• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

লাদাখ সংঘাতের আগে শুধু দখলদারি করেই চিন কতটা এলাকা নিজের সীমানায় জুড়েছে! বিস্ফোরক পরিসংখ্যান

জোর জবরদস্তি করে ১৯৪৯ সালে জিনজিয়াং ও ১৯৫০ তে তিব্বত কে নিজের দখলে করেছে চিন। মূলত দখলদারি করেই নিজের সীমান্ত বাড়াতে সিদ্ধহস্ত এশিয়ার এই দেশ। এবার ভারতের দিকে লোলুপ দৃষ্টি দিয়েছে বেজিং। লাদাখের আগে চিন কোন পর্যায়ের দখলদারি চালিয়ে গিয়েছে, তা একনজরে দেখে নেওয়া যাক।

 চিনর ৩১ শতাংশই দখলদারির ফসল!

চিনর ৩১ শতাংশই দখলদারির ফসল!

চিনের ৩১ শতাংশ এলাকাই দখলদারির জেরে এসেছে। এমনই তথ্য পেশ করছে রিপোর্ট। এরমধ্যে , ১৩ শতাংশ তিব্বতের বলে জানাচ্ছে টিবেট অটোনমাস রিজিয়ন , অন্যদিকে জিনজিয়াং ইউঘুর অটোনমাস এরিয়ার ১৭.৬৮ শতাংশ চিনের মোট এলাকার অংশ বলে জানা গিয়েছে। এছাড়াও ভারতের দুটি অংশে অবৈধ দখল চিন বহু আগে থেকে রেখেছে বলে দাবি রিপোর্টের।

 চিনের দখলে কোন কোন ভারতের এলাকা?

চিনের দখলে কোন কোন ভারতের এলাকা?

ভারতের দুটি অংশ চিনের দখলে। একটি '৬২ র যুদ্ধের সময় আকসাই চিন। অন্যটি পাকিস্তান দখল করে ১৯৬৩ সালে তা চিন-পাকিস্তান চুক্তির দ্বারা চিনের হাত তুলে দেয়। আকসাই চিনের ৩৮ হাজার কিলোমিটার সীমান্ত চিনন ছয়ের দশকে দখলে রেখেছিল। যা চিনা আগ্রাসনের একটি কালো অধ্যায় হিসাবে এশিয়ার ইতিহাসে রয়েছে।

উইঘুর মুসলিম বনাম চিন

উইঘুর মুসলিম বনাম চিন

এদিকে, জিনজিয়াং প্রভিন্সের উইঘুর মুসলিমদের সঙ্গে চিনের সংঘাত এখনও। জোর করে দখলে আনা এই এলাকার বাসিন্দারা নিজেদের চিন থেকে মুক্ত করতে চায়। কিন্তু চিনের দমন পীড়ন নীতির মুখে তাঁরে কণ্ঠ শোনা যাচ্ছে না। উইঘুররা নিজেদের তুর্কীর বাসিন্দা বলে এখনও মনে করেন। তাঁদের মঙ্গোলিয়ান ধাঁচ চিনের সঙ্গে খাপ খায়নি আজও।

 চিনের অন্দরে আলাদা স্বাধীনতা দিবস!

চিনের অন্দরে আলাদা স্বাধীনতা দিবস!

উল্লেখ্য, উইঘুরদের নির্বাসিত সরকার মার্কিন মুলুকে, ও তিব্বতের নির্বাসিত সরকার ভারতে। জোর করে উইঘুরদের দখলে নেওয়া চিনকে কিছুতেই নিজের সরকার বলে মনে করেননা এই মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ। এঁরা নিজেদের স্বাধীনতা দিবস ১২ নভেম্বরকে মনে করেন। পূর্ব তুর্কিস্তানের স্বাধীনতা দিবস ছিল। তবে সেই সমস্ত এলাকা ক্ষণস্থায়ী হয় বিশ্ব ইতিহাসে। উইঘুরদের দখলে নেয় চিন।

 চিনের কমিউনিস্ট পার্টির দানবীয় মেজাজ

চিনের কমিউনিস্ট পার্টির দানবীয় মেজাজ

১৯৪৯ সালে চিন শাসনে তখতে বসে কমিউনিস্ট পার্টি। তারপর সাত দশক ধরে জোর করে জিনজিয়াং ও তিব্বতকে নিজের কবেল রেখেছে চিন। এরপর ভুটান, সিকিম, অরুণাচলপ্রদেশ, লাদাখ দখলের দিকে এগিয়ে যায় চিন। দক্ষি চিন সাগরে সমুদ্র গর্ভের সম্পদ আহরণেও বুঁদ থাকে চিনের লোভ!

 গণহত্যা ও দখলের ইতিহাস

গণহত্যা ও দখলের ইতিহাস

যখন কোনও এলাকা চিন দখলে রাখতে চেষ্টা করে,তখন আগে সেই এলাকায় দমন , পীড়ন শুরু করে। তারপর এলাকাবাসীর প্রতিবাদের সুর চড়তেই তাঁদের মুখ বন্ধ করতে চিন গণহত্যার রাস্তা নেয় লালফৌজ। জিনজিয়াং ও তিব্বত সেই রক্তাক্ত ইতিহাস আজও বুকে নিয়ে চলছে।

বিহার নির্বাচনে এলজেপির একার লড়াই কি আসলে বিজেপির বড় চাল! গেরুয়া শিবিরের 'প্ল্যান বি' কী

English summary
Before Ladakh agression China accuired 45 percent land by force
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X