• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

সিঙ্ঘু সীমান্তে চরম নাটক! ৪ আন্দোলনকারী কৃষক নেতাকে মারতে 'সুপারি'

দিল্লি সীমান্তে আন্দোলনরত কৃষকদের খুনের পরিকল্পনা। প্রজাতন্ত্র দিবসে কোনওরকম বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হলেই কৃষক নেতাদের খুন করার উদ্দেশে পাঠানো হয়েছে দুটি দলকে৷ মঙ্গলবার প্রজাতন্ত্র দিবসের অনুষ্ঠান বানচাল করার চেষ্টা করলেই চার কৃষক নেতার দিকে ধেয়ে আসত গুলি৷ শুক্রবার সিঙ্ঘু সীমান্তে কৃষকদের পাকড়াও করা এক ব্যক্তির দাবি ঘিরে শোরগোল পড়ে গেছে৷

মিছিল ঘিরে চলছে প্রস্তুতি

মিছিল ঘিরে চলছে প্রস্তুতি

কৃষি আইন প্রত্যাহারের দাবি পূরণ না হলে ২৬ জানুয়ারি ট্রাক্টর মিছিলের হুমকি দিয়েছে কৃষক সংগঠনগুলি৷ সেই মিছিল ঘিরে চলছে প্রস্তুতি৷ এদিকে দিল্লি পুলিশ মিছিলের অনুমতি দেবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে৷ আন্দোলনরত কৃষক ও দিল্লি পুলিশের এই টানাপোড়েন মধ্যেই ঘটল চাঞ্চল্যকর ঘটনা৷

সন্দেহজনক এক ব্যক্তিকে পাকড়াও করেন আন্দোলনরত কৃষকরা

সন্দেহজনক এক ব্যক্তিকে পাকড়াও করেন আন্দোলনরত কৃষকরা

গতকাল রাতে সন্দেহজনক এক ব্যক্তিকে পাকড়াও করেন আন্দোলনরত কৃষকরা৷ যার দাবি, চার কৃষক নেতাকে খুন করার জন্য তাকে পাঠানো হয়েছে৷ রাতেই ওই ব্যক্তিকে সংবাদমাধ্যমের সামনে নিয়ে আসেন কৃষক নেতারা৷ তাঁদের দাবি, মুখোশের আড়ালে থাকা ওই ব্যক্তি স্বীকার করেছে যে তাকে এবং তার দলের সদস্যদের পুলিশের বেশে ভিড়ে মিশে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল৷ ট্রাক্টর মিছিলের সময় কোনওরকম বিশৃঙ্খলা দেখলেই গুলি চালাতে বলা হয়৷ এই পরিকল্পনার সঙ্গে জড়িত থাকা এক পুলিশ আধিকারিকের কথাও প্রকাশ্যে এনেছে ওই ব্যক্তি ৷

পুলিশের উর্দি পরে নাশকতার ছক

পুলিশের উর্দি পরে নাশকতার ছক

সংবাদমাধ্যমের সামনে মুখ ঢাকা ওই ব্যক্তির দাবি, দুটি জায়গায় তাদের টিমকে অস্ত্র দেওয়া হয়েছে৷ তার আরও দাবি, ২৬ জানুয়ারির ট্রাক্টর মিছিলের সময় দলের অর্ধেক সদস্যের পুলিশের উর্দি পরে কৃষকদের ভিড়ে মিশে যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল৷ তাদের চারজনের ছবি দেওয়া হয় যাদের উপর গুলি চালানোর নির্দেশ ছিল৷ তাঁরা চারজনই এখন উপস্থিত রয়েছেন৷ যার এই পরিকল্পনা তিনি একজন পুলিশ আধিকারিক৷

কৃষকদের কাছে অস্ত্র রয়েছে কি?

কৃষকদের কাছে অস্ত্র রয়েছে কি?

ওই ব্যক্তির দাবি, সে গত ১৯ জানুয়ারি থেকে সিঙ্ঘু বর্ডারে রয়েছে৷ আন্দোলনরত কৃষকদের কাছে অস্ত্র রয়েছে কি না তা খুঁজে বের করার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল তাকে৷ আর ২৬ জানুয়ারির জন্য আলাদা পরিকল্পনা ছিল৷ আরও একটি দলকে আন্দোলনকারীদের ভিড়ে মিশে যেতে বলা হয়েছিল৷ কৃষকরা ট্রাক্টর মিছিল শুরু করার উদ্যোগ নিলেই তাদের উপর গুলি চালানোর নির্দেশ দেওয়া হয়৷

টাকার জন্যই একাজে রাজি হয় সে

টাকার জন্যই একাজে রাজি হয় সে

যদিও তার আগে একবার সতর্ক করে দেওয়ার কথা বলা হয়েছিল৷ না থামলে টিমের দশজন সদস্যকে প্রথমে হাঁটুতে ও পরে পিছন থেকে গুলি করার নির্দেশ দেওয়া ছিল৷ যাতে মনে হয় কৃষকরা আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে দিল্লিতে মিছিল করছিল৷ টাকার জন্যই একাজে রাজি হয়েছে বলে জানিয়েছে ধৃত ব্যক্তি৷ তার কথায়, আমরা টাকার জন্য কাজ করছি৷ সবাইকে দশ হাজার টাকা করে দেওয়ার কথা বলা হয়েছিল৷ আমি অনুরোধ করব যাতে আমাদের পরিবারকে এই বিষয়ে না জানানো হয়৷

এই পরিকল্পনায় পুলিশের যুক্ত থাকার দাবি

এই পরিকল্পনায় পুলিশের যুক্ত থাকার দাবি

যদিও এই পরিকল্পনায় পুলিশের যুক্ত থাকার দাবিকে উড়িয়ে দিয়েছেন হরিয়ানার সোনপতের রাই পুলিশ স্টেশনের এসএইচও৷ তিনি বলেছেন, দাবি করা ওই ব্যক্তি নিজেই এই পরিকল্পনা করেছে৷ কৃষকদের মিছিলে পুলিশের কোনও ভূমিকা নেই৷ ওই ব্যক্তিকে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছেন কৃষকরা৷ ব্যক্তির দাবি সত্যি কি না তা জানতে তদন্তে নেমেছে পুলিশ৷

English summary
Man nabbed, allegedly he was assigned to take lives of four Farmer leaders at Singhu Border
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X