• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

কেউ ইচ্ছাকৃতভাবে ফল খাওয়াতে পারে না, হাতি মৃত্যু নিয়ে চাঞ্চল্যকর দাবি বন বিভাগের আধিকারিকের

কেরলে গর্ভবতী হাতিকে কেউ বা কারা বাজিভর্তি আনারস খাইয়ে হত্যার ঘটনায় সরব হলেন রাজ্যের শীর্ষ বন্যপ্রাণী আধিকারিক। তিনি এ প্রসঙ্গে নিজের নীরবতা ভেঙে নিজের স্পষ্ট বক্তব্য তুলে ধরেছেন। নিরীহ এই প্রাণীর মৃত্যুতে দেশজুড়ে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে।

ইচ্ছাকৃতভাবে ফল কেউ খাওয়ায়নি

ইচ্ছাকৃতভাবে ফল কেউ খাওয়ায়নি

কেরলের মুখ্য বন্যপ্রাণী ওয়ার্ডেন আইএফসি অফিসার সুরেন্দ্র কুমার জানিয়েছেন, হাতিটিকে ইচ্ছাকৃতভাবে ওই ফলটি খাওয়ানো হয়েছিল এই দাবিটি বিশ্বাস করা কঠিন। কারণ এটি একটি বন্য হাতি ছিল এবং কোনও বুদ্ধিমান ব্যক্তি হাতিটিকে খাওয়ানোর জন্য তার কাছে যাওয়ার সাহস দেখাবে না। রাজ্যের শীর্ষ বন্যপ্রাণী আধিকারিক এও স্পষ্ট করে জানিয়েছেন যে হাতিটির মৃত্যু পালাক্কাদে হয়েছে মালাপ্পুরমে নয়, আগের রিপোর্টে যেরকম বলা হয়েছিল।

কিছুজনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ

কিছুজনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ

ওই আধিকারিক জানিয়েছেন, স্থানীয়রা প্রথম হাতিটিকে ২৩ মে দেখতে পায় তারপর হাতিটি ফের জঙ্গলে ফিরে যায় এবং আবার ২৫ মে লোকালয়ে ফিরে আসে। তিনি আরও জানিয়েছেন যে হাতিটি গোটা দিন জলের মধ্যে ছিল এবং ২৭ মে মৃত্যু হয়। ২৮ মে এ সংক্রান্ত কেস দায়ের করা হয়। সুরেন্দ্র কুমার বলেন, ‘‌আমরা ইতিমধ্যেই কিছুজন সন্দেহভাজনকে সনাক্ত করেছি এবং তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এখনও পর্যন্ত কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি যেখানে এটা প্রমাণিত হচ্ছে যে হাতিটিকে ইচ্ছাকৃতভাবে বাজিভর্তি আনারস খাওয়ানো হয়েছিল। বন বিভাগ শুধু এটার সম্ভাবনা রয়েছে বলে দাবি করেছে।'‌ পুলিশ যদিও এই প্রাণী মৃত্যুর সঙ্গে জড়িত সন্দেহে একজনকে গ্রেফতার করেছে।

জলে ডুবে মৃত্যু

জলে ডুবে মৃত্যু

মৃত হাতিটির ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করা হয় মনরক্কদ বন বিভাগে। ময়নাতদন্তের রিপোর্টে বলা হয়েছে, জলে ডুবে ফুসফুসে জল ঢোকার ফলে শ্বাসপ্রশ্বাস নিতে কষ্ট হয় এবং যার ফলে হাতিটির মৃত্যু হয় তৎক্ষণাত।

খাবার, জল খায়নি হাতিটি

খাবার, জল খায়নি হাতিটি

ময়নাতদন্তে এও উঠে এসেছে যে আতসবাজির ফাটার ফলে গর্ভবতী হাতিটির মুখে প্রধান ক্ষতের সৃষ্টি হয় এবং সে আঘাত পায়। পোস্টমর্টেম রিপোর্টে এও বলা হয়েছে যে ‘‌এর ফলে ওই অঞ্চলে উদ্বেগজনক বেদনা ও সঙ্কটের সৃষ্টি হয়েছিল এবং প্রায় দুই সপ্তাহ ধরে প্রাণীটিকে খাদ্য ও জল গ্রহণ থেকে বিরত রেখেছিল। যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরে সে জলের মধ্যে ডুবে থাকে এবং ফুসফুসে জল ঢুকে তার মৃত্যু হয়'‌।

অস্ট্রেলিয়ার সেনাঘাঁটি ব্যবহার করবে ভারতীয় সেনা, ঐতিহাসিক চুক্তি স্বাক্ষর মোদী-মরিসনের

English summary
IFC officer Surendra Kumar, Kerala's chief wildlife warden, said the claim that the elephant was deliberately fed the fruit was hard to believe.
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X