• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

আলিঙ্গন নয়, চুম্বন নয়, নমস্কারই বাঁচাবে করোনা ভাইরাস থেকে, দিল্লিতে প্রচার সাংস্কৃতিক কর্মীদের

বিহারের বাসিন্দা তথা দিল্লির ভাষাবিদ ও সাংস্কৃতিক কর্মী ডঃ বীরবল ঝা শুভেচ্ছা বিনিময়ের ভারতীয় সংস্কৃতিকে প্রচার করতে এবার পথে নামলেন। এমনিতেই দেশীয় এই পদ্ধতিকে করোনা ভাইরাসের আতঙ্কের জেরে সকলেই গ্রহণ করেছেন। ‌

নমস্কারের প্রচার

নমস্কারের প্রচার

ডঃ ঝা নমস্কারকে প্রচার করতে চান এবং এই প্রচারে তাঁর পাশে পেয়েছেন শত শত দিল্লির যুব সম্প্রদায় ও পড়ুয়াদের। তাঁরা সকলে একসঙ্গে ‘‌নমস্তে মার্চ'‌ শুরু করেন, যাতে এই ভারতীয় পদ্ধতিটি গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে। ভারতীয় এই শুভেচ্ছা বার্তা সারা বিশ্বে দ্রুত গতিতে ছড়িয়ে পড়েছে। রিপোর্টে জানা গিয়েছে, চিনের সামুদ্রিক খাবারের বাজার থেকে এই করোনা ভাইরাস সংক্রমিত হয়েছে, যা এখন বিশ্বের ১০০টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। বীরবল ঝা বলেন, ‘‌ঐতিহ্যশালী এই নমস্কার, যা ভারতীয় তত্ত্বের সাংস্কৃতিক জীবনপদ্ধতির একটি অঙ্গ, তা এখন পাশ্চাত্য সংস্কৃতির করমর্দন, আলিঙ্গন, চুম্বন ও অন্য শুভেচ্ছা বিনিময়ের বিকল্প হিসাবে দেখা দিয়েছে। যদিও এটি মারণ রোগ কোভিড-১৯-এর ছোঁয়া থেকে বাঁচতে প্রতিরোধ হিসাবে ব্যবহার করা হয়েছে, হু এই রোগকে মহামারি অ্যাখা দিয়েছে।'‌

৯০ দশকে পাশ্চাত্য সংস্কৃতির প্রবেশ এ দেশে

৯০ দশকে পাশ্চাত্য সংস্কৃতির প্রবেশ এ দেশে

প্রসঙ্গত, ১৯৯০ এর দশকের গোড়ার দিকে বিশ্বায়নের ধারণার প্রবেশের সঙ্গে সঙ্গে পশ্চিমা জীবনধারা ভারতীয় সামাজিক-সংস্কৃতিকে ধীরে ধীরে গ্রাস করতে শুরু করে। ভারতীয় সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যকে রক্ষা করতে এবং পাশ্চাত্য সংস্কৃতিকে সরাতে যে লোহার হাতে সুরক্ষকরা এসেছিলেন তাদের প্রায়শই দেশের অভ্যন্তরে তীব্র বিরোধিতার মুখোমুখি হতে হয়েছিল। এর সঙ্গে কিছু ভারতীয় বুদ্ধিজীবীদেরও ইন্ধন ছিল যাঁরা চাইতেন যে দেশে পাশ্চাত্য সংস্কৃতি বজায় থাকুক। ডঃ ঝা বলেন, ‘‌কিন্তু বিপরীত দিকে মানুষ এখন সামাজিক শুভেচ্ছা বিনিময়ের জন্য ও নিজেদের সুরক্ষিত রাখতে এই নমস্কারকেই প্রাধান্য দিচ্ছেন। পাশ্চাত্য শুভেচ্ছা বিনিময় করলেই আক্রান্ত হতে হবে মারণ ভাইরাসের। তাই তার থেকে দূরে রাখতেই ভারতীয় সংস্কৃতি এখন হাতিয়ার।'‌

নমস্কার সংস্কৃতি গ্রহণ করেছেন ট্রাম্প থেকে চার্লস

নমস্কার সংস্কৃতি গ্রহণ করেছেন ট্রাম্প থেকে চার্লস

এমনকী মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ইংল্যান্ডের প্রিন্স চার্লসও ‘‌নমস্কার সংস্কৃতি'‌কে আপন করে নিয়েছেন, এটা একদিক দিয়ে যেমন শারীরিক স্পর্শ থেকে বাঁচাবে তেমনি অন্যের প্রতি ভালোবাসা ও শ্রদ্ধাও দেখানো হবে। প্রচারে অংশগ্রহণকারীদের হাতের প্ল্যাকার্ডে লেখা রয়েছে ‘‌করমর্দন নয়, একমাত্র নমস্কার করুন।'‌ অন্য প্ল্যাকার্ডে লেখা, ‘‌জড়িয়ে ধরা নয়, সংক্রমণ নয়, আলিঙ্গন নয়, চুম্বন নয়'‌। এর সঙ্গে স্লোগান দেওয়া হচ্ছে, ‘‌আপ উইথ দ্য আন্ডিয়ান কালচার, ডাউন ইউথ দ্য করোনা ভালচার'‌। এই স্লোগান-প্ল্যাকার্ড দৃষ্টি কেড়েছে পথযাত্রীদের।

English summary
no kisses no hugs only namaste protect you to covid 19
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X