• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

বউ দিন, ভোট নিন! হরিয়ানায় কুমারদের হাউমাউ

  • By Ananya Pratim
  • |

হরিয়ানা
চণ্ডীগড়, ১৪ মার্চ: মুঝে বহু দো, ম্যাঁয় ভোট দুঙ্গা!

বউ দিন, ভোট নিন! এর সঙ্গে মধুচক্র বা অবৈধ যৌনতার কোনও সংস্রব নেই কিন্তু। বরং লোকসভা ভোটের মুখে এটাই দস্তুর হয়ে দাঁড়িয়েছে হরিয়ানায়। যে কোনও রাজনীতিক দলের প্রার্থী গ্রামেগঞ্জে প্রচারে গেলেই ছেঁকে ধরছে অবিবাহিত তরুণরা। দীর্ঘশ্বাস ফেলে বলছে, ভোট আপনাকেই দেব। কিন্তু বিবাহযোগ্যা সুলক্ষণা মেয়ে খুঁজে দিতে হবে, যাকে সংসারে আনা যায়!

হরিয়ানা, পাঞ্জাবে লিঙ্গানুপাত খুবই করুণ। হরিয়ানায় প্রতি এক হাজার পুরুষে মেয়ের সংখ্যা হল ৮৭৭ জন। অবস্থা এমনই দাঁড়িয়েছে, অনেক গ্রামে রোজগেরে ছেলেরা তীর্থের কাকের মতো অপেক্ষা করছে, কবে বিয়ে হবে! কিন্তু বিবাহযোগ্যা মেয়ে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। ফলে রাজ্যে বাড়ছে মহিলাঘটিত অপরাধ। বাড়ছে হতাশা। এখন তাই অবিবাহিত যুবকরা এটাকে ইস্যু করে মুখ খুলছে রাজনীতিক দলগুলির কাছে।

যেমন ধরা যাক, কুঁওয়ারা ইউনিয়ন বা কুমারদের সভা। ২০০৯ সালে অবিবাহিত যুবক পবন কুমার প্রতিষ্ঠা করেন এই কুঁওয়ারা ইউনিয়ন। এখন তিনি এর চেয়ারম্যান। বললেন, "হরিয়ানার অল্পবয়সী ছেলেদের অবস্থা খুবই খারাপ। একে তো চাকরিবাকরির তেমন সুযোগ নেই। তার ওপর গাদাগাদা ছেলে বছরের পর বছর বসে আছে বিয়ের অপেক্ষায়। আমাদের সমবয়সী মেয়ে পাওয়া যাচ্ছে না। বাইরের রাজ্যে আমাদের বয়সী ছেলেরা কত ভালো আছে। বয়স হলেই বিয়ে হয়ে যাচ্ছে। কংগ্রেস, বিজেপি, যারাই আমাদের কাছে আসছে, তাদের বলছি, আমাদের বউ চাই। যদি জুটিয়ে দিয়ে পারেন, ভোট পাবেন।"

হিসার লোকসভা আসনের কংগ্রেস প্রার্থী সম্পৎ সিং বললেন, "এর জন্য দায়ী প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমপ্রকাশ চৌতালা। উনি ভোটের সময় অল্পবয়সী ছেলেদের কাছে গিয়ে বলতেন, আমাকে ভোট দাও। তোমার জন্য সুন্দরী বউ এনে দেব। এই ইস্যু লোকের মাথায় ঢুকিয়ে উনি সব গড়বড় করে দিয়েছেন। আমি মানছি, দিনের পর দিন কন্যাভ্রূণ মেরে ফেলার কারণে আজ এই সঙ্কট। কিন্তু অবিবাহিত ছেলেদের মাথায় এ সব ঢুকিয়ে দেওয়া কি ঠিক?"

যমুনানগরের রেড ক্রস সোসাইটির সম্পাদক শ্যামসুন্দর জানালেন, হরিয়ানায় এটা একটা জটিল সমস্যা। শহরের পয়সাওয়ালারা উত্তরপ্রদেশ, বিহার এমনকী পশ্চিমবঙ্গ থেকে টাকা দিয়ে বউ 'কিনে' আনছে। কিন্তু সাধারণ ঘরের ছেলেদের পক্ষে তো সেটা সম্ভব নয়। সারা রাজ্যে সাত হাজার গ্রাম রয়েছে। প্রতিটি গ্রামে অন্তত ১৫০-২০০ জন ছেলে আছে, যাদের বিয়ের বয়স হয়েছে অথচ বিয়ে হয়নি। কন্যাভ্রূণ বাঁচাতে সর্বস্তরে প্রচার চালানো হলেও অবস্থা পাল্টায়নি। এমন চলতে থাকলে রাজ্যে খুব শিগগির বড় ধরনের বিশৃঙ্খলা তৈরি হবে বলে তাঁর আশঙ্কা। দিল্লির মতো এখন হরিয়ানাতেও ইভ টিজিং, শ্লীলতাহানি, ধর্ষণ বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে।

English summary
'Bahu do, vote lo', this is the latest trend in Haryana
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X