• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

সব প্রতিবন্ধকতাকে জয় করে মহামারির বছরেও এই ধন কুবেররা প্রসন্ন করে রেখেছে ভাগ্যলক্ষ্মীকে

এ বছর করোনা ভাইরাস মহামারির ফলে দেশজুড়ে আর্থিক মন্দা দেখা দিয়েছে। দেশবাসীর কাছে চরম সঙ্কট উপস্থিত হয়েছে। কিন্তু এই সঙ্কট ও মহামারি তাঁদের লক্ষ্যে পৌঁছানোর সিঁড়িকে কাঁপাতে পারেনি। তাঁরা তাঁদের মিশন সম্পূর্ণ করেছেন এবং প্রমাণ করেছেন যে কোনও পরিস্থিতিতে তাঁরা এই লক্ষ্য অর্জন করতে সফল। এটাই সফলতার গল্প দেশের কিছু ধনবান ব্যক্তিদের। যাঁরা করোনা ভাইরাস বছরেও নিজেদের সম্পত্তি ৬৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে নিয়ে গিয়েছে।

আপডেট অনুসারে, ব্লুমবার্গ বিলিয়নেয়ার ইনডেক্স নিশ্চিত করেছে যে এই ধনপতীদের মিশ্র সম্পদ শুক্রবার, ১১ ডিসেম্বর ২০০ বিলিয়ন ডলারের (১৯৪.‌৩৯ বিলিয়ন ডলার) এর কাছাকাছি ছিল, এখন এই ১২ মাস পর্যন্ত ৫০ শতাংশ বেড়েছে।

গৌতম আদানি

গৌতম আদানি

প্রথমেই এই ধন কুবেরদের মধ্যে নাম করতে হয় গৌতম আদানির, যিনি পুর্ননবীকরণ বিদ্যুৎ, বন্দর, টার্মিনালস ও লজিস্টিকস সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রের মালিক। প্রথম প্রজন্মের উদ্যোক্তা, আদানির ২০২০ সালে এখন পর্যন্ত তার সম্পদ প্রায় ২১.১ বিলিয়ন ডলারে বৃদ্ধি পেয়েছে।

 মুকেশ আম্বানি

মুকেশ আম্বানি

সর্বকালের ধনবান ভারতীয় হিসাবে খ্যাত, মুকেশ আম্বানি তার ভাগ্যে ১৮.১ বিলিয়ন ডলার যুক্ত করেছেন, যা অবশেষে ৭৬.‌৭ বিলিয়ন ডলার নির্ভর করে। চূড়ান্ত ১২ মাস শেষ হওয়ার পরে তার দাম ছিল ৫৮.‌৬ বিলিয়ন ডলার। উল্লেখযোগ্যভাবে, আম্বানি ভারতের সবচেয়ে মূল্যবান সংস্থা রিল্যায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ পরিচালনা করেন, যার তেল ও পেট্রল, টেলিকম এবং খুচরো ক্ষেত্রগুলি রয়েছে।

সাইরাস পুনাওয়ালা

সাইরাস পুনাওয়ালা

এই মহামারির সময়, দেশবাসী অনা্যাসে তাঁকে ভারতের ভ্যাকসিন সম্রাট বলতেই পারে। সাইরাস পুনাওয়ালা, যাঁর সিরাম ইনস্টিটিউট কোভিড ভ্যাকসিন উৎপাদনে প্রধান ভূমিকা পালন করছে। সাইরাস পুনাওয়ালা তার ভাগ্যলক্ষ্মীকে ৬.‌৯১ বিলিয়ন ডলার থেকে ১৫.৬ বিলিয়ন ডলারে বৃদ্ধি করিয়েছে। পুনের সিরাম ইনস্টটিউট এখন বিশ্বের সবচেয়ে বৃহৎ ভ্যাকসিন উৎপাদন কেন্দ্র হয়ে উঠেছে।

শিব নাদার, আজিম প্রেমজি

শিব নাদার, আজিম প্রেমজি

এই সাতজনের মধ্যে দু'জন ধনকুবের হলেন এইচসিএল অ্যাপলায়েড সায়েন্সেরর শিব নাদার এবং উইপ্রোর আজিম প্রেমজি যারা সম্মিলিতভাবে তাদের ভাগ্যে প্রায় ১২ বিলিয়ন ডলার যুক্ত করেছেন। নাদারের এইচসিএল টেক ভারতের তৃতীয় বৃহৎ আইটি এক্সপোর্টার। তাঁর সম্পত্তি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬.‌২৯ বিলিয়ন ডলার থেকে এ বছরের শেষ পর্যন্ত ২২ বিলিয়ন ডলারে। অন্যদিকে উইপ্রোর প্রেমজির সম্পত্তি ৫.‌২৬ বিলিয়ন ডলার থেকে বৃদ্ধি পেয়ে ২৩.‌৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে বৃদ্ধি পেয়েছে।

রাধাকিষাণ দামানি

রাধাকিষাণ দামানি

তিনি একজন খ্যাতনামা বিনিয়োগকারী এবং হাইপারমার্কেটের ডি-মার্ট চেইনের স্বত্বাধিকারী। হ্যাঁ, আমরা রাধাকিষণ দামানির কথা বলছি, যিনি তাঁর সম্পদের পরিমাণ ৪.৭১ বিলিয়ন ডলার থেকে বাড়িয়ে ১৪.৪ বিলিয়ন ডলার করে দেখিয়েছেন।

শুধুই আম-আদমি নয়, ২০২০ সালে মারণ করোনার কবল থেকে রেহাই পাননি বিশ্বের যে সমস্ত রাষ্ট্রনেতা

English summary
these billionaires have added usd 64 billion to their wealth this year
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X