• search

গুজরাতের বন্যা পরিস্থিতি নিচ্ছে ভয়ঙ্কর রূপ, একই পরিবারের ১৮ জনের মৃতদেহ উদ্ধার

  • By Sritama Mitra
Subscribe to Oneindia News
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS
For Daily Alerts

    বন্যার ভয়াবহতা ক্রমেই আতঙ্কের পরিবেশ তৈরি করে চলেছে গুজরাতে। এরকম এক পরিস্থিতিতে রাজ্যের খারিয়া গ্রামের একটি নদীর পার থেকে একই পরিবারের ১৮ জনের মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে। দেহগুলি পর পর এমনভাবে পড়েছিল যা দেখে অনুমান করা সম্ভব যে জলের তোড়ে এই দেহ গুলি ভেসে এসেছে। এদিকে, গোটা রাজ্যেই বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১১৯।

    গুজরাতের বন্যা পরিস্থিতি নিচ্ছে ভয়ঙ্কর রূপ, একই পরিবারের ১৮ জনের মৃতদেহ উদ্ধার

    গুজরাতের বন্যা কবলিত অংশগুলিতে ত্রাণ ও উদ্ধারের কাজ চলছে একযোগে। মনে করা হচ্ছে মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। এনডিআরএফ ও বিএসএফ এর দল একযোগে কাজ করে চলেছে। উদ্ধার কাজে নামানো হয়এছে ১০ টি বায়ু সেনার চপার।

    রাজ্যের সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত জেলারগুলির মধ্যে রয়েছে বনসকণ্ঠ সহ বেশ কিছু এলাকা। এদিকে গুজরাতের ধাওরি বাঁধ থেকে ১.২৪ কিউসেক জল ছাড়ায় প্লাবিত হয়েছে ধোকলা গ্রাম। সেখানের বন্যা পরিস্থিতি ভয়ানক রূপ নিয়েছে। জানা গিয়েছে ২০ টি গ্রামের ৩, ৮৫৮ জন মানুষকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে ত্রাণ শিবিরে। ৫০০ জন চিকিৎসক ও চিকিৎসা কর্মীকে মোতায়েন করা হয়েছে গুজরাতের বিভিন্ন এলাকায়। ইতিমধ্যেই সেরাজ্যের বন্যা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখে কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে ৫০০ কোটি টাকার প্যাকেজ ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

    English summary
    Tragedy struck Khariya village in Gujarat's Banaskantha on Wednesday when 18 bodies — all close relatives — were recovered from a river bank, taking the flood related death toll since the beginning of monsoon to 119. The toll may go up as rescue operations are on.

    Oneindia - এর ব্রেকিং নিউজের জন্য
    সারাদিন ব্যাপী চটজলদি নিউজ আপডেট পান.

    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Oneindia sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Oneindia website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more