গণনার ফল 
মধ্যপ্রদেশ - 230
Party20182013
CONG11458
BJP109165
IND43
OTH34
রাজস্থান - 199
Party20182013
CONG9921
BJP73163
IND137
OTH149
ছত্তিশগঢ় - 90
Party20182013
CONG6839
BJP1549
BSP+71
OTH00
তেলেঙ্গানা - 119
Party20182014
TRS8863
TDP, CONG+2137
AIMIM77
OTH39
মিজোরম - 40
Party20182013
MNF265
IND80
CONG534
OTH10
  • search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

    নতুন করে বন্যার কবলে অসম, বিপর্যস্ত ৭২ হাজার মানুষ

    ফের নতুন করে বন্যার কবলে অসমের একাংশ। এই রাজ্যের ৫ টি জেলা এখন প্লাবনে বিপর্যস্ত। সোনিতপুর, ধেমাজি, নগাওঁ, লখিমপুর এখন জলমগ্ন। প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের শিকার প্রায় ৭২ হাজার মানুষ।

    নতুন করে বন্যার কবলে অসম, বিপর্যস্ত ৭২ হাজার মানুষ

    উল্লেখ্য, এর আগেও দুটি পর্যায়ে বন্যায় প্রবলভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয় আসাম। ফের একবার নতুন করে বন্য়া পরিস্থিতি তৈরি হওয়ায় উদ্ধারের কাজে ইতিমধ্যেই সেখানে পৌঁছে গিয়েছে, ন্যাশনাল ডিসাস্টার রেসপন্স ফোর্স বা এনডি আরএরফ। বন্যাকবলিত বিভিন্ন জায়গা থেকে মানুষকে নিরাপদ দূরত্বে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে সেখানে।

    ত্রাণের কাজ করতে গিয়ে ইতিমধ্যেই সমস্যায় পড়েছেন এনডিআরএফ কর্মীরা। প্রবল বৃষ্টিতে জরাশর নদীর জলসীমা বেড়ে যাওয়ায় সমস্যায় পড়েছেন উদ্ধারকারী দলের সদস্যরা।পরিস্থিতি মোকাবিলায় ২১ টি ত্রাণ শিবির খোলা হয়েছে বিভিন্ন জায়গায়। সেখানে এখনও পর্যন্ত ১০০ জন আশ্রয় নিয়েছেন।

    English summary
    A fresh wave of flood inundated several places in five districts of the state on Sunday, affecting thousands of people. According to the Assam State Disaster Management Authority (ASDMA), nearly 72,000 people in Dhemaji, Lakhimpur, Sonitpur, Morigaon and Nagaon districts have been hit by the latest flood wave.
    For Daily Alerts

    Oneindia - এর ব্রেকিং নিউজের জন্য
    সারাদিন ব্যাপী চটজলদি নিউজ আপডেট পান.

    Notification Settings X
    Time Settings
    Done
    Clear Notification X
    Do you want to clear all the notifications from your inbox?
    Settings X
    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Oneindia sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Oneindia website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more