• search

২০২০-র মধ্যে ATM-এ কার্ডে লেনদেন বন্ধ! তার জায়গায় কী আসবে জানেন কি?

  • By Ritesh
Subscribe to Oneindia News
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS
For Daily Alerts

    বেঙ্গালুরু, ৮ জানুয়ারি : আগামী দুই থেকে আড়াই বছরের মধ্যে এটিএমে কার্ডের মাধ্যমে লেনদেন পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যাবে। এমনকী ডেবিট ও ক্রেডিট কার্ডও অকেজো হয়ে যাবে। তার বদলে আপনার বুড়ো আঙুলের ছাপেই লেনদেন চলবে বলে জানিয়েছেন নীতি আয়োগের সিইও অমিতাভ কান্ত।

    কোন উন্নত দেশে কত বড় অঙ্কের নোট বাজারে চলে জানেন কি?

    এখনও পুরনো ৫০০ ও ১ হাজারের নোট বদলানো সম্ভব!

    বেঙ্গালুরুতে প্রবাসী ভারতীয়দের একটি সভায় অমিতাভ কান্ত এই দাবি করেন। বলেন আগামী আড়াই বছরের মধ্যে গোটা ভারতে ডিজিটাল ব্যবস্থা চালু হয়ে যাবে। তখন আর কার্ডে লেনদেনের কোনও প্রয়োজন পড়বে না। বদলে বৃষ্ঠাঙ্গুষ্ঠই আপনার লেনদেনের একমাত্র সম্বল হবে।

    ২০২০-র মধ্যে ATM-এ কার্ড লেনদেন বন্ধ! বদলে কী আসবে জানেন কি?

    নীতি আয়োগের সিইও-র বক্তব্য, সারা দেশে স্মার্টফোন ব্যবহারের জোয়ার এসেছে। ফলে ভারত আগামিদিনে আঙুলের একটি চাপেই লেনদেন সম্পূর্ণ করে ফেলতে পারবে।

    ৫০০ টাকার নোটের যোগান বাড়াতে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র

    কীভাবে সম্ভব ক্যাশলেস ইকোনমি? ডাউনলোড স্পিডে নেপালেরও পিছনে ভারত!

    এর পাশাপাশি অর্থনীতিক ক্ষেত্রে মহিলাদের অবদানের বিষয়েও গুরুত্ব আরোপ করেন তিনি। বলেন, দেশের জিডিপিতে মহিলাদের অবদান মাত্র ১৭ শতাংশ। মহিলা উদ্যোগপতিদের সংখ্যাও একেবারে নগন্য। যদি ভারতকে অর্থনৈতিক দিকে অগ্রসর হতে হয় তাহলে মহিলাদের আরও এগিয়ে আসতে হবে।

    এর পাশাপাশি কালো অর্থনীতি নিয়েও অনুযোগ করেন অমিতাভ কান্ত। বলেন, এই মুহূর্তে দেশের মাত্র ২ থেকে আড়াই শতাংশ মানুষ আয়কর দেন। ফলে দেশের মোট অর্থনীতির অনেকটাই কালো চাদরে ঢাকা রয়েছে। সেই বিষয় থেকেও বেরিয়ে আসতে পারলে ভারতের উন্নতি সম্ভব বলে মন্তব্য করেন নীতি আয়োগের সিইও।

    English summary
    A totally digitised India in two-and-a-half years, where ATM, credit and debit card transactions will be replaced by money transfers through thumb impressions in 30 seconds! This was the big picture painted by Niti Aayog CEO Amitabh Kant.

    Oneindia - এর ব্রেকিং নিউজের জন্য
    সারাদিন ব্যাপী চটজলদি নিউজ আপডেট পান.

    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Oneindia sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Oneindia website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more