• search

অসমে প্রবল বন্যায় দু'ডজন গণ্ডার সহ মৃত ৩৬৯ টি পশু, কাজিরাঙা জুড়ে প্রবল বিপর্যয়

  • By Sritama Mitra
Subscribe to Oneindia News
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS
For Daily Alerts

    অসম জুড়ে প্রবল বন্যায় দ্বিতীয় দফায় মানুষের মৃ্ত্যুর পাশাপাশি ক্রমেই বেড়ে চলেছে কাজিরাঙা ন্যাশনাল পার্কের জীবজন্তুদের মৃতের সংখ্যা। কাজিরাঙাতেই একমাত্র বিশ্বের সবচেয়ে বেশি এক শৃঙ্গ গণ্ডার পাওয়া যায়। আর সেখানেই ভয়াবহ বন্যায় মারা গিয়েছ প্রায় ৩৬৯ জন্তু। মৃত জন্তুদের মধ্যে রয়েছে ২৫০ -এরও বেশি হরিণ সমতে, ২৪ টি গণ্ডার ও হাতি , মোষ সহ একটি বাঘ।

    অসমে প্রবল বন্যায় দু'ডজন গণ্ডার সহ মৃত ৩৬৯ টি পশু, কাজিরাঙা জুড়ে প্রবল বিপর্যয়

    কাজিরাঙা ন্যাশনাল পার্কের ডিরেক্টর সত্যেন্দ্র সিং জানিয়েছেন, যে প্রথম পব্রের প্লাবনে ধীরে ধীরে জল ঢোকে কাজিরাঙাতে। তবে দ্বিতীয় পর্বে জলের তোড়ে ভেসে যায় বহু জন্তু। প্রবলভাবে জল মগ্ন হয়ে মারা গিয়েছে জন্তুরা। কাজিরাঙা সূত্রে জানানো হয়েছে ১২ অগাস্টের পর থেকে প্রবলভাবে জল ঢুকে পড়ে কাজিরাঙা অভয়ারণ্যে। ১০ ফুট পর্যন্ত জল থাকে সেখানে।

    পার্কের ২৬৪ টি জন্তুকে সোমবার থেকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। মনে করা হচ্ছে তারা মারা গিয়েছে। বিভিন্ন প্রজাতির হরিণ এদের মধ্যে অন্যতম। অন্যদিকে , দেখা গিয়েছে, দুর্যোগ পূর্ণ অবস্থায় বেশ কিছু হরিণকে খেয়ে ফেলেছে বাঘ । ক্রমেই প্রবল বিপত্তির মধ্যে পড়ে যাচ্ছেন বনকর্মীরা। এই মুহুর্তে সেখানে বন্যার হাত থেকে পশুদের বাঁচাতে জানপ্রাণ লাগিয়ে দিচ্ছেন বনকর্মীরা।

    English summary
    Kaziranga National Park, home to the highest number of one-horned rhinos in the world, has lost 369 animals in two successive waves of floods, with the casualty list including nearly two dozen rhinos, one tiger, several elephants and buffaloes and over 250 deer of various species.

    Oneindia - এর ব্রেকিং নিউজের জন্য
    সারাদিন ব্যাপী চটজলদি নিউজ আপডেট পান.

    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Oneindia sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Oneindia website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more