• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ-এ সংক্রমণ কমলেও, মে মাসে মৃত্যু নিয়ে চিন্তায় বিশেষজ্ঞ মহল

যদি গত কয়েকদিনে ভারতে করোনা (covid) নিয়ে পরিসংখ্যান দেখা যায়, তাহলে বলাই যায় ভারত খুব দ্রুতগতিতে করোনার (coronavirus) দ্বিতীয় তরঙ্গ কাটিয়ে উঠেছে। প্রতিদিনই কমছে টেস্ট পজিটিভিটি রেশিও এবং সংক্রমণ। যদিও স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের চিন্তায় রেখেছে মৃত্যুর (fatality) বিষয়টি।

অন্য দেশের তুলনায় কেস ফ্যাটালিটি রেট কম

অন্য দেশের তুলনায় কেস ফ্যাটালিটি রেট কম

করোনায় আক্রান্ত অন্য দেশের সঙ্গে তুলনায় দেখা গিয়েছে, ভারতের কেস ফ্যাটালিটি রেট কম। যদিও মে মাসের দ্বিতীয় ভাগে কেস ফ্যাটালিটি রেট কম অনেকটাই বেড়েছে। করোনা আক্রান্ত এবং মৃত্যুর নিরিখে এই কেস ফ্যাটালিটি রেট বের করা হয়।

মে মাসে মৃত্যু বড়েছে কয়েকগুণ

মে মাসে মৃত্যু বড়েছে কয়েকগুণ

মে মাসের প্রথম ১৫ দিনে ভারতে ৫৮,৪৩১ জনের মৃত্যু হয়েছিল। সেই সময় কেস ফ্যাটালিটি রেট ছিল ১.০৬ শতাংশ। কিন্তু পরবর্তী ১৪ দিনে অর্থাৎ ১৬-২৯ মে পর্যন্ত দেশে ৫৫, ৬৮৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। এক্ষেত্রে কেস ফ্যাটালিটি রেট ১.৭৩। কিন্তু এই সময়ে দেশে সংক্রমণ কমেছে ৪২ শতাংশের মতো।

মে মাসেই কেস ফ্যাটালিটি রেট সব থেকে বেশি

মে মাসেই কেস ফ্যাটালিটি রেট সব থেকে বেশি

এই মে মাসেই এখনও পর্যন্ত ২০২১-এ কেস ফ্যাটালিটি রেট সব থেকে বেশি, ১.৩১ শতাংশ। জানুয়ারিতে কেস ফ্যাটালিটি রেট ছিল ১.১৫, মার্চে ০.৫২ শতাংশ।

মৃত্যুর নিরিখে ভয়াল মে-মাস

মৃত্যুর নিরিখে ভয়াল মে-মাস

যদি প্রতিদিনের মৃত্যুর সংখ্যা পর্যবেক্ষণ করা হয়, তাহলে দেখা যাবে, দেশে করোনা সংক্রমণের পর থেকে ২০২১-এর মে মাসে প্রতিদিন গড়ে মৃত্যুর সংখ্যা এই মে-মাসেই সব থেকে বেশি। প্রতিদিনের গড় ৩,৯৩৫। এপ্রিলে যা ছিল ১,৬৩১। এর সঙ্গে যদি জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারি-মার্চের তুলনা করা যায়, তাহলেই পরিস্থিতি অনুমান করা যাবে। জানুয়ারিতে এই গড় ছিল ১৭৪ এবং ফেব্রুয়ারিতে ৯৯। মার্চে এই গড় ছিল ১৮৬।

বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা

বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা

তবে মৃত্যুর সংখ্যা নিয়ে বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যাও রয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, সংক্রমণের পরে ১৪ দিন ধরে মৃত্যুর হিসেব করা হয়। সেই কারণে যখন ১৬ মে থেকে দেশে করোনার দ্বিতীয় তরঙ্গে আক্রান্তের সংখ্যা কমতে শুরু করেছে, তখন জুনের প্রথম সপ্তাহ থেকে মৃত্যুর নিরিখে তার ফল পাওয়া যাবে।

বিধানসভা নির্বাচনে বামেদের হারের বড় কারণ জনবিচ্ছিন্নতা, আর যেসব বিষয়কে সিপিএম স্বীকার করল পর্যালোচনায়বিধানসভা নির্বাচনে বামেদের হারের বড় কারণ জনবিচ্ছিন্নতা, আর যেসব বিষয়কে সিপিএম স্বীকার করল পর্যালোচনায়

English summary
Despite decline in Covid test positivity ratio health authorities in thought over spike in fatality rates
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X