধান

English summary
The findings suggest that even after the Trump administration imposed travel restrictions from China, the virus continued to infiltrate the most populous U.S. city via daily flights from Europe.
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X
We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Oneindia sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Oneindia website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more