• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

কেন্দ্রীয় বাজেট ২০২০:‌ কর স্ল্যাব, পেনশন, পিপিএফ, ৮০সি নিয়ে বড় ধরনের বদল আসছে এই বাজেটে

করদাতারা অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করে রয়েছেন ১ ফেব্রুয়ারি নির্মলা সীতারমন বাজেটে কি নিয়ে আসতে চলেছেন। যদিও আগেই অর্থমন্ত্রী ইঙ্গিত দিয়েছিলেন যে কেন্দ্র সরকার করদাতাদের জন্য বিশেষ ছাড় ও মধ্যবিত্তরা যাতে বেশি করে সঞ্চয় করতে পারে সেরকমই কিছু ভাবনা নিয়ে আসতে চলেছে। কর স্ল্যাব পরিবর্তন, স্ট্যান্ডার্ড ছাড়ের সীমা বাড়ানো, আয়কর আইনের ধারা ৮০ সি এর অধীনে আরও ছাড়ের দাবি করার বিধান, এ ধরনের কিছু স্বস্তি দিতে পারে সরকার। শ্রমজীবী, বিশেষত যুবক এবং বেতনভুক্তদের মধ্যে জাতীয় পেনশন পদ্ধতির (এনপিএস) মতো প্রকল্পগুলি জনপ্রিয় করার জন্য কিছু পরিবর্তন ঘোষণা করা হতে পারে।

কর, পেনশন, পিপিএফ নিয়ে বড় বদল আসছে এই বাজেটে

অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ পারিবারিক সঞ্চয়কে উৎসাহিত করতে এবং অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে বিভিন্ন পদক্ষেপের ঘোষণা করবেন বলে আশা করা হচ্ছে। সরকার জাতীয় পেনশন পদ্ধতির (এনপিএস) করের সুবিধা দ্বিগুণ করার জন্য তা ৫০,০০০ থেকে এক লাখ টাকা পর্যন্ত করার কথা ভাবতে পারেন। এক আর্থিক সংস্থার সিইও ও কর্ণধার রচিত চাওলা বলেন, '‌এনপিএসের আওতায় করের সুবিধাটি বর্তমানে ৫০,০০০ টাকা থেকে দ্বিগুণ ১ লাখ করে দেওয়া উচিত এবং কেন্দ্রীয় সরকার কর্তৃক করমুক্ত অবদানের সুবিধাটি এনপিএসের আওতাধীন তার কর্মীদের জন্য সমস্ত শ্রেণীর গ্রাহককে ১৪ শতাংশ বাড়িয়ে দেওয়া উচিত।’‌

এই বাজেটে মধ্যবিত্ত করদাতারা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলবেন। পাঁচ লক্ষ টাকা পর্যন্ত উপার্জনের ক্ষেত্রে আয়করে ছাড় দেওয়া হয়েছে। যদি আপনার বার্ষিক আয় ৫ থেকে ১০ লক্ষ হয়, তবে আপনাকে ২০ শতাংশের বদলে ১০ শতাংশ কর দিতে হবে। বছরে ১০ লক্ষ থেকে ২০ লক্ষ আয় যাদের, তাদের ৩০ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২০ শতাংশ কর দিতে হবে।

আগেই বলা হয়েছিল যে সরকার পিপিএফ আমানতের সীমা আড়াই লক্ষ টাকা বাড়াতে পারে। পিপিএফের সীমাবদ্ধতা আয়কর আইনের ৮০ সি সেকশনে ছাড় সংক্রান্ত সীমা বাড়ানোর সঙ্গে একত্রিত হতে পারে। সূত্রের খবর, '‌পিপিএফের বার্ষিক আমানতের সীমা আড়াই লাখ টাকা বাড়ানোয় আয়কর আইনের ধারা ৮০ সি এর অধীনে ছাড়ের সীমাটির সঙ্গে একত্র হওয়া দরকার, যাতে করদাতারা কেবলমাত্র উচ্চ ছাড়ের সুবিধা পাশাপাশি সুদেরও অতিরিক্ত ১ লাখ টাকা পিপিএফ–এও পান।’‌

আপনি বর্তমানে এনপিএস-এর অবদানের জন্য আয়কর আইনের ধারা ৮০ সিসিডি (১ বি) এর অধীনে বছরে ৫০,০০০ টাকার কর ছাড় উপভোগ করছেন। তবে আপনি এই কর ছাড়ের ক্ষেত্রে দ্বিগুণ বিষয় লক্ষ্য করতে পারবেন। এবার থেকে গ্রাহকরা বছরে ৫০ হাজার থেকে এক লক্ষ টাকার কর ছাড় পাবেন। পেনশন নিয়ন্ত্রক পিএফআরডিএ ইতিমধ্যে নরেন্দ্র মোদী সরকারের কাছে এই বিষয়ে প্রস্তাব পাঠিয়েছে।

ধারা ৮০ সি এর অধীনে আয়কর ছাড় বাড়ানোর দরকার রয়েছে কারণ এটি সর্বশেষ গত আগস্ট ২০১৪ সালে বাড়ানো হয়েছিল যখন পিপিএফের সীমা ৫০,০০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে দেড় লক্ষ টাকা করা হয়েছিল। পারিবারিক সঞ্চয়ের উপর এর প্রভাব ছিল প্রচুর। ২০১৫ ও ২০১৪ সালের অর্থবর্ষের বেশি সময়ে প্রভিডেন্ট এবং পেনশন তহবিলগুলি কেবল ১৩,০০০ কোটি টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে। কিন্তু ২০১৬ ও ২০১৫ সালের অর্থবর্ষের তুলনায় এক কোটি টাকারও বেশি বেড়েছে। আমরা বিশ্বাস করি যে ৮০ সি এর অধীনে প্রত্যেকটি পরিবারের জন্য পিপিএফের সীমা এক লক্ষ টাকা বাড়িয়ে আড়াই লক্ষ টাকা করা হয়েছে, ২৩,০০০ কোটি টাকা রাজস্ব পূর্বাভাসের তুলনায় ২ লাখ কোটি টাকারও বেশি বাড়তি সাশ্রয় ঘটবে এতে।

এসবিআই রিসার্চ সম্প্রতি গবেষণা করে সরকারকে আসন্ন বাজেটে প্রবীণ নাগরিকদের সেভিংস স্কিম (এসসিএসএস) এর উপর পুরো কর ছাড়ের পরামর্শ দিয়েছে। এসবিআই বলেছে, '‌প্রবীণ নাগরিকদের জন্য সরকারের একটি দুর্দান্ত পরিকল্পনা রয়েছে। সিনিয়র সিটিজেন সেভিংস স্কিমের (এসসিএসএস) অধীনে একজন প্রবীণ নাগরিক ১৫ লক্ষ টাকা জমা দিতে পারবেন এবং বর্তমান সুদের হার ৮.‌৬%। তবে এসসিএসএসের উপর সুদ পুরোপুরি করযোগ্য যা এই স্কিমের একটি বড় অসুবিধা (পাঁচ বছরের জন্য এক লাখ টাকা জমা দেওয়ার সুদের পরিমাণ প্রায় ৫০,০০০ টাকা যা করযোগ্য)।’‌

English summary
the Central government may announce several measures to put more money in the hands of taxpayers in order to boost demand and household savings
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X
We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Oneindia sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Oneindia website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more