• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts
Oneindia App Download

অগ্নিপথের আগুনে পুড়ছে তেলাঙ্গানা , কেন্দ্রকে দায়ী করলেন কেসিআর

Google Oneindia Bengali News

প্রতিরক্ষা খাতে চাকরির জন্য অগ্নিপথ স্কিমের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের সময় এক ব্যক্তির মৃত্যুর ঘটনায় নিয়ে শোক প্রকাশ করেছেন তেলাঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রীকে চন্দ্রশেখর রাও। মৃতের পরিবারকে ২৫ লক্ষা টাকা সহায়তা ঘোষণা করেছেন তিনি।

অগ্নিপথের আগুনে পুড়ছে তেলাঙ্গানা , কেন্দ্রকে দায়ী করলেন কেসিআর

উনিশ বছর বয়সী রাকেশ গতকাল তেলাঙ্গানার সেকেন্দ্রাবাদে নিহত হন। নতুন স্বল্পমেয়াদী সামরিক নিয়োগ প্রকল্পের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ চলাকালীন ট্রেনে আগুন ধরিয়ে দেয় জনতা। ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ে হিংসা। হিংসা নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। শেষে পুলিশ গুলি চালায়। এতেই মারা যায় ওই যুবক। আহত হয়েছেন আরও এক ডজনের বেশি।

মুখ্যমন্ত্রী রেলওয়ে পুলিশের গুলিতে ওয়ারঙ্গলের বাসিন্দা রাকেশের মৃত্যুতে শোক ও শোক প্রকাশ করেছেন, তাঁর অফিসের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রীর কার্যালয়ও ঘোষণা করেছে ওই যুবকের পরিবারকে ২৫ লক্ষ টাকা আর্থিক সহায়তা দেওয়া হবে এবং তার পরিবারের একজন সদস্য সরকারি চাকরি পাবেন।

মুখ্যমন্ত্রী যুবকের মৃত্যুর জন্য কেন্দ্রের "ভুল নীতি"কে দায়ী করেছেন এবং বলেন যে রাজ্য সরকার তেলেঙ্গানার সন্তান্দদের রক্ষা করবে। তেলেঙ্গানা আটটি রাজ্যের মধ্যে অন্যতম যেখানে কেন্দ্র প্রতিরক্ষা পরিষেবাগুলিতে নিয়োগের জন্য অগ্নিপথ প্রকল্প ঘোষণা করার পরে গত কয়েকদিন ধরে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে।

কৃষি বিলের প্রতিবাদের আঁচ পড়েছিল দেশের কিছু প্রান্তে। বিশেষ করে এর বড় প্রভাব দেখা দিয়েছিল উত্তরপ্রদেশ এবং হরিয়ানা ও পাঞ্জাবে। এবার কেন্দ্রের নতুন প্রকল্প নিয়ে দেশ জুড়ে আগুন লেগে গিয়েছে। নতুন সামরিক নিয়োগ প্রকল্প অগ্নিপথ নিয়ে তৈরি হয়েছে সমস্যা। প্রতিবাদ এখন আটটি রাজ্যে ছড়িয়ে পড়েছে। জনতা ট্রেনে আগুন লাগিয়ে এবং সরকারি সম্পত্তির নষ্ট করার চেষ্টা করছে। পুলিশের গুলিতে একজন ব্যক্তি মারা গিয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

বিহারে শনিবার সকালে বেশ কয়েকটি গাড়িতে আগুন দেওয়া হয়। বিক্ষোভকারীরা বিতর্কিত নিয়োগ প্রকল্পের বিরুদ্ধে ডাকা বনধ বাস্তবায়নের চেষ্টা করছিল। শুক্রবার বিহারে 'অগ্নিপথ'-এর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ হিংসার আকার ধারন করে। উত্তেজিত জনতা কয়েক ডজন রেলওয়ে কোচ, ইঞ্জিন এবং স্টেশনে আগুন দেয় এবং বিজেপি অফিস, যানবাহন এবং অন্যান্য সম্পত্তিতে আগুন ধরিয়ে দেয়, পুলিশকে রাজ্যের প্রায় এক তৃতীয়াংশে ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ করতে বাধ্য হয়।

বিক্ষোভের জন্য উত্তর প্রদেশে কমপক্ষে ২৫০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। শত শত বিক্ষুব্ধ যুবককে বাঁশের লাঠি এবং পাথর নিয়ে, শহর ও ছোট শহর জুড়ে রেলওয়ে চত্বরে হামলা করতে দেখা যায়। হাইওয়ে অবরোধ করতেও দেখা যায়। বিজেপি শাসিত হরিয়ানাতেও ব্যাপক বিক্ষোভ দেখা যায় এই বিষয়টি নিয়ে। বিক্ষোভকারীরা বল্লভগড়ে যানবাহনে পাথর ছুঁড়ে, জিন্দে রেলওয়ে ট্র্যাকে বসে প্রতিবাদ করেন।

শুক্রবার মধ্যপ্রদেশের ইন্দোরে হিংসারে পরে অন্তত ১৫ জন বিক্ষোভকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়। প্রায় ৬০০ জন বিক্ষোভকারী রেলওয়ে স্টেশনের কাছে ট্র্যাকে বসে পড়ে এবং ঢিল ছুঁড়তে থাকে। রাস্তা অবরোধ করে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে টিয়ারগ্যাসের শেল নিক্ষেপ করতে বাধ্য হয়।

রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব সকলকে অনুরোধ করেন যে যেন কেউ কোনও হিংসামূলক প্রতিবাদে না করেন ।রেলের সম্পত্তি ক্ষতি না করার অনুরোধ করেন। " প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এবং সেনাপ্রধানের আশ্বাসও বিক্ষোভকারীদের ক্ষোভ কমাতে পারেনি।

English summary
KCR blames central government on agnipath issue
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X