• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

আপনি কি সাধারণ বা মরশুমি সর্দি–কাশিতে কাবু, তবে করোনা আতঙ্কের মাঝে আপনার জন্য রয়েছে সুখবর!‌

বিশ্বে করোনা ভাইরাসের থাবা মানুষকে নাজেহাল করে ছেড়ে দিয়েছে। কিন্তু তাও মানুষ এই মারণ ভাইরাসের বিরুদ্ধে প্রাণপণ লড়াই করে চলেছে। প্রায় প্রতিদিনই গবেষকরা করোনা নিয়ে নতুন নতুন গবেষণা সামনে নিয়ে আসছেন। তেমনি এক নতুন গবেষণায় জানা গিয়েছে যে যাদের মরশুমি বা সাধারণ ঠান্ডা লাগার অভ্যাস রয়েছে অতীতে তাঁরা কোভিড–১৯ সংক্রমণ থেকে সুরক্ষিত।

মেমোরি বি কোষের উৎপন্ন

মেমোরি বি কোষের উৎপন্ন

এমবায়ো জার্নালে প্রকাশিত এবং সেখানে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে যে কোভিড-১৯-এর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দীর্ঘ সময় ধরে শরীরে থাকে, হয়ত গোটা জীবনভর। সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, সার্স-কোভ-২ যার ফলে করোনা ভাইরাস হয়, সেটি মেমোরি বি কোষ উৎপাদন করে, এটি একটি দীর্ঘ-মেয়াদি রোগ প্রতিরোধকারী কোষ যেটি প্যাথোজেনকে সনাক্ত করে, অ্যান্টিবডি তৈরি করে ভাইরাসকে ধ্বংস করে এবং ভবিষ্যতের জন্য তাদের মনে রাখে। পরবর্তী সময়ে এই প্যাথোজেন যখনই শরীরের মধ্যে প্রবেশ করতে চাইবে, এই মেমোরি বি কোষ নিজের কাজ দ্রুত করবে এবং ভাইরাস তার কাজ শুরু করার আগেই তাকে নির্মূল করবে।

কারণ মেমোরি বি কোষ দশকের পর দশক বেঁচে থাকে, এরা কোভিড-১৯-এ বাঁচা ব্যক্তিদের পরবর্তী সংক্রমণের হাত থেকে দীর্ঘ সময় ধরে বাঁচায়। তবে এটা নিয়ে এখনও আরও গবেষণা করা দরকার রয়েছে বলে গবেষকরা জানিয়েছেন। এই সমীক্ষায় প্রথম পাল্টা প্রতিক্রিয়া দেওয়া হয় মেমরি বি কোষ নিয়ে। অর্থাৎ এই বি কোষ যে একসময় ঠান্ডার জন্য হওয়া করোনা ভাইরাসকে হামলা করেছিল সেটাই সার্স-কোভ-২ বলে পরিচিত। এই সমীক্ষার লেখকরা তাই মনে করছেন যে এর অর্থ হল যদি কেউ সাধারণ করোনা ভাইরাসে সংক্রমণ হন, যা প্রায় সকলেরই হয়, হয়ত তাদের মধ্যে কোভিড-১৯ প্রতিরোধ করার ক্ষমতা কিছু মাত্রায় বেশি রয়েছে।

বি কোষ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা

বি কোষ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রোচস্টার বিশ্ববিদ্যালয়ের লেখক তথা গবেষক মার্ক সাঙ্গস্টার বলেন, ‘‌কোভিড-১৯ থেকে সুস্থ হয়ে ওঠা ব্যক্তিদের রক্তের নমুনা পরীক্ষা করে দেখা গিয়েছে যে অধিকাংশের মধ্যে আগে থেকেই বি কোষ রয়েছে, যা সার্স-কোভ-২-কে সনাক্ত করতে পারে এবং দ্রুত অ্যান্টিবডি উৎপন্ন করতে পারে, যেটি করোনার ওপর হামলা করে।'‌

স্পাইক প্রোটিন করোনা ভাইরাসে বিদ্যমান

স্পাইক প্রোটিন করোনা ভাইরাসে বিদ্যমান

এই গবেষণা করা হয় হাল্কা থেকে মাঝারি করোনা ভাইরাস থেকে সুস্থ হয়ে ওঠা ২৬ জন ও ২১ জন এমন স্বাস্থ্যবান মানুষের রক্তের নমুনার ওপর, যাঁদের নমুনা ৬ থেকে ১০ বছর আগে নেওয়া হয়েছিল, যা করোনা ভাইরাসের অনেক আগে। এই নমুনাগুলি মেপে তাতে বি মেমোরি কোষ ও অ্যান্টিবডি কতটা রয়েছে তা দেখা হয়, যেগুলি শরীরের নির্দিষ্ট অংশের স্পাইক প্রোটিনকে নিশানা করে। যা সমস্ত করোনা ভাইরাসে বিদ্যমান এবং ভাইরাসগুলি কোষগুলিকে সংক্রমিত করার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

স্পাইক প্রোটিনকে ধ্বংস করে

স্পাইক প্রোটিনকে ধ্বংস করে

প্রত্যেক করোনা ভাইরাসে স্পাইক প্রোটিনের কাজ ও আকার কিছুটা আলাদা, কিন্তু তার একটি উপাদান এস২ সাবইউনিট, প্রত্যেক করোনা ভাইরাসে প্রায় একই রকম। মেমোরি বি কোষ স্পাইক এস২ সাবইউনিটের মধ্যে পার্থক্য কি তা না বলে একেবারে হামলা করে।

জেলায় জেলায় বৃষ্টি, রয়েছে ঘূর্ণাবর্ত! উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গের জন্য আবহাওয়ার রিপোর্টে কোন সতর্কবার্তা

English summary
People who have a common cold-cough are protected from the coronavirus, according to the study
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X