• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

ভারতে থেকে পাকাপাকি ভাবে পাততাড়ি গোটাচ্ছে বাইটড্যান্স! সঙ্কটে টিকটক-হ্যালোর ২ হাজার কর্মী

  • |

লাদাখ সীমান্তে ভারত-চিন চাপানউতোরের মাঝেই নেট-দুনিয়ায় চিনা নজরদারির উত্তর দিয়েছিল ভারত। ইউসি ব্রাউজার, টিকটক সহ প্রায় ১০০টির বেশি জনপ্রিয় চিনা অ্যাপকে অনির্দিষ্টকালের জন্য ভারতে নিষিদ্ধ করে কেন্দ্র। যদিও টিকটক ব্যবহারকারীদের হা-হুতাশের সুযোগ দেয়নি অ্যাপ-প্রস্তুতকারকরা। অবশেষে টিকটক সহ টিকটকের মত অন্য কিছু অ্যাপও যে ভারত থেকে পাততাড়ি গোটাচ্ছে, তা স্পষ্ট করল টিকটক-হেলো-র প্রস্তুতকারক চিনা সংস্থা বাইটড্যান্স। যার ফলে চির অন্ধকারে চলে যেতে চলেছে টিকটক হ্যালোর মতো সংস্থার প্রায় ২ হাজার কর্মী।

ভবিষ্যতে সরকারি ছাড়পত্রে ফেরার আশ্বাস

ভবিষ্যতে সরকারি ছাড়পত্রে ফেরার আশ্বাস

ভারত থেকে পাততাড়ি গোটানোর প্রসঙ্গ প্রথম জানা যায় টিকটক-এর আন্তর্জাতিক প্রধান ভ্যানেসা পাপ্পাস ও উপদেষ্টা ব্লেক চ্যান্ডলির তরফে কর্মীদের পাঠানো ই-মেলে। যদিও ভবিষ্যতে ভারত সরকারের তরফে ছাড়পত্র পেলে ফেরার আশ্বাসও দিয়েছেন টিকটক কর্তারা। বাইটড্যান্সের আধিকারিকদের মতে, বুধবার আয়োজিত আলোচনা সভাতেই বাইটড্যান্সের ভারত ছাড়ার পরিকল্পনা স্থির হয়।

হতাশ টিকটক কর্তারা

হতাশ টিকটক কর্তারা

টিকটকের তরফে এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, "গত বছরের ২৯শে জুন টিকটকের উপর সরকারি নিষেধাজ্ঞা বলবৎ হয়। তারপর থেকে সকল নিয়ম-নিষেধাবলী মেনে চললেও সরকারি ছাড়পত্র মেলেনি।" ভারতের প্রায় ২,০০০ কর্মীকে ৬ মাস ধরে সাহায্য করে গেলেও কোনোরকম ভালো ফল মেলেনি, উল্টে সরকারের তরফে গাফিলতি দেখা গিয়েছে, জুটেছে হতাশা, এমনটাই মত আন্তর্জাতিক টিকটক কর্তাদের।

কর্মীসংখ্যা কমাচ্ছে বাইটড্যান্স

কর্মীসংখ্যা কমাচ্ছে বাইটড্যান্স

বাইটড্যান্স-এর তরফে জানান হয়েছে, গত কয়েকমাস যাবৎ টিকটক-হেলোর মত অ্যাপ না চললেও সমস্ত কর্মী বহাল ছিলেন। ফলে বর্তমানে ক্ষতির পথে আর হাঁটতে চাইছে না চিনা সংস্থা। সূত্রের খবর, গত বছরের জুন মাসে ব্যান হওয়া ৬০টি অ্যাপের পক্ষে বারংবার সওয়াল করলেও নিষেধাজ্ঞা তোলার ব্যাপারে কোনোরকম হেলদোল দেখায়নি কেন্দ্র। স্বাভাবিকভাবেই ভারতে ব্যবসা বন্ধের কঠিন সিদ্ধান্ত নিল বাইটড্যান্স।

সরকারের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ

সরকারের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ

নিষিদ্ধ হওয়ার পর থেকে সকলরকমের সরকারি নিয়মনীতি মেনে চললেও সরকারের তরফে অ্যাপ পুনরায় চালু করার বিষয়ে কোনো সদুত্তর মেলেনি, ভ্যানেসা ও চ্যান্ডলির ইমেইল অনুযায়ী জানা গেছে এমনটাই। বাইটড্যান্সের আধিকারিকদের বক্তব্য, "টিকটক-হেলো বন্ধের ফলে প্রচুর ভারতীয়ও সমস্যার মুখে পড়েছেন, কিন্তু তাতেও আর সত্যি কিছু করার নেই।" যদিও এ বিষয়ে কেন্দ্রের তরফে কোনোরকম প্রতিক্রিয়া মেলেনি।

কলকাতাঃ স্থগিতাদেশ পুরসভার নিয়োগ প্রক্রিয়ায়

আজ বাড়ি ফিরছেন না সৌরভ, কেমন আছেন মহারাজ, দাদাকে দেখতে এলেন অভিষেক

English summary
finally bytedance shuts down business 2000 tiktok hello workers in crisis
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X