• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

ট্রেনের টিকিট নেই, লক্ষাধিক টাকার গাড়ি কিনে গ্রামে ফিরলেন উত্তরপ্রদেশের পরিযায়ী শ্রমিক

  • |

শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন চালু হলেও এখনও দেশের বিভিন্ন প্রান্তে পরিযায়ী শ্রমিকদের দুরবস্থার শেষ নেই। টিকিটের জন্য আকাল বিভিন্ন জায়গায়। অভিযোগ যাত্রী সংখ্যার তুলনায় চলছে না পর্যাপ্ত ট্রেন। এবার শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনের টিকিট না পেয়ে সোজা নতুন গাড়ি কিনে ফেললেন উত্তরপ্রদেশের যুবক।

ট্রেনের টিকিট নেই, লক্ষাধিক টাকার গাড়ি কিনে গ্রামে ফিরলেন উত্তরপ্রদেশের পরিযায়ী শ্রমিক

সূত্রের খবর খবর, শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনের জন্য একটানা তিন দিন গাজিয়াবাদ স্টেশনে অপেক্ষা করেন ওই যুবক। অবশেষে টিকিট না মেলায় সোজা চলে যান ব্যাঙ্কে। সেখান থেকে নিজের জমানো প্রায় ১ লক্ষ ৯০ হাজার টাকাই তুলে ফেলেন। এবং তা দিয়ে একটা পুরোনো চার চাকা গাড়ি কিনে ফেলেন পেশায় রঙ মিস্ত্রী লাল্লন। এরপর তাতে চড়েই পরিবার নিয়ে উত্তরপ্রদেশের গোরক্ষপুরের বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দেন তিনি।

সহ উপাচার্য বিষয়টি সম্পূর্ণ মুখ্যমন্ত্রীর বিবেকের ওপর ছেড়ে দিয়েছি, স্পষ্ট জবাব রাজ্যপালের

প্রথমে তারা বাসে ফেরার কথা ভেবেছিল বলে জানা যায়। পরে ভিড়ে ঠাসা স্টেশনে রাত কাটানোর অভিজ্ঞতা ও মানুষের ভারে উপচে পড়া বাসের অবস্থা দেখে পরিবারের অন্যান্য সদস্যদেক করোনা আক্রান্ত হওয়ার ভয় পায় লাল্লন। যার জেরেই পরবর্তীতে প্রায় দেড় লক্ষ টাকা দিয়ে ওই পুরনো গাড়ি কেনে সে। এই প্রসঙ্গে জিজ্ঞেস করা হলে গোরক্ষপুরের পিপি গঞ্জের কাইথোলিয়া গ্রামের বাসিন্দা লাল্লন বলেন, “প্রথম দফার লকডাউনের সময় আমি ভেবেছিলাম আস্তে আস্তে সব ঠিক হয়ে যাবে। যদিও পড়ে তা বাড়তে থাকায় বাড়ি ফিরে আসাই ঠিক বলে মনে করি। পরবর্তীতে আমরা ট্রেন বাসের টিকিট জোড়াড় করার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়। তাই একপ্রকার বাধ্য হয়েই গাড়ি কিনে ফেলি। ” বর্তমানে গোরক্ষপুরেই হোম কোয়ারিন্টাইনে রয়েছে লাল্লন ও তার পরিবার।

লকডাউনের মধ্যেই গুপ্তধনের সন্ধান পাওয়া গেল তেলেঙ্গানায়

English summary
migrant worker from up returned to the village after buying a car worth lakhs of rupees without getting a special train ticket
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X