• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

চিনের সঙ্গে সংঘাতের জের! ভারতের মাটিতেই নতুন উৎপাদন কেন্দ্রের ভাবনা মার্কিন সংস্থা অ্যাপলের

  • |

গত কয়েক মাস ধরে ভারত-চিন ও আমেরিকা-চিন দ্বন্দ্বে সরগরম আন্তর্জাতিক রাজনৈতিক মহল। আর এরই মাঝে মার্কিন সংস্থা অ্যাপলের সিদ্ধান্তে শুরু হয়েছে চাপানউতোর। এদিকে করোনা আবহ ও সীমান্ত সংঘাতের জেরে গোটা বিশ্বেই কার্যত কোণঠাসা চিন। ডাক উঠেছে চিনা অ্যাপ থেকে চিন পণ্য বয়কটের। এমতাবস্থায় অ্যাপলের দ্বিতীয় বৃহৎ চুক্তিভিত্তিক আইফোন উৎপাদক 'পেগাট্রন' ভারতে আইফোন উৎপাদন কেন্দ্র তৈরির সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানা যাচ্ছে।

চেন্নাইয়ে অ্যাপল হাবের সম্ভাবনা

চেন্নাইয়ে অ্যাপল হাবের সম্ভাবনা

অ্যাপলের ভারতীয় শাখার এক আধিকারিকের মতে, এখনও পর্যন্ত চেন্নাইয়ে পেগাট্রনের ভারতীয় উৎপাদন শাখা প্রতিষ্ঠার ব্যাপারটি আলোচনার পর্যায়ে রয়েছে। যদিও কেন্দ্রীয় সরকার সহ বিভিন্ন রাজ্যের প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করে সঠিক জমির ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে অ্যাপল। তারপরেই বিদেশ থেকে যন্ত্রপাতি আনানোর প্রক্রিয়া শুরু হবে। পেগাট্রন আদতে অ্যাপলের তিনটি বৃহৎ চুক্তিভিত্তিক উৎপাদনকারী সংস্থার একটি। অন্য দুইটি সংস্থা উইশট্রন ও ফক্সকন আগে থেকেই ভারতে রয়েছে।

উৎপাদনকে চিন নির্ভর কাঠামো থেকে বের করে আনার প্রয়াস অ্যাপলের

উৎপাদনকে চিন নির্ভর কাঠামো থেকে বের করে আনার প্রয়াস অ্যাপলের

বিশেষজ্ঞদের মতে, অ্যাপলের এই সিদ্ধান্ত মূলত আইফোনের নির্মাণকে চিন নির্ভরতা থেকে বের করে আনার উদ্দেশ্যে এবং আশেপাশের সমস্ত দেশে অ্যাপলের সামগ্রিক ছড়িয়ে দেওয়ার লক্ষ্যে। ইতিমধ্যেই এপ্রিল মাসে বৃহৎ তথ্যপ্রযুক্তি ও ইলেকট্রনিক সংস্থাগুলিকে ভারতে উৎপাদন কেন্দ্র প্রতিষ্ঠায় উৎসাহ দেওয়ার লক্ষ্যে কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে প্রায় ৪১,০০০ কোটি টাকার প্রোডাকশন লিংকড ইনসেন্টিভ প্রোগ্রাম(পিআইএল) নেওয়া হয়েছে।

পেগাট্রন কি এবং ভারতীয় বাজারে এর গুরুত্ব কতখানি?

পেগাট্রন কি এবং ভারতীয় বাজারে এর গুরুত্ব কতখানি?

হন হাই প্রিসিশন ইন্ডাস্ট্রি ওরফে ফক্সকন টেকনোলজির পরেই তাইওয়ানের দ্বিতীয় বৃহত্তম তথ্যপ্রযুক্তি নির্মাতা হিসেবে নাম আসে পেগাট্রনের। পেগাট্রন মূলত নোটবুক, ডেস্কটপ, মাদারবোর্ড, ট্যাবলেট, গেমিং সরঞ্জাম, এলসিডি টিভি, স্মার্টফোন, ব্রডব্যান্ড ও নেটওয়ার্ক সংক্রান্ত সামগ্রী প্ৰস্তুত করে। ইতিপূর্বে মার্চ মাসে বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে একটি আলোচনাসভায় পেগাট্রনের সিইও লিয়াও-সিইহ-জ্যাং তাঁদের উৎপাদনী শক্তিকে চিনের বাইরে বিস্তারিত করার কথা ঘোষণা করেন এবং এও জানিয়েছিলেন যে, সরকারের পিআইএলের উপর নির্ভর করেই সেই দেশে উৎপাদন নিয়ে ভাবনাচিন্তা হবে।

অ্যাপলের মার্কেট শেয়ার মাত্র ২% - ৩%

অ্যাপলের মার্কেট শেয়ার মাত্র ২% - ৩%

গত বছর ভারতীয় বাজারে অ্যাপলের লভ্যাংশ ছিল প্রায় ১৫০ কোটি মার্কিন ডলার, যার মধ্যে শুধু আইফোনের জন্যই ওঠে প্রায় ১০০ কোটি মার্কিন ডলার। ভারতে বিক্রিত আইফোনের খুব অল্প পরিমাণই এখানে তৈরি হয়। বর্তমানে ফক্সকন ও উইশট্রন আইফোন ৭ ও এক্সআর মডেলদুটি ভারতে উৎপাদন করেছে। অন্যদিকে, ২০১৮-১৯ অনুযায়ী চিনে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের মধ্যে প্রথমদিকে ছিল অ্যাপল। চিনে উৎপাদিত প্রায় ২০,০০০ কোটি মার্কিন ডলার মূল্যের ইলেকট্রনিক সামগ্রীর অধিকাংশই রপ্তানি করে দেয় চিন। ফলত ভারতে উৎপাদন ক্ষমতা বাড়ানোর খবরে স্বভাবতই কপালে চিন্তার ভাঁজ পড়েছে চিনা কূটনৈতিক মহলের।

২১ জুলাইয়ের ভার্চুয়াল সভা প্রসঙ্গে কি বললেন দিলীপ ঘোষ

চিনের ভিতরে 'লাদাখ মডেল' ! লালফৌজ কীভাবে গোপনে যুদ্ধাভ্যাস করে রণ দামামা বাজিয়েছে

English summary
after the conflict with china us company apple is thinking of setting up a new manufacturing unit in chennai india
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X