• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

২০০৯ থেকে ২০১৮ সালের মধ্যে 'ডিটেনশন সেন্টার' নিয়ে পরপর কোন নির্দেশ কেন্দ্রের!

রবিবার রামলীলা ময়দানে দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির প্রচার মঞ্চে দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেছিলেন যে, তিনি আশ্বাস দেন যে, কোনও ভারতীয় মুসলিমকে ভারত ছেড়ে যেতে হবে না। পাশাপাশি তিনি বলেন,

ভারতে কোনও ডিটেনশন সেন্টার নেই। এরপরই ডিটেনশন সেন্টার নিয়ে বিরোধীদের কথায় গোটা দেশে একের পর এক তথ্য উঠে আসছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের বার্তা ডিটেনশন সেন্টার নিয়ে

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের বার্তা ডিটেনশন সেন্টার নিয়ে

অসমে এনআরসি-র পর থেকে রীতিমতো আতঙ্ক গ্রাস

করেছে সেখানের মানুষকে। একের পর এক ডিটেনশন সেন্টার নির্মাণ নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকে এসেছে নির্দেশ। এমনই দাবি, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের একটি সূত্রের। প্রসঙ্গত, এর আগেই ডিটেনশন সেন্টার নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফে প্রতিমন্ত্রী কিষেণ রেড্ডি মন্ত্রকের অবস্থান স্পষ্ট জানিয়েছেন সংসদে।

 কিষেণ রেড্ডি কী জানিয়েছিলেন?

কিষেণ রেড্ডি কী জানিয়েছিলেন?

সংসদের কক্ষে সাংসদ বাদারুদ্দিন আজমলের একটি প্রশ্নের উত্তরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী কিষেণ রেড্ডি বলেন, এখনও পর্যন্ত ৯৭০ জন রয়েছেন ডিটেনশন সেন্টারে। যার মধ্যে ৬৪৬ জন পুরুষ আর ৩২৪ জন মহিলা। তিনি জানান, পুরুষ আর মহিলাদের আলাদা জায়গায় রাখা হয়েছে। এরপরই আসে ভারতে কোন কোন সালে ক'টি ডিটেনশন সেন্টার নির্মাণ হয়েছে, তার পরিসংখ্যান।

২০০৯ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত ক'টি ডিটেনশন সেন্টার নির্মিত হয়?

২০০৯ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত ক'টি ডিটেনশন সেন্টার নির্মিত হয়?

কেন্দ্রীয় সরকারি হিসাব বলছে, অসমের গোয়ালপাড়া, কোকরাঝাড়, শিলচড়, ডিব্রুগড়, জোরহাট, তেজপুরে নভেম্বর মাসের ২৮ তারিখ পর্যন্ত ৬ টি ডিটেনশন সেন্টারের তথ্য রয়েছে। এছাড়াও , ২০০৯, ২০১২, ২০১৪, ২০১৮ সাল পর্যন্ত কেন্দ্রের তরফে ডিটেনশন সেন্টার বানানোর নির্দেশ আসে।

কর্ণাটকে ডিটেনশন সেন্টার

কর্ণাটকে ডিটেনশন সেন্টার

জানা গিয়েছে, বেশ কয়েকদিন ধরেই কর্ণাটকে বেঙ্গালুরুর উপকণ্ঠে ডিটেনশন সেন্টার নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে। এদিকে, গোটা কর্ণাটকে ১১৪ বাংলাদেশীকে ধরা হয়েছে, যারা অবৈধভাবে বসবাস করছেন রাজ্যে।

অমিত শাহের বক্তব্য

অমিত শাহের বক্তব্য

এর আগে, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ জানিয়েছিলেন যে , নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন আর এনআরসি-র সঙ্গে ডিটেনশন সেন্টারের কোনও সম্পর্ক নেই। তিনি সাফ জানান, এবিষয়ে ভুয়ো তথ্য পেশ করা হচ্ছে। তাঁর সাফ বার্তা যা সেন্টার রয়েছে ভারতে, তা কেবলই রয়েছে অবৈধ শরণার্থীদের জন্য ।

২০১৯ এর শেষ সূর্যগ্রহণের সময় কী করলেন মোদী! নিজেই টুইট বার্তায় কী বললেন তিনি

English summary
MHA Sources reveals Centre had asked states to set up six detention centres
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X