• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

গঙ্গাপারে একা দাঁড়িয়ে চিরাগ, বিহারে কোন সমীকরণে হাত মেলাল বিজেপি-জেডিইউ?

বিহার বিধানসভা নির্বাচনে শেষ পর্যন্ত এলজেপিকে বাদ দিয়েই আসন সংখ্যা নিয়ে নির্দিষ্ট সমঝোতায় পৌঁছেছে জেডিইউ এবং বিজেপি। সূত্রের খবর, দর কষাকাষির শেষে আসন্ন বিহার বিধানসভা নির্বাচনে ২৪৩টি আসনের মধ্যে ১২২টি আসন থাকছে জেডিইউ-এর হাতে এবং ১২১ টি আসন থাকছে বিজেপির হাতে। এই বিষয়ে এদিন আনুষ্ঠানিক ঘোষণা হতে পারে বলেও জানা গিয়েছে। তবে শূন্য হাতে এক দাঁড়িয়ে থাকতে হচ্ছে চিরাগ পাসোয়ানকে। সেই ক্ষেত্রে এলজেপি এনডিএ জোটের ভোট কাটতে পারে বলে আশঙ্কা।

আসন সমঝোতা নিয়ে সিদ্ধান্তে আসার দাবি

আসন সমঝোতা নিয়ে সিদ্ধান্তে আসার দাবি

প্রসঙ্গত, গত সপ্তাহেই এলজেপির চিরাগ পাসোয়ান এবং নীতিশ কুমার অবিলম্বে আসন সমঝোতা নিয়ে সিদ্ধান্তে আসার দাবি জানিয়েছিলেন। রামবিলাস পাসোয়ান এর ছেলে চিরাগ এলজেপির জন্যে ৪২টি আসনের দাবি করলেও বিজেপি মাত্র ১৫টি আসন ছাড়তে রাজি হয়েছিল, যা নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়। এরই মাঝে এলজেপিকে বাদ দিয়েই এনডিএ ঝাঁপাতে যেতে পারে ভোট যুদ্ধে।

জেডিইউ-র বিরুদ্ধে প্রার্থী দেবে এলজেপি

জেডিইউ-র বিরুদ্ধে প্রার্থী দেবে এলজেপি

এই আবহে শোনা যাচ্ছে চিরাগ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যে নির্বাচনে জেডিইউ-র বিরুদ্ধে প্রার্থী দেবে এলজেপি। যার জেরে ফায়দা হতে পারে বিজেপির। সূত্রের খবর, ১৪৩টি আসনে প্রার্থী চূড়ান্ত করে রেখেছে এলজেপি। কারণ দেখা যেতে পারে যে নীতীশের থেকে হয়ত বেশি আসনে জিতেছে তারা। এর জেরে মহারাষ্ট্রের পুনরাবৃত্তি হতে পারে বিহারেও।

নাড্ডা-চিরাগ বৈঠকেও মেলেনি কোনও সমাধান সূত্র

নাড্ডা-চিরাগ বৈঠকেও মেলেনি কোনও সমাধান সূত্র

এর আগে আসন বণ্টন নিয়ে দিল্লিতে এলজেপির তরফে চিরাগের সঙ্গে বৈঠকে বসেছিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা ও কেন্দ্রীয় স্বররাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। সেখানে জোট ধরে রাখার বার্তা স্থির হলেও বর্তমান পরিস্থিতিতে বিহারের সমীকরণ নিয়ে জল্পনা চড়েছে তুঙ্গে। এবং এই আবহে বিহারে ৫০ -৫০ আসন বণ্টনে সহমত পোষণ করেছে জেডিইউ ও বিজেপি। ফলে আরও একবার এলজেপি এই অঙ্কের বাইরে চলে গেল বলে খবর।

এনডিএ-র মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী নীতীশ কুমার

এনডিএ-র মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী নীতীশ কুমার

এদিকে মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী হিসাবে নীতীশ কুমারই থাকছেন। তবে সমান সংখ্যক আসন বণ্টন এই নির্বাচনে এনডিএ জোটের ক্ষেত্রে প্রাসঙ্গিক হতে পারে। তবে ত্রিশঙ্কু ফলাফল হলে কংগ্রেসের বিধায়কদের ভাঙিয়ে নিয়ে যাওয়ার একটি চেষ্টা বিজেপি করতে পারে। তবে মহারাষ্ট্রে এই সমীকরণে বিফল হওয়ায় বিহারে তার প্রয়োগ দেখা যাবে কি না, তা এখনই বলা সম্ভব নয়।

নীতীশ-চিরাগ দ্বন্দ্ব

নীতীশ-চিরাগ দ্বন্দ্ব

মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমারের নেতৃত্ব নিয়ে এলজেপি নেতা চিরাগ পাসোয়ান প্রশ্ন তুলেছেন একাধিবার। এবারের বিহার ভোটে তাঁর নেতৃত্বে লড়তেও অস্বীকার করেছিলেন চিরাগ। এর আগে অবশ্য এলজেপিকে একপ্রকার জোট থেকে তাড়াতে উদ্যত হয়েছিল জেডিইউ। জেডিইউ নেতারা জনসমক্ষে বলছিল যে তাদের জোট বিজেপির সঙ্গে, এলজেপির সঙ্গে নয়। যার জেরে বেজায় খাপ্পা হয়েছিলেন চিরাগ। কিন্তু, মোদী-শাহ-নাড্ডারা বিহারের মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে ফের মুখ করছেন নীতীশকেই। ফলে এখন এলজেপিকেই পাল্টা চাপে ফেলতে চাইছে জেডিইউ ও বিজেপি।

কলকাতা : প্রতিদিনই শ্যুট আউট, মুখ্যমন্ত্রী কে বিঁধে টুইট সুজন চক্রবর্তীর

মহারাষ্ট্রের পুনরাবৃত্তি হতে পারে বিহারে! সেই বুঝে ঘুঁটি সাজাচ্ছে বিজেপি, কংগ্রেস, আরজেডি

English summary
LJP to be left out as JDU and BJP finalized on 50-50 seat sharing in Bihar Assembly Elections, announcement today
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X