• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

‌নিরামিষ আহার যাঁরা করেন তাঁদের হ্যাংওভার বেশি হয়

ডিসেম্বর মাস চলছে, বাইরে কনকনে ঠাণ্ডা। এরকম মরশুমই তো মদ্যপানের আদর্শ সময়। আর এই সময়েই বিভিন্ন পার্টিও হয়। সেখানে মদ খাওয়া একটু বেশি হলেই পরের দিন সকালে হ্যাংওভার। তবে অন্যদের থেকে এটা বিশেষ কয়েকজনের মধ্যে বেশি প্রভাব ফেলে। নতুন এক সমীক্ষায় উঠে এসেছে যে যাঁরা নিরামিশাষী তাঁদের হ্যাংওভার আমিষ বা মাংস যাঁরা খায় তাঁদের চেয়ে বেশি হয়।

‌নিরামিষ আহার যাঁরা করেন তাঁদের হ্যাংওভার বেশি হয়


ক্লিনিক্যাল মেডিসিন জার্নালে প্রকাশিত এই রিসার্চ করেছেন ইউট্রেচ বিশ্ববিদ্যালয়ের ডাচ বিজ্ঞানীরা। নিয়মিত মদ্যপান করেন এমন ১৩ জনের ওপর পরীক্ষা করে দেখেছেন তাঁরা। সমীক্ষায় অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে ২৩ ধরনের হ্যাংওভারের চিহ্ন দেখা গিয়েছে। প্রথমে তাঁদের নিয়ন্ত্রণে রাখা হয়, যেখানে একটা রাত তাঁরা মদ্যপান থেকে বিরত থাকবেন। হ্যাংওভার হলে মাথাব্যাথা, বমি বমি ভাব, ঘাম, জল চেষ্টা ইত্যাদি চিহ্নগুলি দেখা যায়। এমনকী আলো ও কোনও ধরনের শব্দও সহ্য করতে পারে না তাঁরা। এই সমীক্ষা চলাকালীন অংশগ্রহণকারীদের ক্রিয়াকলাপ রেকর্ড করে রাখা হয়।

দেখা গিয়েছে যাঁদের শরীরে জিঙ্ক এবং ভিটামিন বি৩ কম রয়েছে তাঁদের মধ্যেই হ্যাংওভার বেশি দেখা যায়। গবেষকরা জানিয়েছে, জিঙ্ক এবং ভিটামিন বি৩ প্রাণীজ উপাদানে পাওয়া যায়। তাই যাঁরা নিরামিশাসী তাঁদের হ্যাংওভার বেশি হয় কারণ জিঙ্ক ও বি৩এর ঘাটতি রয়েছে তাঁদের শরীরে। তাই হ্যাংওভার কাটাতে অবশ্যই বেশি করে মাংস খান।

English summary
The research got published in the Journal of Clinical Medicine in which Dutch scientists from Utrecht University carried out an experiment on 13 social drinkers
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X