• search

শুধু জানুয়ারি মাসেই ১৪০টি ধর্ষণ ও ২৩৮টি শ্লীলতাহানির ঘটনা ঘটেছে দিল্লিতে

  • By Ritesh Ghosh
Subscribe to Oneindia News
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS
For Daily Alerts

    নয়াদিল্লি, ৮ ফেব্রুয়ারি : দিল্লি আছে দিল্লিতেই। এই কথাটি বোঝাতে পরের লাইনটিই যথেষ্ট। জানা গিয়েছে, এবছরের জানুয়ারি মাসে ১৪০টি ধর্ষণ ও ২৩৮টি শ্লীলতাহানির ঘটনা ঘটেছে দিল্লিতে। রাজধানীর পুলিশ সূত্রেই এমন তথ্য সামনে এসেছে। এর মধ্যে ৪৩টি ধর্ষণের মামলা ও ১৩৩টি শ্লীলতাহানির ঘটনাকে এখনও সমাধান করা যায়নি।[শরীরে নখের আঁচড়ই ধরিয়ে দিল সোনারপুরে মাধ্যমিকের ছাত্রী ধর্ষণ-খুনে অভিযুক্তকে]

    দিল্লিতে ২০১৬ সালে ২১৫৫টি ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে যার মধ্যে ২৯১টির সমাধানসূত্র বের করা যায়নি। অর্থাৎ এঅ মামলাগুলির তদন্তে কোনও অগ্রগতি হয়নি। এছাড়া মোট ৪১৬৫টি শ্লীলতাহানির ঘটনা ঘটেছে যার মধ্যে ১১৩২টি ঘটনা সমাধানহীন হয়ে পড়ে রয়েছে।[মহিলাদের নিয়ে ফের বিতর্কিত মন্তব্য জেডিইউ নেতা শরদ যাদবের]

    শুধু জানুয়ারি মাসেই ১৪০টি ধর্ষণ ও ২৩৮টি শ্লীলতাহানির ঘটনা ঘটেছে দিল্লিতে

    চমকের এখানেই শেষ নয়। জানা গিয়েছে, ২০১৪-১৫-১৬ সালে দিল্লি পুলিশের আধিকারিকদের বিরুদ্ধে ৩৬টি ধর্ষণের মামলা রুজু হয়েছে। যার মধ্যে ২৮টি সেরাজ্যেই। এবং বাকী ৮টি অন্য রাজ্যে।[চেন্নাই এক্সপ্রেস-এর প্রযোজকের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ]

    এই মামলাগুলির মধ্যে ২টি বাতিল হয়েছে। ৬টি মামলায় বেকসুর খালাস পেয়েছে অভিযুক্তরা। বাকী ২৮টি মামলা ট্রায়ালের জন্য পড়ে রয়েছে। এছাড়া গত তিন বছরে ৯০টি শ্লীলতাহানির ঘটনা ও ৯টি ইভটিজিংয়ের ঘটনার অভিযোগ উঠেছে দিল্লি পুলিশের বিরুদ্ধে। রাজ্যসভায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী হংসরাজ আহির এই তথ্য তুলে ধরেছেন।[ধর্ষণ নিয়ে মন্তব্য করে বিতর্কে মহারাষ্ট্রের মন্ত্রী]

    English summary
    As many as 140 cases of rape and 238 cases of molestation were registered by Delhi Police in January this year alone, of which 43 and 133 cases respectively remain unsolved.

    Oneindia - এর ব্রেকিং নিউজের জন্য
    সারাদিন ব্যাপী চটজলদি নিউজ আপডেট পান.

    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Oneindia sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Oneindia website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more