• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

৩৭০ ধারা বিলোপ থেকে করোনা সংক্রমণ, এক নজরে দ্বিতীয় মোদী সরকারের প্রথম বর্ষপূর্তির কর্মকাণ্ড

দেখতে দেখতে ১ বছর পূর্ণ হয়ে গেল মোদী ২.০ সরকারের। এই এক বছরে একের পর এক ঐতিহাসিক পদক্ষেপ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা বিলোপ থেকে শুরু করে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল। কী ঘটেনি এই এক বছরে। করোনা আবহের মধ্যেই দ্বিতীয় দফার মোদী সরকারের প্রথম বর্ষপূর্তির এলাহি আয়োজন করেছে বিজেপি।

কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধরা বিলোপ

কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধরা বিলোপ

একক সংখ্যা গরিষ্ঠতা নিয়ে এবার ক্ষমতায় এসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। দ্বিতীয় দফার শুরুতেই কাশ্মীর নিয়ে ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত নেয় দ্বিতীয় এনডিএ সরকার। কাশ্মীর এবং লাদাখকে কেন্দ্র শাসিত অঞ্চল ঘোষণা করা হয়। সংসদে মোদী সরকারের এই সিদ্ধান্ত নিয়ে তেমন বিরোধিতায় শান দিতে পারেনি বিরোধীরা। তার জন্য কাশ্মীরে দীর্ঘ তিন মাস ধরে বন্ধ ছিল ইন্টারনেট পরিষেবা। সেখানে গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দিয়েছিলেন জাতিয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল। কাশ্মীরের রাজনৈতিক নেতাদের গৃহবন্দি করে রাখা হয়।

তিন তালাক বিল পাস

তিন তালাক বিল পাস

ভোট প্রতিশ্রুতি রক্ষা করতে তিন তালাক বিল পাস করানো হয়। আইনে স্বাক্ষর করেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। তিনতালাককে শাস্তিযোগ্য অপরাধ বলে তৈরি হয় আইন। প্রথম দফায় লোকসভায় বিলটি পাস হলেও রাজ্য সভায় সেটা পাস করাতে পারেনি মোদী সরকার।

এনআরসি এবং সিএএ

এনআরসি এবং সিএএ

দ্বিতীয় দফার মোদী সরকারের আরেকটি চরম পদক্ষেপ এসমে এনআরসির চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করা। তাই নিয়ে উত্তাল হয়ে ওঠে অসম। এরপরেই নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন পাস করানো হয় সংসদের দুই কক্ষে। সংসদে এই নিয়ে বিরোধীরা শোরগোল না ফেললেও আইনটি পাল হয়ে যাওয়ার পর উত্তাল হয়ে ওঠে গোটা দেশ। এই আইনে বাংলাদেশ, পাকিস্তান এবং আফগানিস্তান এই তিনটি দেশের সংখ্যালঘুদের ভারতে নাগরিকত্ব দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে এই তিনটি দেশ থেকে যাঁরা ভারতে এসেছেন তাঁদের নাগরিকত্ব দেওয়ার কথা বলা হয়। অসম থেকে এই আইনের বিরোধিতার পারদ চড়তে শুরু করে। তারপর সেটা গোটা দেশে ছড়িয়ে পড়ে। করোনা ভাইরাস দেশে থাবা বসানোর আগে পর্যন্ত এই সিএএ ইস্যুতে উত্তাল ছিল রাজধানী দিল্লি।

করোনা সংক্রমণ

করোনা সংক্রমণ

সিএএ আন্দোলনের মধ্যেই দেশে থাবা বসাতো শুরু করে করোনা ভাইরাস। আরেক বড় চ্যালেঞ্জের মুখে দাঁড়াতে হয় দ্বিতীয় মোদী সরকারকে। জনতা কার্ফু থেকে লকডাউন ঘোষণা। তার জেরে গরিব কল্যাণ প্রকল্প ঘোষণা এবং আত্মনির্ভর ভারত ফিনান্সিয়াল প্যাকেজ ঘোষণা দ্বিতীয় মোদী সরকারে প্রথম বর্ষ পূর্তির অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অংশ বলা চলে।

আমফান তান্ডবের পর এলাকা পরিদর্শনে মিমি চক্রবর্তী

বিজেপির 'একুশে অভিযান’ তৃণমূল সরকারের বর্ষপূর্তিতে! বাংলার কুর্সির লক্ষ্যে মমতাকে চ্যালেঞ্জ

English summary
Modi government 2.0 important events at a glance
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X